ঢাকা, শনিবার, ৪ ভাদ্র ১৪২৯, ২০ আগস্ট ২০২২, ২১ মহররম ১৪৪৪

রাজনীতি

দ্রব্যমূল্য বৃদ্ধি বিএনপি-জামায়াতকে অপতৎপরতার সুযোগ করে দিচ্ছে : ওয়ার্কার্স পার্টি

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৪০৮ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ৯, ২০১১

ঢাকা: দ্রব্যমূল্য বৃদ্ধি বিএনপি-জামায়াতকে অপতৎপরতা চালানোর সুযোগ করে দিচ্ছে বলে উল্লেখ করেছে বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টি।

বুধবার দুপুরে পার্টির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি রাশেদ খান মেনন এ মন্তব্য করেন।



দ্রব্যমূল্য বৃদ্ধিতে দলের অবস্থান ব্যাখ্যার জন্য বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টি এই সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন  করে।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন দলের সাধারণ সম্পাদক আনিসুর রহমান মল্লিক।

 বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর দেন পার্টির সভাপতি রাশেদ খান মেনন।

দ্রব্যমূল্য ঊর্ধ্বগতিতে বিরোধী দলের কারসাজি আছে কি না - এমন এক প্রশ্নের জবাবে রাশেদ খান  মেনন বলেন, ‘খাদ্য শুধু অর্থনৈতিক বিষয় নয়, এটি একটি রাজনৈতিক বিষয়ও বটে। কারণ, খাদ্যমূল খুবই জনগুরুত্বপূর্ণ ও স্পর্শকাতর একটি বিষয়। ’

তিনি বলেন, ‘চাতাল মালিকদের অধিকাংশই জামায়াত-বিএনপি ঘরনার। সরকারকে চাপে ফেলতে তারা যে খাদ্য মজুদ করে কৃত্রিম সংকট সৃষ্টি করছে না তার কী গ্যারান্টি আছে?’

তবে তিনি দ্রব্যমূল্য নিয়ন্ত্রণে সবাইকে নিয়ে আলোচনায় বসে রেশনিং পদ্ধতি চালু করার কথাও বলেন।

লিখিত বক্তব্যে আনিসুর রহমান মল্লিক বলেন, ‘খাদ্যমূল্য প্রশ্ন কেবল অর্থনীতির ব্যাপার নয়, রাজনৈতিক ব্যাপার। খাদ্যসংকট সম্প্রতি সময়ে পৃথিবীর নানা দেশে গণবিষ্ফোরণ ও রাজনৈতিক পরিবর্তনের কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে। বাংলাদেশেও খাদ্য রাজনীতির অভিজ্ঞতা সুখকর নয়। বর্তমানেও  খাদ্যসহ দ্রব্যমূল্য বৃদ্ধি বিএনপি-জামায়াতকে অপতৎপরতা চালানো সুযোগ সুষ্টি করে দিচ্ছে। ’

খাদ্যসংকট মোকাবেলায় সারাদেশের শহর, গ্রাম ও শ্রমিক অঞ্চলে পূর্ণ রেশনিং পদ্ধতি চালু, দ্রব্যমূল্য নিয়ন্ত্রণে রাখতে মূল্য নিয়ন্ত্রণ কর্র্তৃপক্ষ প্রতিষ্ঠা, মূল্যনিয়ন্ত্রণে আইনগত ও প্রাতিষ্ঠানিক পদক্ষেপ, পাইকারী ও খুচরা বাজারে রাষ্ট্রের প্রভাব ও ক্ষমতা সৃষ্টি, খাদ্য উৎপাদন ও চাহিদা সংক্রান্ত সঠিক তথ্য এবং উৎপাদক ও ক্রেতার মধ্যে মধ্যস্বত্বভোগী ব্যবস্থার অবসানসহ পার্টির পক্ষ থেকে ১৬ দফা প্রস্তাব উত্থাপন করেন আনিসুর রহমান মল্লিক।

প্রস্তাবগুলো দ্রুত বাস্তবায়নে জনগণকে এর সঙ্গে সম্পৃক্ত করতে দলের পক্ষ থেকে ফেব্রুয়ারি ও মার্চ মাসব্যাপী সরকারের কাছে স্মারকলিপি পেশ, গোলটেবিল  বৈঠক, সমাবেশ ও কনভেনশন অনুষ্ঠানের ঘোষণা দেওয়া হয় সংবাদ সম্মেলন থেকে।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন ওয়ার্কার্স পার্টির পলিট ব্যুরোর সদস্য বিমল বিশ্বাস, ফজলে হোসেন বাদশা এমপি, কামরুল হাসান, নুরুল হাসান প্রমুখ।

বাংলাদেশ সময়: ১৪০৮ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ৯, ২০১১

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa