ঢাকা, বুধবার, ২২ আষাঢ় ১৪২৯, ০৬ জুলাই ২০২২, ০৬ জিলহজ ১৪৪৩

জাতীয়

বরিশালকে এখন প্রাচ্যের ভেনিস বলতেই লজ্জা লাগে: প্রতিমন্ত্রী খালিদ

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৭৩৯ ঘণ্টা, মে ২৩, ২০২২
বরিশালকে এখন প্রাচ্যের ভেনিস বলতেই লজ্জা লাগে: প্রতিমন্ত্রী খালিদ

বরিশাল: প্রাচ্যের ভেনিস বরিশাল, এ কথাটি বলতে এখন লজ্জা পান বলে মন্তব্য করেছেন নৌ-পরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী।

সোমবার (২৩ মে) বরিশালের কীর্তনখোলা নদীরে তীরে বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌ-পরিবহন কর্তৃপক্ষের (বিআইডব্লিউটিএ) ড্রেজার বেজ উদ্বোধন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ মন্তব্য করেন।

খালিদ বলেন, প্রাচ্যের ভেনিস বরিশাল। বরিশালবাসীর কথাতেই উঠে এসেছে শহরটি একটা সময় নদী আর খালে ঘেরা ছিল। সেই খালগুলোয় এখন জলাবদ্ধতা সৃষ্টি হয়। কিছু খাল দখল হয়ে গেছে, কিছু আবার দুষণে ভরে গেছে। এখন প্রাচ্যের ভেনিস কথাটি বলতেই লজ্জা লাগে। তার মানে ৫০ বছরের বাংলাদেশ এ জায়গাতেই চলে এলো।

এ সময় তিনি উল্লেখ করেন, ১৯৭২ সালে জাতির পিতা শেখ মুজিবুর রহমান বলেছিলেন, আমাদের নদী-নালাগুলোয় নাব্য কমে গেছে। এসব নদী-নালায় নাব্য ফিরিয়ে আনতে হবে। তিনি ৫০ বছর আগে যে কথাগুলো বলেছিলেন, আমরা আজ তা নিয়ে চর্চা করছি।

প্রতিমন্ত্রী আরও বলেন, আজ বিআইডব্লিউটিএ’র যে ড্রেজার বেজ উদ্বোধন করলাম সেটা ছিল বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন। তিনি বলেছিলেন নদীর নাব্য ফিরিয়ে আনতে হবে। এ ড্রেজারের মাধ্যমে নাব্য ফিরিয়ে আনতে হবে।

খালিদ জানান, নদীর নাব্য ফেরাতে বঙ্গবন্ধু সাড়ে তিন বছরে ৭টি ড্রেজার সংগ্রহ করেছিলেন। গত ১৩ বছরে বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনা সে বহরে ৪০টির বেশি ড্রেজার যুক্ত করেছেন। আরও ৩৫টি ড্রেজার সংগ্রহ করা হবে। আগামী দুই বছরে ৭৫ থেকে ৮০টি ড্রেজার বিআইডব্লিউটিএ’র বহরে যুক্ত হতে যাচ্ছে।

তিনি আরও জানান, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আরও দুটি উদ্ধারকারী জলযান বহরে যুক্ত করেছেন। ৪০ বছরে যা হয়নি এই ১৩ বছরে তা হয়েছে।

আগে কেন এসব উন্নয়ন হয়নি, তার ব্যাখ্যা করেন প্রতিমন্ত্রী। তিনি বলেন, ১৯৭৫ সালে যে হত্যাকাণ্ড ঘটেছে তা শুধু ব্যক্তি বা পারিবারিক হত্যাকাণ্ড ছিল না। এটি বাংলাদেশকে হত্যার ষড়যন্ত্র ছিল। ৭৫ পরবর্তী কোনো সরকার নদীমাতৃক বাংলাদেশকে ধরে রাখার চেষ্টা করেননি। যা করেছেন তা সবই লোক দেখানো।

খালিদ মাহমুদ চৌধুরী আরও বলেন, দক্ষিণাঞ্চলের নদীর প্রবাহ, নদী পথগুলো ঠিক রাখার জন্য বরিশালের বেজে ২০-২৫টি ড্রেজার থাকবে। দেশের ১১টি জায়গায় আমরা ড্রেজার বেজ করছি। এসব জায়গায় ড্রেজার সংরক্ষণে থাকবে ও ড্রেজিং ব্যবস্থাপনা মনিটরিং করা হবে। এভাবে নদীমাতৃক বাংলাদেশকে ধরে রাখতে চাই।

প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা অনুযায়ী ১০ হাজার কিলোমিটার নৌপথ তৈরিতে ড্রেজার বেজগুলো সহায়ক ভূমিকা রাখবে। ডুবোচরসহ যেকোনোভাবে নাব্য সংকট নিরসনে ড্রেজারগুলো তাৎক্ষণিক কাজ করতে পারবে বলেও উল্লেখ করেন তিনি।

বিআইডব্লিউটিএ’র চেয়ারম্যান কমডোর গোলাম সাদেকের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানটি পরিচালিত হয়। এতে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বরিশাল সিটি করপোরেশনের মেয়র সেরনিয়াবাত সাদিক আব্দুল্লাহ, বিভাগীয় কমিশনার মো. আমিন উল আহসান, জেলা প্রশাসক মো. জসীম উদ্দীন হায়দার, পুলিশ সুপার মারুফ হোসেন প্রমুখ।

বাংলাদেশ সময়: ১৭৩৮ ঘণ্টা, ২৩ মে, ২০২২
এমএস/এমজে

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa