ঢাকা, বুধবার, ১১ কার্তিক ১৪২৮, ২৭ অক্টোবর ২০২১, ১৯ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

রাজনীতি

সংসদে জিয়াকে নিয়ে প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্যের প্রতিবাদ বিএনপির

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৯৩৬ ঘণ্টা, সেপ্টেম্বর ১৯, ২০২১
সংসদে জিয়াকে নিয়ে প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্যের প্রতিবাদ বিএনপির

ঢাকা: দলের প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমানকে নিয়ে জাতীয় সংসদে দেওয়া প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্যের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছে বিএনপি। শনিবার (১৮ সেপ্টেম্বর) বিকেলে দলের স্থায়ী কমিটির ভার্চুয়্যাল বৈঠকে এই প্রতিবাদ জানানো হয়।

রোববার (১৯সেপ্টেম্বর) বিকেলে বিএনপি চেয়ারপারসনের গুলশান কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে মির্জা ফখরুল বলেন, আওয়ামী লীগ সভানেত্রী শেখ হাসিনা সম্প্রতি, মুক্তিযুদ্ধ, ৭৫-এর পটপরিবর্তন, জিয়াউর রহমান এবং তার সমাধি সম্পর্কে যে লাগাতার মিথ্যাচার করে চলেছেন তার তীব্র প্রতিবাদ ও নিন্দা জানানো হয়েছে দলের স্থায়ী কমিটির সভায়।

তিনি বলেন, বিএনপির স্থায়ী কমিটি মনে করে, জনগণকে বিভ্রান্ত করবার লক্ষ্যে মিথ্যা তথ্য সংসদে উপস্থাপন করে তিনি মূলত: জনগণের গণতান্ত্রিক অধিকার এবং গণতন্ত্র পুনরুদ্ধারের আন্দোলনকে দৃষ্টির আড়ালে রাখার ষড়যন্ত্র করছেন। ইতিহাস বিকৃত করে জনগণকে প্রতারণা করা হচ্ছে। জিয়াউর রহমান বীর উত্তমের বিরুদ্ধে এ ধরনের বিকৃত অপপ্রচার স্বাধীনতা ও সার্বভৌমত্বের বিরুদ্ধে চক্রান্ত ছাড়া কিছু নয়। সভায় এ ধরনের নিকৃষ্ট মিথ্যাচার থেকে বিরত থাকার আহ্বান জানানো হয়।

প্রস্তাবিত ব্যক্তিগত তথ্য সুরক্ষা আইনের খসড়া সরকারি ওয়েব সাইটে প্রকাশে গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করে মির্জা ফখরুল বলেন,  বিএনপি মনে করে এ ধরনের আইন ব্যক্তিগত তথ্য সুরক্ষার কথা বলে নাগরিকের স্বাধীন মতপ্রকাশের অধিকার হরণ করার আরেকটি চক্রান্ত। এ আইন গণতন্ত্রের জন্য একটি বড় ধরনের হুমকি হয়ে দাঁড়াবে।

তিনি বলেন, সংসদে ভাড়াভিত্তিক বিদ্যুৎ কেন্দ্র চালু রাখার জন্য বিশেষ আইনের মেয়াদ আরও পাঁচ বছর বাড়িয়ে বিল পাস করা হয়েছে। আমরা এর তীব্র প্রতিবাদ ও নিন্দা জানাচ্ছি। আমরা মনেকরি ভাড়া ভিত্তিক বিদ্যুৎ কেন্দ্রগুলো স্থাপন করা হয়েছিলো শুধুমাত্র আওয়ামী শাসকগোষ্ঠীর লুণ্ঠনের স্বার্থে। এসব বিদ্যুৎ কেন্দ্র স্থাপনের সব কর্মকাণ্ডকে দায়মুক্তি দিয়ে আইন পাস করে যথেচ্ছা দুর্নীতির সুযোগ সৃষ্টি করা হয়েছে এবং বিদ্যুৎ উৎপাদন না করলেও ভাড়া প্রদানের ফলে জনগণের ট্যাক্সের টাকার বিশাল অংশ আওয়ামী দুর্নীতিবাজদের পকেটে গেছে। প্রত্যেক বছর কয়েক দফা বিদ্যুৎতের দাম বাড়িয়ে জনগণের চরম আর্থিক লোকসান করা হয়েছে। নতুন করে পাঁচ বছর এ বিশেষ আইনের মেয়াদ বাড়িয়ে লুটপাটের ব্যবস্থা আরও দীর্ঘায়িত করা হলো। তাই অবিলম্বে এ আইন বাতিলের দাবি জানাচ্ছে বিএনপি।

মির্জা ফখরুল আরও বলেন, স্থায়ী কমিটির সভায় গত ১৪, ১৫ ও ১৬ সেপ্টেম্বর অনুষ্ঠিত বিএনপির কার্যনির্বাহী কমিটির ধারাবাহিক সভায় মতবিনিময়ে অংশ নেওয়া নেতৃবৃন্দকে ধন্যবাদ জানানো এবং অবশিষ্ট সদস্যদের সঙ্গে আগামী ২১, ২২ ও ২৩ সেপ্টেম্বর  মতবিনিময় সভার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

প্রধানমন্ত্রীর সফরকে কেন্দ্র করে নিউইয়র্কে রোববার (১৯ সেপ্টেম্বর) আওয়ামী লীগ ও বিএনপি সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনার দায় সরকারি দলের ওপরে চাপিয়ে তিনি বলেন, সেখানে বিএনপি সমর্থকরা শান্তিপূর্ণ কর্মসূচি পালন করছিলেন। তাদের ওপরে আওয়ামী লীগের সমর্থকরা হামলা চালিয়েছে। আমি এ ঘটনার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি।

কয়েকদিন আগে ১১ সাংবাদিক নেতার ব্যাংক হিসাব তলবের বিষয়ে এক প্রশ্নের জবাবে মির্জা ফখরুল বলেন, আমরা এ বিষয়টিকে নিন্দা জানিয়ে একটি বিবৃতি দিয়েছি।   আমরা বলেছি মতপ্রকাশের স্বাধীনতাকে দমন করার জন্য এটা তাদের একটা হাতিয়ার।

 

বিএনপির অংগ ও সহযোগী সংগঠনগুলোর কমিটি না হওয়ার বিষয়ে এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, কমিটি হচ্ছে না- এটা সঠিক নয়। বিভিন্ন পর্যায়ের কমিটির কাজ চলছে। অনেকগুলো কমিটি হয়েছে। বাকিগুলোর কাজ চলছে। তবে কোভিডের কারণে একটু সমস্যা হয়েছে।

খালেদা জিয়ার দণ্ড স্থগিত ও বিদেশে যাওয়ায় নিষেধাজ্ঞার বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, দেশনেত্রী যখন বেশি অসুস্থ ছিলেন তখন তার পরিবারের পক্ষ থেকে বিদেশে নেওয়ার আবেদন করা হয়েছিল, কিন্তু সরকার সেটা দেয়নি। এতে আমরা আশ্চর্য হইনি। মূল বিষয় হলো সরকার দেশনেত্রী খালেদা জিয়াকে এতো বেশি ভয় পায় যে, তাকে কোনোমতে দেশের বাইরে যেতে দেওয়ার কথা ভাবতেই পারে না। সেজন্য চিকিৎসকরা যখন বলছে তার উন্নত চিকিৎসার জন্য বিদেশে যাওয়া দরকার তখন দুর্ভাগ্যজনকভাবে সরকার সেই অনুমতি দেয়নি।

খালেদা জিয়াকে বিদেশে নেওয়ার জন্য বিএনপি দলীয়ভাবে সরকারের ওপর কোনো চাপ সৃষ্টি করবে কি না জানতে চাইলে বিএনপি মহাসচিব বলেন, সেটা দলীয়ভাবে যখন সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে, তখন জানতে পারবেন।

বাংলাদেশ সময়: ১৯৩৬ ঘণ্টা, সেপ্টেম্বর ১৯, ২০২১
এমএইচ/এমএমজেড

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa