ঢাকা, বুধবার, ৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯, ১৮ মে ২০২২, ১৬ শাওয়াল ১৪৪৩

রাজনীতি

শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে শপথ মুক্তিযুদ্ধের চেতনাবিরোধী: রব

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৮২৩ ঘণ্টা, জানুয়ারি ২২, ২০২২
শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে শপথ মুক্তিযুদ্ধের চেতনাবিরোধী: রব

ঢাকা: শপথবাক্য পাঠ সংক্রান্ত সরকারি নির্দেশনা স্বাধীনতা সংগ্রাম ও মুক্তিযুদ্ধের ঐতিহাসিক সত্যকে অস্বীকার, মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ও সংবিধানের সঙ্গে সাংঘর্ষিক বলে অভিযোগ করে অবিলম্বে তা প্রত্যাহারের আহ্বান জানিয়েছেন জেএসডি সভাপতি আ স ম আবদুর রব।

শনিবার (২২ জানুয়ারি) গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে তিনি এ দাবি জানান।

 

রব বলেন, বাংলাদেশ নিরবচ্ছিন্ন সংগ্রামের ফসল। স্বাধীনতা অর্জনের চূড়ান্ত লড়াইয়ে অর্থাৎ সশস্ত্র মুক্তিসংগ্রামে বঙ্গবন্ধুর অনুপস্থিতিতে ঐতিহাসিক বাস্তবতায় তাজউদ্দীন আহমদের নেতৃত্বাধীন প্রবাসী সরকার নেতৃত্ব দিয়েছে। এই ঐতিহাসিক সত্য এবং অন্যান্যদের ঐতিহাসিক অবদানকে অস্বীকার করে একরৈখিক ভুল ইতিহাস উপস্থাপন করে তরুণ শিক্ষার্থীদের বিভ্রান্তির শিকলে আবদ্ধ করা কোনোক্রমেই ন্যায়সঙ্গত নয়। সরকারের ইচ্ছামাফিক কোন ‘প্রেস নোট’ বা ‘সার্কুলারে’ বাঙালির সুদীর্ঘ সংগ্রামের ইতিহাস রচিত হতে পারে না।

আ স ম রব আরও বলেন, সশস্ত্র মুক্তিযুদ্ধে বঙ্গবন্ধুর অনুপস্থিতিতে ও বঙ্গবন্ধুর নামেই আমরা যুদ্ধ করেছি, মুজিব বাহিনী বা বিএলএফ গঠন করেছি। স্বাধীনতা ও মুক্তি সংগ্রামের দীর্ঘ লড়াইয়ে যার যা অবদান এবং আত্মত্যাগ রয়েছে, তা স্বীকার না করলে বঙ্গবন্ধুর মর্যাদা বিনষ্ট হয়, প্রশ্নবিদ্ধ হয়। সবাইকে অস্বীকারের সরকারি সংস্কৃতি কোনোক্রমেই ঐতিহাসিকতাকে ন্যায্যতা দেয় না।

তিনি বলেন, দলগতভাবে আওয়ামী লীগের যা আদর্শ তা জাতির জন্য বাধ্যতামূলক হতে পারে না এবং বিদ্যমান সংবিধানের সাথেও সাংঘর্ষিক। শপথ পাঠে দলীয় আদর্শ গ্রহণের ‘বাধ্যবাধকতা’ সৃষ্টি আধুনিক গণতান্ত্রিক রাষ্ট্রে বিরল, এমনকি রাজতন্ত্রেও নেই। শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে শপথবাক্য পাঠের অপরিপক্ক ও অনৈতিক নির্দেশনা দ্রুত প্রত্যাহার করার জন্য সরকারের প্রতি আহ্বান জানাচ্ছি।

বাংলাদেশ সময়: ১৮২১ ঘণ্টা, জানুয়ারি ২২, ২০২২
এমএইচ/এমজেএফ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa