ঢাকা, শনিবার, ১৫ আশ্বিন ১৪২৯, ০১ অক্টোবর ২০২২, ০৪ রবিউল আউয়াল ১৪৪৪

জাতীয়

সহকারী শিক্ষকের বিরুদ্ধে ছাত্রীকে শ্লীলতাহানির অভিযোগ

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট   | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২১৪৮ ঘণ্টা, আগস্ট ১৭, ২০২২
সহকারী শিক্ষকের বিরুদ্ধে ছাত্রীকে শ্লীলতাহানির অভিযোগ প্রতীকী ছবি

শরীয়তপুর: শরীয়তপুরের ডামুড্যা পাইলট বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক শ্রী রথি কান্ত মিস্ত্রির নামে সপ্তম শ্রেণির এক শিক্ষার্থীকে শ্লীলতাহানি করেছেন বলে অভিযোগ উঠেছে।  

এ ঘটনায় ওই শিক্ষককে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে।

এছাড়া ওই শিক্ষকের বিষয় জানাতে চাওয়ায় প্রধান শিক্ষক সুজিত কর্মকার দুই সাংবাদিককে ‘অশ্রাব্য ভাষায় গালিগালাজ, মারধর ও বাড়ি গিয়ে ধরে আনার হুমকি’ দিয়েছেন মোবাইলফোনে এমন কথোপকথনের অডিও একটি ক্লিপ ভাইরাল হয়েছে।

বুধবার (১৭ আগস্ট) প্রধান শিক্ষক সুজিত কর্মকার এসবের সতত্যা নিশ্চিত করেছেন।

ভুক্তভোগী ওই শিক্ষার্থীর দেওয়া ৫ মিনিট ৩৪ সেকেন্ডের অডিও ক্লিপ ও ওই দুই সাংবাদিক সূত্রে জানা গেছে, অভিযুক্ত সহকারী শিক্ষক রথি কান্ত মিস্ত্রি ওই বিদ্যালয়ের কৃষি শিক্ষা ও স্কাউট বিষয়ক সহকারী শিক্ষক। সেই সুবাদে তিনি স্কাউটিং প্রশিক্ষণ দিয়ে থাকেন। তারই ধারাবাহিকতায় গত বৃহস্পতিবার (১১ আগস্ট) স্কাউটদের সাপ্তাহিক মিটিং ছিল। কোনো কারণ ছাড়াই রথি কান্ত সেই মিটিং বাতিল করে দেন। পরে গুরুত্বপূর্ণ কথা আছে বলে ওই শিক্ষার্থীকে তিনি বিদ্যালয়ের তৃতীয় তলার একটি কক্ষে ডেকে নিয়ে যান। সেখানে ওই শিক্ষার্থীর স্পর্শকাতর স্থানে হাত দেন রথি কান্ত। বিষয়টি শিক্ষার্থীরা বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক সুজিত কর্মকারের কাছে জানালে, প্রধান শিক্ষক বিষয়টিকে ধামাচাপা দেওয়ার চেষ্টা করেন। এ ব্যাপারে সহকারী শিক্ষক রথি কান্তের বক্তব্য জানতে দৈনিক যায় যায় দিনের স্থানীয় সাংবাদিক শাহাদাত হোসেন হিরু ও আলোকিত সকালের স্টাফ রিপোর্টার আশিকুর রহমান হৃদয় ওই বিদ্যালয়ে যান। পরে তার মোবাইলফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি ফোন রিসিভ করেননি। এ ঘটনা জানাজানি হলে অভিযুক্ত শিক্ষক সাময়িক বরখাস্ত করে কর্তৃপক্ষ। এ বিষয়ে ডামুড্যা পাইলট বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক সুজিত কর্মকারের কাছে জানতে চাইলে ওই সাংবাদিকেদের সঙ্গে অসৌজন্যমূলক আচরণ করেন ও তাকে দেখে নেওয়াসহ প্রাণনাশের হুমকি দেন। পরে আবারও আলোকিত সকালের স্টাফ রিপোর্টার আশিকুর রহমান হৃদয়ের মোবাইলফোনে কল করে প্রধান শিক্ষক সুজিত কর্মকার দুই সাংবাদিককে অশ্রাব্য ভাষায় গালিগালাজ, মারধর ও বাড়ি গিয়ে ধরে আনার হুমকি দেন। এমন একটি মোবাইলে কথপোথনের অডিও ক্লিপ। ইতোমধ্যে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ভাইরাল হয়েছে। দুই সাংবাদিককে হুমকির বিষয়ে মামলার প্রস্তুতি চলছে বলে জানিয়েছেন সাংবাদিক শাহাদাত হোসেন হিরু ও আশিকুর রহমান হৃদয়।

এ ব্যাপারে প্রধান শিক্ষক সুজিত কর্মকার বাংলানিউজকে বলেন, অভিযুক্ত ওই শিক্ষককে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে। এর পরেও বিষয়টি নিয়ে দুই সাংবাদিক বিরক্ত করায় তাদের গালিগালাজ করেছি।

জেলা শিক্ষা কর্মকর্তা শ্রী শ্যামল চন্দ্র শর্মা বাংলানিউজকে বলেন, আমি ব্যাপারটি গতকাল মঙ্গলবার (১৬ আগস্ট) শুনেছি। শিক্ষক সাহেব যে কাজটি করেছেন, তা অন্যায় করেছেন। সরেজমিনে বিষয়টি তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেব।  

ডামুড্যা ইউএনও হাছিবা খান বলেন, সাংবাদিকদের মাধ্যমে ব্যাপারটি জেনেছি, তদন্ত সাপেক্ষে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

বাংলাদেশ সময়: ২১৪০ ঘণ্টা, আগস্ট ১৭, ২০২২
এসআরএস

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa