ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৯, ০৮ ডিসেম্বর ২০২২, ১৩ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৪

রাজনীতি

বিএনপির কমিটিতে পদ না পেয়ে পদত্যাগের ‘নাটক’

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২১০৫ ঘণ্টা, সেপ্টেম্বর ২৭, ২০২২
বিএনপির কমিটিতে পদ না পেয়ে পদত্যাগের ‘নাটক’

নরসিংদী: নরসিংদীতে ইউনিয়ন বিএনপির কমিটিতে পদ না পাওয়ায় দল থেকে পদত্যাগের নাটক সাজানোর অভিযোগ উঠেছে যুবদলের এক নেতার বিরুদ্ধে।  

নবগঠিত কমিটির ২৩ নেতার নাম উল্লেখ করে পদত্যাগের এ নাটক সাজানো হয় বলেও অভিযোগ করা হয়।

এ ঘটনার প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন করেছেন আলোকবালি ইউনিয়ন বিএনপির নেতাকর্মীরা।  

মঙ্গলবার (২৭ সেপ্টেম্বর) দুপুরে নরসিংদী জেলা বিএনপির কার্যালয় চিনিশপুরে এ সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন নরসিংদী সদর থানা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক ইকবাল হোসেন।

সংবাদ সম্মেলনে ইকবাল হোসেন জানান, ইউনিয়ন বিএনপির নেতাকর্মীদের চাঙ্গা ও শক্তিশালী করার লক্ষ্যে সম্প্রতি শাহ আলম চৌধুরীকে আহ্বায়ক ও আব্দুল কাইয়ুম সরকারকে সদস্য সচিব করে ৪০ সদস্য বিশিষ্ট আলোকবালী ইউনিয়ন বিএনপির কমিটি ঘোষণা করা হয়। এতে পদ না পেয়ে সদর থানা যুবদলের এক নেতা ক্ষিপ্ত হন। এলাকার নেতৃত্ব হাতে নিতে তিনি আলোকবালী ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদকের পদ চেয়েছিলেন। দলের নেতারা রাজপথের আন্দোলন সংগ্রামে ত্যাগী ও হামলা মামলার শিকার নেতাদের কমিটিতে স্থান দিয়েছেন। এ কমিটিতে স্থান না পেয়ে বর্তমান কমিটির সভাপতি ও সদস্য সচিব ব্যতিত ২৩ জনের নাম লিখে পদত্যাগের নাটক সাজিয়েছেন ওই নেতা। যা গণমাধ্যমেও প্রকাশ করেন তিনি। বাস্তবে নবগঠিত কমিটির কেউ পদত্যাগ করেননি। এমনকি পদত্যাগ পত্রে যাদের নাম উল্লেখ করা হয়েছে, তারা সবাই আজকের সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত রয়েছেন। ব্যক্তি স্বার্থে দলকে ক্ষতিগ্রস্ত করতেই এমন কর্মকাণ্ড চালানো হয়েছে বলে অভিযোগ করেন তিনি।

এসময় উপস্থিত ছিলেন- আলোকবালী ইউনিয়ন বিএনপির আহ্বায়ক শাহ আলম চৌধুরী, সদস্য সচিব কাইয়ুম সরকার, যুগ্ম আহ্বায়ক মানিক মিয়া, সাইদুর রহমান মোমেন, জয়নাল আবেদীন সরকার, কালু মেম্বার, সদস্য তারেক সরকার, মান্নান মেম্বারসহ অনেকে।
বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব ও জেলা বিএনপির আহ্বায়ক খায়রুল কবির খোকন বলেন, বিএনপি একটি বড় দল। এখানে অনেক নেতাকর্মীর সমাগম রয়েছে। তাই পদ পদবির প্রত্যাশীও অনেক বেশি। সবাইকে তো পদ দেওয়া যায় না। দলের জন্য যারা নিবেদিত প্রাণ এবং দুঃসময়ে দলের জন্য কাজ করেন, তাদেরই কমিটিতে স্থান দেওয়া হয়েছে।  

২৩ নেতার পদত্যাগের গুঞ্জন উড়িয়ে দিয়ে তিনি বলেন, এটা মিথ্যা। আমার কাছে কেউ পদত্যাগ পত্র জমা দেননি। পদত্যাগ পত্রে যাদের নাম শোনা গেছে, আমি তাদের সঙ্গে কথা বলেছি। পদত্যাগের ব্যাপারে তারা কিছু জানেনই না। গুটি কয়েক পদবঞ্চিত নেতা এলাকায় রিউমার ছড়াচ্ছেন।

উল্লেখ্য, সম্প্রতি সদর থানা যুবদলের সহসভাপতি আকরামুল ইসলাম সমির আলোকবালী ইউনিয়ন বিএনপির সাধারণ সম্পাদকের পদ চেয়ে পাননি।

বাংলাদেশ সময়: ২০২১ ঘণ্টা, সেপ্টেম্বর ২৭, ২০২২
এসআই

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa