ঢাকা, বুধবার, ১৩ আশ্বিন ১৪২৯, ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২২, ০১ রবিউল আউয়াল ১৪৪৪

রাজনীতি

নির্বাচন বর্জনের সংস্কৃতি থেকে বেরিয়ে আসতে হবে: তথ্যমন্ত্রী

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৫২০ ঘণ্টা, আগস্ট ১০, ২০২২
নির্বাচন বর্জনের সংস্কৃতি থেকে বেরিয়ে আসতে হবে: তথ্যমন্ত্রী ডেমোক্রেসি ইন্টারন্যাশনাল আয়োজিত অনুষ্ঠানে তথ্যমন্ত্রী | ছবি: রাজীন চৌধুরী

ঢাকা: তথ্য ও সম্প্রচারমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ বলেছেন, আমরা নির্বাচন বর্জন ও প্রতিহতের সংস্কৃতি লালন করি। নির্বাচন বর্জনের সংস্কৃতি থেকে বেরিয়ে আসতে হবে।

বুধবার (১০ আগস্ট) দুপুরে রাজধানীর গুলশান-২-এ লেকশোর হোটেলে ডেমোক্রেসি ইন্টারন্যাশনাল আয়োজিত রাজনৈতিক ই-লার্নিং প্ল্যাটফর্মের জাতীয় উদ্বোধন অনুষ্ঠানে তিনি এ কথা বলেন।

হাছান মাহমুদ বলেন, দেশে গণতান্ত্রিক সরকার রাষ্ট্র চালাচ্ছে। গণতন্ত্রকে প্রতিষ্ঠা করা কোন একক দলের দায়িত্ব নয়। সকল রাজনৈতিক দলের দায়িত্ব গণতান্ত্রিক রাষ্ট্র ব্যবস্থাকে টিকিয়ে রাখা। আমাদের গত ৫০-৫১ বছরের ইতিহাসে গণতান্ত্রিক রাষ্ট্র ব্যবস্থা তখনই হুমকির মুখে পড়েছে, যখন কেউ অস্ত্র উঁচিয়ে রাষ্ট্রের ক্ষমতা দখল করেছে। অস্ত্র উঁচিয়ে রাষ্ট্রক্ষমতা দখল করে আবার ক্ষমতার উচ্ছিষ্ট বিলিয়ে দল গঠিত হয়েছে তখন আমাদের দেশের গণতন্ত্র হুমকির মুখে পড়েছে।

গণতান্ত্রিক রীতি-নীতির চর্চার কথা উল্লেখ করে তথ্যমন্ত্রী বলেন, গণতান্ত্রিক সমাজ ব্যবস্থা ও রীতি-নীতির চর্চা সম্মিলিত রাজনৈতিক দায়িত্ব। নির্বাচন এলে আমরা যদি নির্বাচন বর্জনের সংস্কৃতি লালন করি তাহলে গণতান্ত্রিক সমাজ ব্যবস্থা টিকিয়ে রাখা কঠিন হয়ে দাঁড়াবে। আমি আশা করব, আমরা নির্বাচন বর্জনের সংস্কৃতি থেকে বেরিয়ে আসবো। সবকিছুতে না বলার রাজনৈতিক সংস্কৃতি এটি আমাদের রাজনীতিতে তিক্ততা বাড়িয়েছে। আমি আশা করি, আগামী নির্বাচনে সব রাজনৈতিক দল অংশগ্রহণ করবে। একটি অবাধ সুষ্ঠু নির্বাচনের মাধ্যমে বাংলাদেশে আগামী সরকার প্রতিষ্ঠিত হবে।



বাংলাদেশে নিযুক্ত মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রদূত পিটার হাস বলেন, যুক্তরাষ্ট্র বাংলাদেশ গত ৫০ বছর যে বন্ধুত্ব রেখেছে, তাতে গর্ব বোধ করে। যুক্তরাষ্ট্র মনে করে জনগণের জন্য সুষ্ঠু ও অবাধ নির্বাচন করা কঠিন কাজ। যার মধ্যে সমাজের সর্বস্তরের অংশগ্রহণ করা প্রয়োজন। সরকারসহ সবার উচিত তা নিশ্চিত করা। এদের মধ্যে একটি দল যদি বাধা দেয় তাহলে সুষ্ঠু নির্বাচন করা কঠিন হয়।

আরও বক্তব্য রাখেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য আমির খসরু মাহমুদ। অনুষ্ঠানে দেশজুড়ে বাংলাদেশি রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ ও রাজনীতি বিষয়ে আগ্রহীদের রাজনৈতিক জ্ঞান ও দক্ষতা অর্জনের পথ সুগম করতে ডেমোক্রেসি ইন্টারন্যাশনালের বাস্তবায়নে, ইউএসএআইডি-এর স্ট্রেংদেনিং পলিটিক্যাল ল্যান্ডস্কেপ প্রকল্পের অধীনে politicsmatters.com.bd নামে একটি ই-লার্নিং প্ল্যাটফর্মের উদ্বোধন করা হয়।

বাংলাদেশ সময়: ১৫১৪ ঘণ্টা, আগস্ট ১০, ২০২২
এমএমআই/এমজেএফ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa