ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৯, ০৮ ডিসেম্বর ২০২২, ১৩ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৪

রাজনীতি

বিএনপি নেতাদের নাম সংগ্রহ করা হচ্ছে কেন: মির্জা আব্বাস

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০২২ ঘণ্টা, সেপ্টেম্বর ২৭, ২০২২
বিএনপি নেতাদের নাম সংগ্রহ করা হচ্ছে কেন: মির্জা আব্বাস

ঢাকা: জেলা-উপজেলা-থানা-ইউনিয়ন পর্যায়ের বিএনপির সভা সমাবেশে অর্থায়ন করে নেতৃত্ব দেন এমন পাঁচ জন করে নেতার নাম-ঠিকানা সরকার গোপনে সংগ্রহ করছে বলে অভিযোগ করেছেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাস।
 
মঙ্গলবার (২৭ সেপ্টেম্বর) বিকেলে মহানগর উত্তর বিএনপির তেজগাঁও জোনের উদ্যোগে মগবাজার বিয়াম মিলনায়তন সংলগ্ন সড়কে জ্বালানি তেল, নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতি, সারাদেশে দলের কর্মসূচিতে হামলা ও নেতাকর্মী হত্যার প্রতিবাদে আয়োজিত সমাবেশে তিনি একথা বলেন।

মির্জা আব্বাস বলেন, বিএনপি ও অন্যান্য রাজনৈতিক দলের নেতাদের নাম ঠিকানা তারা (পুলিশ) সংগ্রহ করার চেষ্টা করছে। একটা প্রজ্ঞাপন জারি করেছে। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমেও তা প্রকাশ পেয়েছে। আমার প্রশ্ন হলো এই নাম-ঠিকানা দিয়ে আপনারা কি করবেন? যদি এদের নাম-ঠিকানা সংগ্রহ করে একজনকেও গ্রেফতার করা হয় সারাদেশের মানুষকে নিয়ে আমরা রাজপথে নামবো।

তিনি বলেন, দেশের সব এলাকায় বিএনপি করে এমন শীর্ষ স্থানীয় ব্যক্তির নাম দিতে হবে বলে প্রজ্ঞাপন জারি করেছে। (এ সময় রাঙামাটি পুলিশ সুপারকে দেওয়া একটি প্রজ্ঞাপন পড়ে শোনান মির্জা আব্বাস) তিনি বলেন, এই প্রজ্ঞাপনে লেখা আছে থানা, উপজেলা, ইউনিয়ন, গ্রাম যেখানেই হোক এক থেকে পাঁচ জনের নাম দিতে হবে। কারা মিটিংয়ে যায়, কারা সভা করে, কারা অর্থ যোগান দেয় এদের নাকি নাম দিতে হবে। এটা তো সরকারের কাজ হতে পারে না।

মির্জা আব্বাস বলেন, সরকার বাংলাদেশ রাশিয়া থেকে গম আমদানি করবে। অর্থাৎ গভর্নমেন্ট টু গভর্নমেন্ট গম আসবে। এর মধ্যে আবার মধ্যস্বত্বভোগী বা মিডল ম্যান বা কমিশন এজেন্ট বসিয়ে দিয়েছে। গভর্নমেন্ট টু গভর্নমেন্ট কোনো জিনিস ক্রয় করা হলে সেটাতে মিডল ম্যান কেন থাকবে? টাকা চুরির রাস্তা? এতে এ গমের দাম কয়েক গুন বেড়ে যাবে। দেশের মানুষকে বেশি দাম দিয়ে আটা কিনতে হবে। তেল-ডালসহ প্রত্যেকটা জিনিসপত্রের দাম বেড়ে গেছে। আবার 'মড়ার উপর খাঁড়ার ঘা'র মতো বেশি দাম দিয়ে গম আমদানি করছে সরকার।

তিনি বলেন, আজকে শাওনরা (নারায়ণগঞ্জে পুলিশের গুলিতে নিহত শাওন প্রধান ও মুন্সিগঞ্জে শহীদুল ইসলাম শাওন), বিএনপির কর্মীরা বুক পেতে দিতে শিখেছে, মৃত্যুকে হাতছানি দিয়ে ঢাকছে। কোনো সমস্যা নেই। এ সরকারের ক্ষমতা টিকে থাকার কোনো অবস্থা আমি দেখতে পাচ্ছি না। আমি বলতে চাই, যত কথা বলেন, যত কৌশল নেন সরকার টিকে থাকবে না? সম্ভব না। অবৈধভাবে সরকারে টিকে থাকতে হবে কেন? এতো বছর দেশ শাসন করতে হবে কেন? গুলি করার জন্য? ব্যাংক লুট করার জন্য?

মহানগর উত্তর বিএনপির আহ্বায়ক ডাকসুর সাবেক ভিপি আমান উল্লাহ আমানের সভাপতিত্বে ও সদস্য সচিব আমিনুল হকের পরিচালনায় সমাবেশে আরও  বক্তব্য দেন বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান আবদুল আউয়াল মিন্টু, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা কাউন্সিলের সদস্য আবুল খায়ের ভুঁইয়া, জয়নুল আবদিন ফারুক, আবদুস সালাম, কেন্দ্রীয় নেতা শামসুর রহমান শিমুল বিশ্বাস, নাজিম উদ্দিন আলম, শহিদ উদ্দিন চৌধুরী এ্যানি, সাইফুল আলম নিরব, তাবিথ আউয়ালসহ মহানগর উত্তর বিএনপি, যুব দল, স্বেচ্ছাসেবক দল, মহিলা দল, জাসাস ও ছাত্রদল নেতারা।

বাংলাদেশ সময়: ২০২২ ঘণ্টা, সেপ্টেম্বর ২৭, ২০২২
এমএইচ/আরআইএস

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa