ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৮, ০৯ ডিসেম্বর ২০২১, ০৪ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৩

রাজনীতি

ব্যক্তিগত প্রচারের ‘সৌজন্য সংস্কৃতি’তে মেতেছেন নেতারা: কাদের

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ০৭০০ ঘণ্টা, আগস্ট ২৮, ২০১০
ব্যক্তিগত প্রচারের ‘সৌজন্য সংস্কৃতি’তে মেতেছেন নেতারা: কাদের

ঢাকা: আওয়ামী লীগসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নেতাকর্মীরা দলীয় আদর্শ ও রাজনৈতিক মূল্যবোধের পরিবর্তে ব্যক্তিগত প্রচারের ‘সৌজন্য সংস্কৃতি’তে মেতে উঠেছেন। এই নেতিবাচক সংস্কৃতি রাজনৈতিক দুর্ভিক্ষ ডেকে আনছে।

এ মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের সভাপতিমন্ডলীর সদস্য সাংসদ ওবায়দুল কাদের।

ওবায়দুল কাদের বিভিন্ন নেতার সৌজন্যে ব্যানার, তোরণ, পোস্টার ও লিফলেট প্রকাশের কঠোর সমালোচনা করে বলেন, ‘রাজনৈতিক নেতা, পাতি নেতা, আধুলি নেতা, সিকি নেতা এমনকি মন্ত্রী এমপিরা পর্যন্ত এই ‘সৌজন্যের সংস্কৃতি’ থেকে বেরিয়ে আসতে পারছেন না। ’

তিনি বলেন, ‘সর্বত্র বিভিন্ন নেতার নামে সৌজন্যের ছড়াছড়ি। যে কর্মসূচি বা যাকে উদ্দেশ্য করে ব্যানার, তোরণ, লিফলেট করা হয়, সেটা ঢাকা পড়ে যায় সৌজন্য নামের দাপটের কাছে। এর কাছে দল, প্রতিষ্ঠান বা সংগঠন গৌণ হয়ে পড়েছে। এটা এক ধরনের ‘রাজনৈতিক দুর্ভি’। ।

ওবায়দুল কাদের শনিবার ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটি মিলনায়তনে ‘নৌকার নতুন প্রজন্ম’ আয়োজিত পনের ও একুশে আগস্ট শীর্ষক আলোচনা সভায় এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, ‘এ দেশে নেতার অভাব নেই, অভাব নিবেদিতপ্রাণ রাজনৈতিক কর্মীর। এখানে সবাই নেতা, চলছে কর্মীর আকাল। ’

ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘ছাত্র সংগঠনেও নেতার অভাব নেই, ছাত্রের অভাব। একইভাবে যুব সংগঠনে যুবকের অভাব, কৃষক সংগঠনে কৃষকের, শ্রমিক সংগঠনে শ্রমিক নেতার। ’

আওয়ামী লীগের এই নেতা আরও বলেন, ‘নিজের নামে ব্যানার, তোরন, পোস্টার ও লিফলেট প্রকাশ করে ভালো নেতা হওয়া যায় না। বঙ্গবন্ধু এ ধরণের রাজনীতি করেননি। নেতা হতে হলে মাটি ও মানুষের কাছাকাছি থাকতে হবে, মানুষের জন্য ভালো কাজ করতে হবে। ’

আওয়ামী লীগ নেতাকর্মীদের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, ‘মতা মানুষকে অহঙ্কারি করে। খালি জায়গা দেখলে দখল করার ইচ্ছা, রাস্তার পাশে গাছের সারি দেখলে কেটে ফেলার ইচ্ছা জাগিয়ে তোলে  ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়ক চার লেন করার সিদ্ধান্ত কবে বাস্তবায়ন হবে ঠিক নেই, অথচ তার আগেই সেখানে সারি সারি গাছ কাটার মহোৎসব শুরু হয়েছে। ’

‘আওয়ামী লীগ মতায় আসার সুযোগে কেউ কেউ ভূঁইফোড় সংগঠন গড়ে তুলে চাঁদাবাজি করছে’- এই অভিযোগ পুনর্ব্যক্ত করে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘তবে আজ যে সংগঠনের (নৌকার নতুন প্রজন্ম) আমন্ত্রণে আমি এসেছি, নতুন সংগঠন হিসেবে খোঁজ-খবর নিয়ে দেখেছি এদের বিরুদ্ধে চাঁদাবাজির অভিযোগ নেই। এর আগে অনেক সংগঠনের আমন্ত্রণ পেলেও চাঁদাবাজির অভিযোগ থাকায় তাদের অনুষ্ঠানে যোগ দিইনি। ’  

তিনি দলের নেতাকর্মীদের সতর্ক করে দিয়ে বলেন, এসব ব্যাপারে আমাদের সতর্ক থাকতে হবে। জনগণ সবকিছু দেখছে। জনস্বার্থের বিরোধী কাজ করলে তারা নির্বাচনে ব্যালটের মাধ্যমে জবাব দিয়ে দেবে।

বাংলাদেশ সময় ১৮০৮, আগস্ট ২৮, ২০১০

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa