ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২১ শ্রাবণ ১৪২৮, ০৫ আগস্ট ২০২১, ২৫ জিলহজ ১৪৪২

রাজনীতি

‘আমি থাকতে কোনো কমিটিতে ঢুকতে পারবেন না’ 

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৬৪৩ ঘণ্টা, জুন ১৪, ২০২১
‘আমি থাকতে কোনো কমিটিতে ঢুকতে পারবেন না’  যথাক্রমে এস এম কামাল হোসেন, নুরুল ইসলাম সাজেদুল ও সাজ্জাদুল হক রেজা

সিরাজগঞ্জ: ‘আপনি কবে যোগ দিয়েছেন? ছাত্রদলের ভিপি ছিলেন। আওয়ামী লীগে এসেছেন।

আওয়ামী লীগ ভদ্রভাবে করতে হবে। আমি যদি সাংগঠনিক সম্পাদক থাকি, আপনারা কোনো কমিটিতে ঢুকতে পারবেন না। ’ 

সিরাজগঞ্জের বেলকুচি উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান নুরুল ইসলাম সাজেদুল ও তার ভাই বিদ্রোহী প্রার্থী হিসেবে নির্বাচিত পৌর মেয়র সাজ্জাদুল হক রেজাকে উদ্দেশ্য করে এভাবেই হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেন আওয়ামী লীগের রাজশাহী বিভাগীয় সাংগঠনিক সম্পাদক এস এম কামাল হোসেন।
 
রোববার (১৩ জুন) সন্ধ্যায় সিরাজগঞ্জ শহরের শহীদ এম মনসুর আলী অডিটোরিয়ামে আওয়ামী লীগ নেতা মোহাম্মদ নাসিমের প্রথম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে আয়োজিত স্মরণসভায় প্রধান বক্তার বক্তব্যে তিনি দলে বহিরাগত নেতা ও তাদের আশ্রয়দানকারীদের এ হুঁশিয়ারি দেন।  

এস এম কামালের এ বক্তব্য সিরাজগঞ্জে এরই মধ্যে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়ে গেছে। দলের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতাকর্মীরা কামালের বক্তব্যের ভিডিওটি নিজ নিজ ফেসবুক পেজে শেয়ার করছেন।  

তিনি বলেন, ‘মামলা থেকে বাঁচতে, নিজের পিঠ বাঁচানোর জন্য বিএনপিতে আছেন, যদি কোনো নেতার সঙ্গে থাকেন আগামী সম্মেলনে সেই নেতা কমিটিতে থাকতে পারবেন না। আমি যদি সাংগঠনিক সম্পাদক থাকি। আমারে যদি উইথড্রো করাইতে পারেন-তাইলে ভালো। আমি বায়োডাটা দেখে- জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি  ও সাধারণ সম্পাদক আমি পারব না। কিন্তু বাকিগুলা আমার হাত দিয়েই যাইবো। উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি সাধারণ সম্পাদক আমি করবো না। কিন্তু বাকিগুলো আমি দেখবো। এইগুলো বাদে আর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি সাধারণ সম্পাদক ত্যাগী নেতা হতে হবে। যারা বিদ্রোহী প্রার্থী, তারা সভাপতি-সাধারণ সম্পাদক হইতে পারবেন না। ’ 

বেলকুচি উপজেলা চেয়ারম্যান ও পৌর মেয়রকে উদ্দেশ্য করে তিনি বলেন, ‘আমি একটা কথা বলবো, কথাটা প্রকাশ্যে বলা উচিত নয়। বেলকুচি উপজেলা চেয়ারম্যান- উনি নাকি বলেন, আমাকে লিখিত দিতে হবে। আপনি কবে যোগ দিছেন? ছাত্রদলের ভিপি ছিলেন। আওয়ামী লীগে আসছেন। আওয়ামী লীগ ভদ্রভাবে করতে হবে। আপনি বিদ্রোহী প্রার্থী-কার লোক আমি জানি না। বিদ্রোহী প্রার্থী হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে সে ওই দলের পদ থেকে বাদ যাবে। আওয়ামী লীগ করতে পারবেন, আপত্তি নাই। কিন্তু নিয়মনীতি মেনে করতে হবে। পৌরসভার মেয়র হইছেন-যুবলীগ থেকে বাদ দিছে। আমি সাংগঠনিক সম্পাদক থাকলে কোনো কমিটিতে ঢুকতে পারবেন না। ’

তিনি হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করে বলেন, ‘যারা বিএনপি থেকে আসছেন, তারা ক্ষমতায় এসে বিএনপির লোকরে পেট্রোনাইজ করছেন। এ ধরনের খবর যদি সত্য হয়ে থাকে, তাকে যদি কোনো আওয়ামী লীগ নেতা সহযোগিতা করেন, তার অবস্থা কিন্তু খারাপ হবে। নাসিম ভাইয়ের স্মরণসভায় নাসিম ভাইয়ের আদর্শকে বুকে ধারণ করবেন-নাসিম ভাইয়ের মতো ত্যাগী নেতাদের খুঁজে বের করবেন না, তাতো হবে না। ’

কামালের বক্তব্যের বিষয়ে জেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক আব্দুস সামাদ তালুকদার বলেন, ‘দলের বিদ্রোহী প্রার্থীদের ব্যাপারে কেন্দ্র তথ্য সংগ্রহ করেছে। সেই তথ্যের ভিত্তিতে কেন্দ্রের সিদ্ধান্তের কথাই হয়তো উনি বলেছেন। এ ব্যাপারে জেলা আওয়ামী লীগের কোনো মন্তব্য নেই। ’ 

বাংলাদেশ সময়: ১৬৩৮ ঘণ্টা, জুন ১৪, ২০২১
এসআই
 

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa