ঢাকা, শুক্রবার, ১৪ মাঘ ১৪২৮, ২৮ জানুয়ারি ২০২২, ২৪ জমাদিউস সানি ১৪৪৩

জাতীয়

নিরাপদ পানির গ্যারান্টি দিতে পারবো না: ওয়াসার এমডি

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট  | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৪১১ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ৫, ২০২১
নিরাপদ পানির গ্যারান্টি দিতে পারবো না: ওয়াসার এমডি

শতভাগ নিরাপদ পানির গ্যারান্টি দিতে পারবেন না ওয়াসার এমডি তাকসিম এ খান। শনিবার দুপুরে রাজধানীর কারওয়ান বাজারের ওয়াসা ভবনের বুড়িগঙ্গা হলে তিনি এমন কথাই বলেছেন।

তিনি বলেন, ঢাকা ওয়াসার সরবরাহ করা ৯০ থেকে ৯৫ শতাংশ পানিই না ফুটিয়ে পান করা যাবে। তবে ফুটিয়ে বা সরাসরি পান করা না করা গ্রাহকের ইচ্ছে উল্লেখ করে তিনি বলেছেন, পানি ফুটিয়ে খাওয়া গ্রাহকের ইচ্ছে। তারা শতভাগ গ্যারান্টি দিতে পারবেন না।

শনিবার দুপুরে রাজধানীর কারওয়ান বাজারের ওয়াসা ভবনের বুড়িগঙ্গা হলে গণমাধ্যমকর্মীদের সঙ্গে এক মতবিনিময় সভায় এসব কথা বলেন তাকসিম। এ সময় ঢাকা ওয়াসার পরিচালক (উন্নয়ন) আবুল কাশেম, ব্যবস্থাপক (বাণিজ্যিক) উত্তম কুমার, সংস্থার সচিব প্রকৌশলী শারমিন হক প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

ঢাকা ওয়াসার এমডি বলেন, সমস্যা হচ্ছে পাইপ লাইনে। পাইপ লাইনে যদি না ভাঙা থাকে তাহলে পানি ফোটানোর প্রয়োজন হয় না। এ ছাড়া সমস্যা আপনাদের পানি রিজার্ভের স্থানে। পানি রিজার্ভ করে রাখা স্থান পরিষ্কার রাখলে ৯০ থেকে ৯৫ শতাংশ পানি না ফুটিয়ে পান করা যাবে। আমি জানি না কোন এলাকা বা স্থান এবং সময়ে ১০ শতাংশ খারাপ পানির অবস্থায় রয়েছে। সে ক্ষেত্রে আমাদের পরামর্শ, পানি ফুটিয়ে খান।

তিনি বলেন, পানি যেখানে রিজার্ভ করা হয় সেই রিজার্ভের স্থানগুলো থেকেও পানিতে জীবাণু ছড়ায়। ট্যাংকগুলো তিন মাস পরপর পরিষ্কার করতে হবে।

ওয়াসার এমডি বলেন, ৫ থেকে ১০ শতাংশ আপনারা পান করার জন্য ফুটিয়ে ব্যবহার করেন। বাকি পানি ফুটিয়ে ছাড়া এমনিতেই ব্যবহার করছেন। ওয়াসা যদি শতভাগ পানি ফুটিয়ে দেয়, তাহলে পানির দাম ৯ গুণ বাড়বে।

তিনি বলেন, কভিডের সময় যখন সব দিকে লকডাউন ছিল, তখনো কিন্তু একদিনের জন্যও ওয়াসার পানি সরবরাহ বন্ধ ছিল না। ঢাকা শহরে পানি সরবরাহের নেটওয়ার্ক পদ্ধতি নতুন করে সাজাচ্ছে ওয়াসা। ডিস্ট্রিক্ট মিটার এরিয়া বা ডিএমএ নামে একটি নেটওয়ার্ক পদ্ধতি শুরু করেছে ওয়াসা। সে কাজের অর্ধেক এরই মধ্যে শেষ হয়েছে।

তাকসিম এ খান বলেন, বার্ষিক কর্মসম্পাদন চুক্তি (২০২০-২১ অর্থবছর) ঢাকা ওয়াসা সরকারি কর্মসম্পাদন ব্যবস্থাপনা পদ্ধতি স্থানীয় সরকার বিভাগের ২০টি দপ্তর, সংস্থা, সিটি করপোরেশনের মধ্যে প্রথম স্থান লাভ করেছে। ২০২০-২১ অর্থবছরে বার্ষিক কর্মসম্পাদন চুক্তির প্রতিবেদন ও প্রমাণসমূহ মূল্যায়নে ১০০ নম্বরের বিপরীতে ঢাকা ওয়াসা ৯৮ দশমিক ২৭ নম্বর পেয়ে প্রথম হয়েছে। ওয়াসার সেবা কাজের স্বচ্ছতা ও জবাবদিহি নিশ্চিত করতে সহায়ক হচ্ছে। এ নগরীর একটি মানুষও যেন পানি সেবার বাইরে না থাকে, এ আমাদের অঙ্গীকার।

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa