ঢাকা, শনিবার, ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৯, ০৩ ডিসেম্বর ২০২২, ০৮ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৪

জাতীয়

‘পরিচর্যা পেলে খেলোয়াড়রা আন্তর্জাতিকভাবে দেশকে তুলে ধরবে’

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২২৪৫ ঘণ্টা, অক্টোবর ১, ২০২২
‘পরিচর্যা পেলে খেলোয়াড়রা আন্তর্জাতিকভাবে দেশকে তুলে ধরবে’

ঢাকা: ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের (ডিএনসিসি) মেয়র আতিকুল ইসলাম বলেছেন, আন্তবিশ্ববিদ্যালয় ক্রীড়া প্রতিযোগিতার মাধ্যমে দেশের অনেক সম্ভাবনাময় খেলোয়াড়রা তাদের প্রতিভাগুলো তুলে ধরার সুযোগ পেয়েছে। সঠিক পরিচর্যা পেলে জাতীয় পর্যায়ের গণ্ডি পেরিয়ে আন্তর্জাতিক পর্যায়ে আমাদের খেলোয়াড়রা দেশকে তুলে ধরবে।

সে বিষয়ে বর্তমানে ব্যাপক গুরুত্ব দেওয়া হয়েছে।

শনিবার (১ অক্টোবর) সন্ধ্যায় রাজধানীর ইস্ট-ওয়েস্ট বিশ্ববিদ্যালয়ে অনুষ্ঠিত বঙ্গবন্ধু আন্তবিশ্ববিদ্যালয় স্পোর্টস চ্যাম্পিয়নশিপের তৃতীয় আসরের ব্যাডমিন্টন ফাইনাল ও পদক দেওয়া অনুষ্ঠান অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিবি এসব কথা বলেন।

এর আগে বঙ্গবন্ধু আন্তবিশ্ববিদ্যালয় স্পোর্টস চ্যাম্পিয়নশিপের ব্যাডমিন্টন ইভেন্টের নারী একক ও দ্বৈতে দুই বিভাগেই চ্যাম্পিয়ন হয়েছেন যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের খেলোয়াড়রা। অপরদিকে পুরুষ একক, দ্বৈত ও মিশ্র দ্বৈত তিন বিভাগেই চ্যাম্পিয়ন হন ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির খেলোয়াড়রা।

ফাইনাল খেলা শেষে বিজয়ীদের মধ্যে পুরস্কার বিতরণ করেন ডিএনসিসি মেয়র।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে মেয়র আতিক বলেন, যুব ও তরুণ সমাজ খেলাধুলায় যখন নিজেদের নিয়োজিত রাখে তখন নিজের ভেতর একটা আত্মতৃপ্তি কাজ করে। ভালো লাগে। যেমন ভালো লাগছে আজকের এ আয়োজনে উপস্থিত হতে পেরে। বিনোদন ও খেলাধুলার জায়গা যেখানে দিনকেদিন দখল-দূষণের মুখে পড়ছে সেখানে এমন একটি জমজমাট আয়োজন একটি ভিন্নবার্তা দেবে।

তিনি আরও বলেন, মিরপুরের ১১ নম্বর সেক্টরের একটি ফাঁকা জায়গা প্লট আকারে বরাদ্দ দেওয়া হয়ে গেছে অথচ সেখানে এতো এতো শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান, স্কুল-কলেজ-মাদ্রাসা-বাসাবাড়ি, সেখানের শিশুদের কোনো খেলার জায়গা নেই। তারা আন্দোলন করছিল মাঠের দাবিতে। সেখানে উপস্থিত হয়ে তাদের অনশন ভাঙিয়েছি। যে প্রধানমন্ত্রী খেলাধুলা এতো ভালোবাসে তার কাছে আকুল আবেদন জানিয়েছি এ জায়গাটি সিটি করপোরেশনকে হস্তান্তরের জন্য। আমরা সুন্দর মাঠ করে দেব।

মাঠের গুরুত্ব তুলে ধরে মেয়র আতিক বলেন, আজকে মেয়েরা খেলাধুলায় বাংলাদেশকে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছে। তারা বিশ্বের বুকে বাংলাদেশকে উজ্জ্বল করে তুলছে। যেসব মেয়েরা ফুটবল সাফ চ্যাম্পিয়ন হয়েছে তাদের অনেকে বাড়ি দেশের প্রত্যন্ত অঞ্চলে। তারা উন্মুক্ত জায়গায় প্র্যাকটিস করতে পেরেছিল বলে টিম তৈরি সম্ভব হয়েছে। শহরেও যদি খেলাধুলার এ রকম জায়গা পাওয়া যেত এখান থেকেও অনেক মান সম্পন্ন প্লেয়ার তৈরি হতে পারতো। জায়গার অভাবে হচ্ছে না। প্রত্যন্ত গ্রাম থেকেও আমরা পেছনে পড়ে যাচ্ছি।

আমাদের প্রতিটি ওয়ার্ডে ওয়ার্ডে খেলাধুলার জন্য মাঠ প্রস্তুত করতে হবে। খেলাধুলার সুষ্ঠু-স্বাভাবিক পরিবেশ নিশ্চিত করতে হবে বলে উল্লেখ্য করেন তিনি।

যুব ও ক্রীড়া সচিব এবং বঙ্গবন্ধু আন্তবিশ্ববিদ্যালয় স্পোর্টস চ্যাম্পিয়নশিপের সাংগঠনিক কমিটির সদস্য সচিব মেজবাহ উদ্দিনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন ইস্ট-ওয়েস্ট বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য ড. এম এম শহীদুল ইসলাম।

বাংলাদেশ সময়: ২২৪৪ ঘণ্টা, অক্টোবর ০১, ২০২২
এমকে/আরবি

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa