ঢাকা, শুক্রবার, ৯ আশ্বিন ১৪২৭, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৬ সফর ১৪৪২

রাজনীতি

ভয়কে জয় করতে হবে: কাদের

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৪১৭ ঘণ্টা, মার্চ ২১, ২০২০
ভয়কে জয় করতে হবে: কাদের আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল।

ঢাকা: আতঙ্কিত না হয়ে ভয়কে জয় করে করোনা ভাইরাস পরিস্থিতি মোকাবিলার আহ্বান জানিয়েছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল।

তিনি বলেন, করোনা ভাইরাস এমন কোনো শত্রুশক্তি নয় যাকে পরাজিত করা যাবে না। আমরা করোনা ভাইরাসের চেয়ে শক্তিশালী।

জাতি হিসেবেও আমরা শক্তিশালী। কাজেই ভয়কে জয় করতে হবে। এ পরিস্থিতির মোকাবিলা করতে হবে।

শনিবার (২১ মার্চ) দুপুরে আওয়ামী লীগ সভাপতির ধানমন্ডির রাজনৈতিক কার্যালয়ে বিভিন্ন সংগঠনের মধ্যে করোনা ভাইরাসের উপকরণ বিতরণের সময় সাংবাদিকদের তিনি এসব কথা বলেন।

ওবায়দুল কাদের বলেন, আমার বলার কিছু নেই, একটা কথাই বলবো আমরা বীরের জাতি। করোনা ভাইরাস আমাদের ভয়ঙ্কর এক শত্রু। এ  শত্রুকে পরাজিত করতে হবে। আমাদের সম্মিলিত, সমন্বিত ও সতর্ক উদ্যোগের মাধ্যমে। আতঙ্কিত হয়ে সমস্যার সমাধান হবে না। গুজবে কান দিলে চলবে না। স্বাস্থ্যবিধি সতর্কভাবে মেনে চলতে হবে। এ মুহূর্তে আমাদের সবার কাজ স্বাস্থ্য বিধি সতর্কভাবে মেনে চলা। বেঁচে থাকার জন্য যা যা করা দরকার তা করা।

করোনা ভাইরাসের উপকরণ বিতরণ অনুষ্ঠানে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।  ছবি: বাংলানিউজ
তিনি বলেন, আমাদের নেত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তিনি আতঙ্কের মধ্যেও সকালে উপ-নির্বাচনে ধানমণ্ডিতে ভোট দিতে গিয়েছিলেন। আমরা আমাদের কর্মসূচি সীমিত করেছি, অনেক কর্মসূচি স্থগিত করেছি। কিন্তু জীবনের সব কিছু তো থেমে থাকবে না।

চিকিৎসক, নার্সদের নিরাপত্তা সংক্রান্ত এক প্রশ্নের উত্তরে কাদের বলেন, যখন ডেঙ্গুর প্রভাব ছিল আমাদের চিকিৎসকরা তখন প্রমাণ করেছিলো। তাদের উপস্থিতি, সেবামূলক কর্মকাণ্ড নিয়ে আমরা তখনও দেখেছি তারা তাদের দায়িত্ব যথাযথভাবে পালন করেছে। দেশের চিকিৎসকরা অনেক সাহসী। নিরাপত্তা সামগ্রী যথাযথভাবে সরবরাহ করে তারা দুসাধ্য সাধন করতে পারে, তার প্রমাণ অতীতেও তারা রেখেছেন। করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে আমাদের চিকিৎসকরা তাদের দায়িত্ব যথাযথভাবে পালন করবেন।

করোনা ভাইরাস পরিস্থিতির মধ্যে নির্বাচন অনুষ্ঠান প্রসঙ্গে জানতে চাইলে কাদের বলেন, নির্বাচন নিয়ে আমি আগেই বলেছি। নির্বাচন কমিশনে (ইসি) যারা আছেন তারাও তো মানুষ। তারা কোনো বিচ্ছিন্ন দ্বীপের বাসিন্দা না। বিষয়টি তাদের এখতিয়ার। নির্বাচন হবে কি হবে না, নির্বাচনের শিডিউল পেছাবে কি পেছাবে না, নির্বাচন কবে হবে এ বিষয়টা সরকার নির্ধারণ করে না। ইসি সস্পূর্ণ স্বাধীন।

এ সময় আরও উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য মতিয়া চৌধুরী, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাছিম, শ্রম বিষয়ক সম্পাদক হাবিবুর রহমান সিরাজ, সাংগঠনিক সম্পাদক মির্জা আজম, এস এম কামাল হোসেন, ত্রাণ ও সমাজকল্যাণ সম্পাদক সুজিত রায় নন্দি, দপ্তর সম্পাদক বিপ্লব বড়ুয়া, উপ দপ্তর সম্পাদক সায়েম খান প্রমুখ।

বাংলাদেশ সময়: ১৪০০ ঘণ্টা, মার্চ ২১, ২০২০
এসকে/আরআইএস/

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa