ঢাকা, শনিবার, ২৯ শ্রাবণ ১৪২৯, ১৩ আগস্ট ২০২২, ১৪ মহররম ১৪৪৪

রাজনীতি

দেবিদ্বারের বারকামতায় এমপি-উপজেলা চেয়ারম্যান মুখোমুখি, বিক্ষোভ-অবরোধ 

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২১২৭ ঘণ্টা, জুলাই ৩, ২০২২
দেবিদ্বারের বারকামতায় এমপি-উপজেলা চেয়ারম্যান মুখোমুখি, বিক্ষোভ-অবরোধ 

কুমিল্লা: কুমিল্লার দেবিদ্বারে আওয়ামী লীগের সম্মেলনে কমিটি ঘোষণা নিয়ে এমপিসহ জেলার নেতাদের দুই ঘণ্টা অবরুদ্ধ করা হয়। বারকামতা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন নিয়ে এই ঘটনা ঘটে।

 

শনিবার (২ জুলাই) উপজেলার নবিয়াবাদ কুমিল্লা মডেল কলেজ মাঠে এই ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন অুনষ্ঠিত হয়। দ্বিতীয় পর্বে কাউন্সিল অধিবেশনে কমিটি ঘোষণা নিয়ে রাত সাড়ে ৮টা থেকে রাত সাড়ে ১০টা পর্যন্ত উত্তেজনা বিরাজ করে। পরে কেন্দ্রীয় নেতাদের হস্তক্ষেপে পরিস্থিতি শান্ত হয়।

সূত্রমতে, কমিটি ঘোষণা না দিয়ে চলে যেতে চাইলে স্থানীয় এমপিসহ জেলা ও উপজেলা নেতাদের ২ ঘণ্টা অবরুদ্ধ করে রাখেন স্থানীয় আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা ও সম্মেলনের কাউন্সিলররা।  

এসময় আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা দেবিদ্বার-চান্দিনা সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ প্রদর্শন করেন। এতে সড়কের দু’পাশে বিপুল সংখ্যক যানবাহন আটকে যায়। সৃষ্টি হয় দীর্ঘ যানজট। অবরোধের বিষয়টি লাইভ প্রচার হতে থাকলে এলাকায় উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। বিষয়টি আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় নেতারা অবগত হলে রাত সাড়ে ১০টায় কমিটির সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের নাম ঘোষণা করা হয়। পুলিশের নিরাপত্তা প্রহরায় স্থানীয় এমপি, জেলা এবং উপজেলার নেতারা এলাকা ত্যাগ করেন।

দেবিদ্বার উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও আওয়ামী লীগ কুমিল্লা উত্তর জেলা সাংগঠনিক সম্পাদক মো. আবুল কালাম আজাদ বলেন, সম্মেলনে প্রার্থীদের মধ্যে সমঝোতা না হওয়ায় কাউন্সিলররা ভোট চেয়েছিল। তখন এমপি সাহেব, জেলা আওয়ামী লীগের সিনিয়র নেতারা ও দায়িত্বপ্রাপ্ত নেতারা বলেন, ঐক্যবদ্ধভাবে সিদ্ধান্ত নিয়ে কমিটি ঘোষণা করা হবে। অতঃপর নেতারা রুদ্ধদ্বার কক্ষে সভাপতি পদে শাহ আলম এবং সাধারণ সম্পাদক পদে রোকনুজ্জামানকে মনোনীত করেন। তারপর কমিটি ঘোষণা না দিয়ে এমপি চলে যেতে চাইলে নেতাকর্মীরা পথ অবরোধ করেন।  

পরে আওয়ামী লীগ প্রেসিডিয়াম সদস্য শেখ ফজলুল করিম সেলিম এমপি ও মাহবুব উল আলম হানিফ এমপির হস্তক্ষেপে পরিস্থিতি শান্ত হয়। তাদের নির্দেশে আওয়ামী লীগ কুমিল্লা উত্তর জেলা সাধারণ সম্পাদক রোশন আলী মাস্টারকে সভাপতি পদে এবং মো. শাহ আলমকে ও মো. রোকুনুজ্জামানকে সাধারণ সম্পাদকের নাম ঘোষণা করেন।  

জেলা আওয়ামী লীগ সহ-সভাপতি শেখ আব্দুল আউয়াল বলেন, সভাপতি পদে ৫ জন এবং সাধারণ সম্পাদক পদে ৩ জন প্রতিদ্বন্দ্বী হওয়ায় ওদের আলাদাভাবে একক প্রার্থী করতে বৈঠকে বসাই।

সমঝোতায় না আসায় আমরা কাউন্সিলরদের পছন্দ অনুযায়ী সভাপতি সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত করে ঘোষণা দেওয়ার চেষ্টা করি। এ সময় এমপি সাহেব কমিটি ঘোষণা দেওয়ার পক্ষে না থাকায় এবং ঢাকায় যেয়ে দু’দিন পর কমিটি ঘোষণার কথা বলায় এই পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়।

কুমিল্লা উত্তর জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক রোশন আলী মাস্টার বলেন, সর্বশেষ নেতাদের সিদ্ধান্ত এমপি সাহেবের মাধ্যমে ঘোষণা দিতে বললে এমপি সাহেব এখানে ঘোষণা না দিয়ে দু’দিন পর ঘোষণা দিতে বলেন। এ ঘটনায় বিক্ষুব্ধ নেতাকর্মীরা কমিটি ঘোষণার দাবিতে এমপি সাহেবের গাড়ি অবরোধ করে রাখলে আমি মীমাংসার চেষ্টা করি।  

কুমিল্লা-৪ দেবিদ্বার নির্বাচনী এলাকার সংসদ সদস্য রাজী মোহাম্মদ ফখরুলের সঙ্গে মোবাইল ফোনে বার বার চেষ্টা করলেও তিনি ফোন রিসিভ না করায় কথা বলা সম্ভব হয়নি।

বাংলাদেশ সময়: ২১২৬ ঘণ্টা, জুলাই ০৩, ২০২২
আরএ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa