ঢাকা, শনিবার, ৩০ আশ্বিন ১৪২৮, ১৬ অক্টোবর ২০২১, ০৮ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

রাজনীতি

সামনের ৬ মাস বেশ কঠিন সময়: শামীম ওসমান

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১০৩৪ ঘণ্টা, সেপ্টেম্বর ৭, ২০২১
সামনের ৬ মাস বেশ কঠিন সময়: শামীম ওসমান ফাইল ফটো।

নারায়ণগঞ্জ: নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের সংসদ সদস্য একেএম শামীম ওসমান বলেছেন, সামনের ৬ মাস বেশ কঠিন সময়। অন্য যে কোনো সময়ের চেয়ে এ ৬ মাস ভয়াবহ হতে পারে।

আমাদের এখন একটাই টার্গেট- শেখ হাসিনাকে বাঁচিয়ে রাখতে হবে। তাকে নিরাপদ রাখতে হবে।

গত সোমবার (০৬ সেপ্টেম্বর) বিকেলে নারায়ণগঞ্জ রাইফেল ক্লাব মিলনায়তনে মহানগর আওয়ামী লীগের কর্মী সভায় নেতাকর্মীদের উদ্দেশ্যে তিনি এসব কথা বলেন।

শামীম ওসমান বলেন, আগামী অক্টোবরের শুরুতে একটি বড় সমাবেশ হবে। এর আগে ২৭টি ওয়ার্ডে আমরা কর্মী সভা করবো। আমিও সবগুলো ওয়ার্ডে যাবো। এরপরে আমরা রাস্তায় নামবো। শ্রমিক-রিকশাওয়ালা-হকারদের জানাবো আমরা তাদের সঙ্গে আছি। আমার কোনো আলিশান বাড়ির মালিককে দরকার নেই। ক্ষমতার জন্য নয়, এটা করতে হবে দেশের স্বার্থে। আমি অনেক কিছু বলতে পারছি না। কিন্তু ভেতরে যা হচ্ছে তা খুবই ভয়ঙ্কর।

তিনি বলেন, জননেত্রী শেখ হাসিনা আমাদের কাছে শুধু প্রধানমন্ত্রী নয়। তিনি আমাদের কাছে বিকল্প মা। তাই তার সঙ্গে কথা বললে অধিকার নিয়ে কথা বলি। আমরা যখন তার সঙ্গে একদিন বসেছিলাম তখন তিনি বলেছেন, ‘শামীম আমি হলাম নীলকন্ঠী। আমি বিষ খেয়েও হজম করতে পারি। ’ তার সেই কথা আমি অনুসরণ করি। নেত্রী যদি সব হজম করতে পারে তাহলে আমরা কর্মীরা কেন পারবো না? কিন্তু এত বিষ হজম করতে হবে সেটা বুঝিনি।

শামীম ওসমান বলেন, শহীদ মিনারে দাঁড়িয়ে বক্তব্য দেয় একজন, শোনে পাঁচজন। তাদের কেউ কেউ আমাকে খুনি বলছেন। কেউ অন্যকিছু বলছেন। এসব এখন আর গায়ে লাগে না। আমার বাবা-মা, ভাইয়ের কবরে শ্মশানের মাটি দেওয়া হয়েছিল। এতে আমি অনেক কষ্ট পেয়েছিলাম। আমি গাড়িতে বসে কেঁদেছিলাম। আমি আশা করেছিলাম আমাকে ফোন করে বলবেন, ভাই বিষয়টা আমি দেখছি। কিন্তু সেটাও হয়নি। ঘটনার পরদিন যখন গেলাম তখন দেখি মুক্তিযোদ্ধাদের অনেকের কবরও মাটি দিয়ে ভরাট করে ফেলা হয়েছে। আমি ওই ঘটনায় কষ্ট পেয়েছিলাম। যদি আমি আমার কষ্টের বহিঃপ্রকাশ দেখাতাম চোখ দিয়ে পানি ঝরাতাম তাহলে নারায়ণগঞ্জে শুধু মাথা দেখা যাবে মাটি দেখা যাবে না। কিন্তু আমি সেটা করিনি। করলে শয়তানদের জয় হতো।

সামনে সিটি করপোরেশন নির্বাচন ও ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন আসছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, আমাকে এখন কেউ বলবেন না আমি নির্বাচন করবো কি-না। ডিসেম্বরে সিটি করপোরেশনের নির্বাচন। এর আগে অনেক খেলা হবে। শকুন আকাশে উড়ছে। তাই আগে ষড়যন্ত্র মোকাবেলা করতে হবে। যারা প্রকৃত ত্যাগী নেতাকর্মী তারাই নির্বাচনে লড়বেন।

নারায়ণগঞ্জ মহানগর আওয়ামী লীগের সহসভাপতি চন্দন শীলের সভাপতিত্বে কর্মী সভায় বন্দর, সিদ্ধিরগঞ্জ থানাসহ নারায়ণগঞ্জ মহানগরের ২৭টি ওয়ার্ডের আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের শীর্ষ নেতারা উপস্থিত ছিলেন। এছাড়াও সিটি করপোরেশনের দলীয় কাউন্সিলররা সভায় উপস্থিত ছিলেন।

বাংলাদেশ সময়: ১০৩৪ ঘণ্টা, সেপ্টেম্বর ০৭, ২০২১
এনএসআর

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa