ঢাকা, শনিবার, ১ কার্তিক ১৪২৮, ১৬ অক্টোবর ২০২১, ০৮ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

রাজনীতি

নিরাপত্তাহীনতার কথা বলা বিরোধীদলীয় নেত্রীর রাজনৈতিক স্ট্যান্টবাজি: কামরুল

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ০৮৪১ ঘণ্টা, জুলাই ২৯, ২০১০
নিরাপত্তাহীনতার কথা বলা বিরোধীদলীয় নেত্রীর রাজনৈতিক স্ট্যান্টবাজি: কামরুল

ঢাকা : বিরোধীদলীয় নেত্রী রাজনৈতিক স্ট্যান্টবাজির কারণে নিজের নিরাপত্তাহীনতার কথা বলছেন বলে মন্তব্য করেছেন আইন প্রতিমন্ত্রী অ্যাডভোকেট কামরুল ইসলাম।

তিনি বলেন, ‘বিরোধীদলীয় নেত্রী নিজের নিরাপত্তাহীনতার কথা বলে রাজনৈতিক স্ট্যান্টবাজি করছেন।

আইন অনুযায়ী যতটুকু নিরাপত্তা দেওয়া কথা, তার পুরোটাই সরকার তাকে দিয়েছে। ’

শনিবার ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটি মিলনায়তনে সমসাময়িক বিষয় নিয়ে ‘মিট দ্য প্রেস’ অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন। অনুষ্ঠানের আয়োজক ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটি।

কামরুল বলেন, ‘আন্তর্জাতিক যুদ্ধাপরাধ টাইব্যুনালের তদন্তে প্রথম দিকে ধীরগতি থাকলেও সময়ের সঙ্গে সঙ্গে তদন্তকারী সংস্থার সদস্যরা কাজে গতি এনেছেন। তদন্তকারী সংস্থার সদস্যরা মূলত ফৌজদারি কার্যবিধি অনুসারে (সিআরপিসি) তদন্ত করতে অভিজ্ঞ। কিন্তু বর্তমানে তারা আন্তর্জাতিক যুদ্ধাপরাধ আইন অনুসারে তদন্ত করছেন। এ কারণেই কাজে কিছুটা ধীরগতি দেখা যাচ্ছে। ’

সাংবাদিকদের তিনি আরও বলেন, ‘এই ট্রাইব্যুনালের ব্যাপারে যুক্তরাষ্ট্র তাদের সহযোগিতার কথা প্রথম থেকেই বলে আসছে। যারা এই বিচার প্রক্রিয়াকে বাধাগ্রস্ত করতে চান, তারা বিদেশের বিভিন্ন আইনজীবীকে তাদের পক্ষে কথা বলানোর চেষ্টা করছেন। ’

এই বিচার প্রক্রিয়ায় বিচারপতি ও আইনজীবী নিয়োগের ক্ষেত্রে বিএনপির অভিযোগ ছিল, একই ঘরানার লোক নিয়োগ দেওয়া হচ্ছে। সাংবাদিকদের এ প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘যারা মুক্তিযুদ্ধের আদর্শ ও চেতনায় বিশ্বাস করে না, তাদের এই বিচার প্রক্রিয়ার সঙ্গে যুক্ত করার দাবি বালখিল্যতা ছাড়া আর কিছুই নয়। ’

এই বিচার প্রক্রিয়ায় কোনো বিদেশি প্রসিকিউটর নিয়োগ দেবে না উল্লেখ করে আইন প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘আমরা যথাসম্ভব স্বচ্ছ এবং ফাঁক ফোকড়বিহীন বিচার প্রক্রিয়া সম্পন্ন করতে চাই। এই আইনের আওতায় অভিযুক্তদের আপিল করা বা জামিন পাওয়ারও অধিকার রয়েছে। ’

গোলাম আযমের গ্রেপ্তার প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘ওয়েট অ্যান্ড সি। ’

প্রধান বিচারপতি নিয়োগে জ্যেষ্ঠতা লঙ্ঘনের যে অভিযোগ উেেঠছে, সে প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘এটা মহামান্য রাষ্ট্রপতির ব্যাপার। তিনি কাকে নিয়োগ দেবেন সেটা তার এখতিয়ার। ’

সংবিধান সংশোধনের ক্ষেত্রে দুই প্রধান রাজনৈতিক দলের ঐকমত্যের ব্যাপারে তিনি বলেন, ‘সংবিধান সংশোধনে গঠিত বিশেষ কমিটি বিএনপির জন্য কতদিন অপেক্ষা করবে এটা তাদের ব্যপার। তবে আমরা মনে করি যত তাড়াতাড়ি সম্ভব এটা বিল আকারে সংসদে উপস্থাপন করা হবে। ’

ড. ইউনূসের ব্যাপারে ব্যারিস্টার রোকনউদ্দীনের মন্তব্য নিয়ে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘আমাদের দেশে একটা নতুন রেওয়াজ চালু হতে যাচ্ছে, আদালতের রায় কারো বিপক্ষে গেলেই তারা মনে করেন সরকার আদালত নিয়ন্ত্রণ করছে। তারা বলতে চান, এটা আইনের শাসন নয়, ক্ষমতার শাসন। ’

কাদের সিদ্দিকী শুক্রবার আওয়ামী লীগকে প্রতারক বলেছেন, এ প্রসঙ্গে সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তরে প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘আওয়মী লীগ যখন নির্বাচনী ইস্তেহার ঘোষণা করে, তখন পঞ্চম সংশোধনী সম্পর্কে সুপ্রিম কোর্ট কোন ধরণের রায় দেবে তা ধারণার মধ্যে ছিল না। এমনকি কাদের সিদ্দিকীও জানতেন না। ’

যুদ্ধপরাদীদের বিচারের ব্যাপারে তিনি প্রধানমন্ত্রীর সুরে সুর মিলিয়ে বলেন, ‘এটা ধারাবাহিক প্রক্রিয়া। দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধে যুদ্ধাপরাধের বিচার এখনও চলছে। সরকারের পক্ষ থেকে যুদ্ধাপরাধীদের কোনো তালিকা ট্রাইব্যুনালের হাতে দেওয়া হয়নি। তবে পুরো জাতির মতো আমিও প্রত্যাশা করি চিহ্নিত যুদ্ধাপরাধীদের বিচার এই সরকারের মেয়াদকালেই সম্পন্ন হবে। ’

র‌্যাবের গুলিতে আহত লিমনের ব্যাপারে তিনি বলেন, ‘এটা স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের ব্যাপার। ’

অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন ডিআরইউ সভাপতি মোস্তাক হোসেন। সঞ্চালনায় ছিলেন সাধারণ সম্পাদক জামাল উদ্দীন।

বাংলাদেশ সময় : ১২৩৬ ঘণ্টা, মে ০৭, ২০১১

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa