ঢাকা, বুধবার, ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৮, ০৮ ডিসেম্বর ২০২১, ০৩ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৩

রাজনীতি

কোনো ফ্যাসিস্ট শাসক টিকে থাকতে পারেনি

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৬২০ ঘণ্টা, সেপ্টেম্বর ২৯, ২০২১
কোনো ফ্যাসিস্ট শাসক টিকে থাকতে পারেনি ছবি: শাকিল আহমেদ

ঢাকা: বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, পৃথিবীতে কোনো স্বৈরশাসক, একনায়ক, ফ্যাসিস্ট শাসক টিকে থাকতে পারেনি। জনতার উত্তাল রোষের মধ্যে তাদের পরাজয় বরণ করতে হয়েছে।

ফ্যাসিস্ট আওয়ামী সরকারও টিকে থাকতে পারবে না, তাদের খুঁজে পাওয়া যাবে না বলে মন্তব্য করেন তিনি।

বুধবার (২৯ সেপ্টেম্বর) জাতীয় প্রেসক্লাব মিলনায়তনে ঢাকা মহানগর দক্ষিণ বিএনপির আয়োজনে করোনা হেল্প সেন্টারের উদ্বোধনকালে এসব কথা বলেন মির্জা ফখরুল।

ক্ষমতাসীন সরকারকে উদ্দেশ্য করে বিএনপি মহাসচিব বলেন, আপনারা জনগণের ভোটের অধিকার কেড়ে নিয়ে সংবিধান লঙ্ঘন করেছেন। সেই অপরাধ থেকে যদি রক্ষা পেতে চান অবিলম্বে পদত্যাগ করুন। একটি নিরপেক্ষ নির্বাচন ব্যবস্থার মধ্য দিয়ে জনগণ যেন তার পছন্দের সরকার নির্বাচিত করতে পারে সেই ব্যবস্থা করুন। অন্যথায় পালাবার পথ খুঁজে পাবেন না।

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরকে উদ্দেশ্য করে বিএনপি মহাসচিব বলেন, ওবায়দুল কাদের সাহেব নেতার কথা বলেন? নেতা তো বাংলাদেশে একজনই। দেশনেত্রী খালেদা জিয়া। তিনি একমাত্র নেত্রী যিনি এই দেশে দীর্ঘ নয় বছর সংগ্রামের মধ্য দিয়ে স্বৈরাচারকে পরাজিত করে জনগণের সরকার প্রতিষ্ঠা করেছিলেন। এখনো গণতন্ত্রের জন্য লড়াই করতে গিয়ে তিনি গৃহবন্দি হয়ে আছেন। মিথ্যা মামলায় তাকে বেআইনিভাবে সাজা দেওয়া হয়েছে।

তিনি বলেন, আমাদের ইসহাক সরকারসহ সব ছাত্রনেতা, যুবনেতার ওপর নির্মম নির্যাতন চালানো হয়েছে। থানায় নিয়ে গিয়ে তাদের পায়ে গুলি করে পঙ্গু করে দেওয়া হয়েছে। আমরা ভুলে যাইনি সেইসব কথা। এখনো ঘরে ঘরে গিয়ে পুলিশ হয়রানি করছে। কারণ কী? কারণ বিএনপি জেগে উঠেছে। আমাদের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যানের তত্ত্বাবধায়নে নতুন করে বিএনপিকে সাজানো হচ্ছে, নতুন কমিটি করা হচ্ছে। এতে করে নতুন জোয়ার সৃষ্টি হয়েছে। নতুন প্রাণের সৃষ্টি হয়েছে। এজন্য তাদের মধ্যে ভয় সৃষ্টি হয়েছে। তারা ভয় পেয়েছে, তাই তারা বিএনপির ওপর আবার আক্রমণ শুরু করেছে।

মির্জা ফখরুল বলেন, আপনারা দেখেছেন, ১৯৭২-৭৫ সালে বাকশাল গঠনের মাধ্যমে যেভাবে এক ব্যক্তির পূজা হয়েছিল, আজকে আবার একইভাবে এক ব্যক্তির পূজা শুরু হয়েছে। তারা বাংলাদেশকে একটি অকার্যকর ব্যর্থ রাষ্ট্রে পরিণত করতে চলেছে। এর হাত থেকে দেশকে রক্ষা করতে হবে। আমাদের ঐক্যবদ্ধ হতে হবে। ঐক্যবদ্ধ আন্দোলনের মাধ্যমে এই ফ্যাসিস্ট সরকারের পতন ঘটাতে হবে।

করোনা হেল্প সেন্টারের আহ্বায়ক আলহাজ মোশারফ হোসেনের সভাপতিত্বে ও রফিকুল আলম মজনুর পরিচালনায় অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য দেন, বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাস, মহানগর দক্ষিণ বিএনপির আহ্বায়ক বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুস সালাম, মহানগর উত্তরের আহ্বায়ক আমান উল্লাহ আমান, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য ডা. ফরহাদ হালিম ডোনার, বিএনপির স্বাস্থ্য বিষয়ক সম্পাদক ডা. রফিকুল ইসলাম, কৃষকদলের সভাপতি হাসান জাফির তুহিন প্রমুখ।

বাংলাদেশ সময়: ১৬১৮ ঘণ্টা, সেপ্টেম্বর ২৯, ২০২১
এমএইচ/এমজেএফ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa