bangla news

শিক্ষার্থীদের বেতন মওকুফের দাবি ছাত্রদলের

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০২০-০৫-১৭ ৪:৫৭:৫৫ পিএম
ছাত্রদলের সংবাদ সম্মেলন।

ছাত্রদলের সংবাদ সম্মেলন।

ঢাকা: করোনা ভাইরাসের বিস্তার রোধে ‘লকডাউনে’ সারা দেশে বন্ধ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীদের বেতন মওকুফ এবং অনলাইনভিত্তিক ক্লাস-ভর্তি পরীক্ষা স্থগিতের দাবি জানিয়েছে জাতীয়তাবাদী ছাত্রদল।

রোববার (১৭ মে) দুপুরে নয়াপল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে সংগঠনটির সভাপতি ফজলুর রহমান খোকন এ দাবি জানান।

তিনি বলেন, ‘প্রায় ‍দুই মাসের অধিক সময় ধরে দেশের সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ রয়েছে। এ সময় শিক্ষার্থীদের বেতন দেওয়া তাদের অভিভাকদের জন্য অত্যন্ত কষ্টকর। বিষয়টি বিবেচনায় নিয়ে তাদের প্রতি সদয় হয়ে সরকারি ও বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোর শিক্ষার্থীদের বেতন মওকুফ করে দিলে তা হবে মানবতার জন্য এক উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত। বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের কর্তৃপক্ষের কাছে আমাদের দাবি এ মুহূর্তে অনলাইনভিত্তিক ক্লাস, ভর্তি পরীক্ষা ও ক্লাস পরীক্ষা স্থগিত করতে হবে। একইসঙ্গে আমরা করোনা ভাইরাস মহামারির বর্তমান পরিস্থতিতে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোর নিজস্ব তহবিল থেকে নিজ নিজ শিক্ষক-কর্মচারীদের বেতন-ভাতা দেওয়ার দাবি জানাচ্ছি।’

ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক ইকবাল হোসেন শ্যামল লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন।

তিনি বলেন, ‘ছাত্রদল সবসময় সাধারণ শিক্ষার্থীদের যৌক্তিক দাবির পক্ষে সংগ্রাম করে আসছে। লকডাউনের কারণে স্থবির হয়ে আছে অর্থনীতি। এ সময় শিক্ষার্থীদের বেতন দেওয়া তাদের অভিভাবকদের জন্য অত্যন্ত কষ্টসাধ্য। এর মধ্যেও বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের অনলাইনে ভর্তি, ক্লাস, পরীক্ষা অব্যাহত আছে। আপনারা জানেন অনেক জায়গায় নিরবচ্ছিন্ন বিদ্যুত নেই। মোবাইল নেটওয়ার্ক ঠিকমতো থাকে না। অনেকে গ্রামের বাড়িতে চলে গেছে। এ অবস্থায় তাদের প্রাতিষ্ঠানিক পড়াশুনা চালানো অসম্ভব। আমরা মনে করি, এমতাবস্থায় অনলাইনে শিক্ষা কার্য্ক্রম অব্যাহত রাখা ব্যবসায়িক মনোভাবেরই বহিঃপ্রকাশ।’

‘তাছাড়া অনেক শিক্ষার্থী টিউশনি করে শিক্ষা ব্যয় বহন করে সেটিও করোনা ভাইরাস মহামারির কারণে সম্ভব হচ্ছে না। ইন্টারনেটের উচ্চমূল্য, দামি ডিভাইস কেনাও অনেক শিক্ষার্থীর পক্ষে অসম্ভব। এরপর অনেক স্থানে নিয়মিত বিদ্যুত সরবরাহ না থাকার কারণে অনলাইনভিত্তিক পড়াশুনা কোনোভাবেই সম্ভব নয়।’

করোনা ভাইরাস পরিস্থিতির সময় রাজশাহীর তানোরের আবদুল মালেক, মৌলভীবাজারের ফতেহপুরের শাহ আলম, গাইবান্ধার ইমতিয়াজ আহমেদ রনি, লারমনিরহাটের আদিতমারীর আমিনুল ইসলাম রিপনকে গ্রেফতার এবং ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের ওমর ফারুক, পিরোজপুর সালাউদ্দিন কুমার, আলী আহমেদ তুষার, সিলেটের জহিরুল ইসলাম আলাল, ফেনীর নিলয় হাসান রবিনের ওপরের ক্ষমতাসীন দলের হামলার নিন্দা জানান ইকবাল হোসেন শ্যামল।

তিনি বলেন, ‘ছাত্রদল মানবতার সেবায় যেসব কাজকর্ম করছে তাদের বাধা দেওয়া হচ্ছে। যেমন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন স্থানে হাত ধোয়ার জন্য বেসিন বসাতে দেয়নি প্রশাসন। পাশাপাশি আমরা যখন জনগনের জন্য এ মানবিক কাজগুলো করছি তখন আমাদের দলের নেতা-কর্মীদের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা, তাদের গ্রেফতার এবং হামলা ধারাবাহিকভাবে চালিয়ে যাচ্ছে সরকার।’

করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ প্রতিরোধে সারা দেশে মাস্ক, স্যানিটাইজার, সুবিধাবঞ্চিত মানুষের বাড়ি বাড়ি ত্রাণ সামগ্রী পৌঁছানো, নগদ সহায়তা, রাস্তা-ঘাট পরিষ্কার করা, জীবাণুনাশক স্প্রে ছিটানো, কর্মহীন ক্ষুদ্র চাষি ও দিনমজুরদের সহায়তা, ইফতার-সেহেরি বিতরণের বিভিন্ন কার্যক্রম তুলে ধরে সাধারণ সম্পাদক বলেন, ‘ছাত্রদল সারা দেশে যেসব কার্যক্রম পরিচালনা করছে সেগুলোর আপডেট নিয়মিত ফেসবুক পেইজ মানবতার সেবায় ছাত্রদল (url-www.facebook.com/socialjcd/) –এ দেওয়া হচ্ছে।’

সংবাদ সম্মেলনে ছাত্রদলের সিনিয়র যুগ্ম সম্পাদক আমিনুর রহমান আমিন, যুগ্ম সম্পাদক মিজানুর রহমান শরীফ, সাংগঠনিক সাইফ মাহমুদ জুয়েল ও ভারপ্রাপ্ত দপ্তর সম্পাদক আবদুস সাত্তার পাটোয়ারী উপস্থিত ছিলেন।

বাংলাদেশ সময়: ১৬৫৭ ঘণ্টা, মে ১৭, ২০২০
এমএইচ/এফএম

        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
cache_14 2020-05-17 16:57:55