ঢাকা, সোমবার, ২২ অগ্রহায়ণ ১৪২৮, ০৬ ডিসেম্বর ২০২১, ০১ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৩

জাতীয়

বকেয়া বেতনের দাবিতে শ্রমিকদের বিক্ষোভ

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০৫৮ ঘণ্টা, অক্টোবর ২৭, ২০২১
বকেয়া বেতনের দাবিতে শ্রমিকদের বিক্ষোভ

গাজীপুর: গাজীপুর সিটি করপোরেশনের সালনা এলাকায় বকেয়া বেতনের দাবিতে একটি পোশাক কারখানার শ্রমিকরা বিক্ষোভ করেছেন।

বুধবার (২৭ অক্টোবর) দুপুর থেকে শ্রমিকরা বিক্ষোভ শুরু করেন।

বিক্ষোভের এক পর্যায়ে শ্রমিকরা ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়ক অবরোধ করেন।  শ্রমিক, এলাকাবাসী ও পুলিশ জানায়, গাজীপুর সিটি করপোরেশনের সালনা এলাকায় শ্যামলী গার্মেন্টস লিমিটেডের পোশাক কারখানার শ্রমিকদের গত দুই মাসের বেতন বকেয়া রয়েছে। কারখানা কর্তৃপক্ষ শ্রমিকদের বেতন দেই ও দিচ্ছি বলে তা পরিশোধ করছে না। পরে ওই কারখানার প্রায় তিন হাজার শ্রমিক দুপুরে বিক্ষোভ শুরু করেন। এক পর্যায়ে বিকেলে কারখানার শ্রমিকরা ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়ক অবরোধ করে রাখেন। এ সময় ওই সড়কে দীর্ঘ যানজটের সৃষ্টি হয়। এতে ভোগান্তিতে পড়ে হাজারো মানুষ। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনার চেষ্টা করে। কয়েকঘণ্টা শ্রমিকদের বুঝাতে ব্যর্থ হয়ে পুলিশ টিয়ারশেল ও কাঁদানে গ্যাস নিক্ষেপ করে। এ সময় শ্রমিকরা বিভিন্ন দিকে ছোটাছুটি করে চলে যান। পরে সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে সড়কে যান চলাচল স্বাভাবিক হয়। এ ঘটনায় বেশ কয়েকজন শ্রমিক আহত হয়েছেন বলে জানা গেছে। কারখানার শ্রমিক বিল্লাল হোসেন জানান, বারবার বেতন দেওয়ার কথা বলেও কারখানা কর্তৃপক্ষ বেতন পরিশোধ করছে না। এদিকে সংসার চালাতে হিমশিম খেতে হচ্ছে। বকেয়া বেতনের দাবিতে বাধ্য হয়েই শ্রমিকরা বিক্ষোভ করেছেন।  

কারখানার আরেক শ্রমিক আনোয়ার হোসেন জানাযন, কারখানার বেতন দিয়েই সংসার চালাতে হয়। ঋণ করে সংসার চালাচ্ছি দুই মাস ধরে। এখন মানুষ টাকার জন্য চাপ দিচ্ছে। একদিকে দোকান বাকি অন্য দিকে বাসা ভাড়া। তাই বিক্ষোভে অংশ নিয়েছি। আমাদের শ্রমিকদের বেতন পরিশোধ না করা পর্যন্ত বিক্ষোভ চলবে।

গাজীপুর মেট্রোপলিটন সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. রফিকুল ইসলাম বলেন, বকেয়া বেতনের দাবিতে শ্রমিকরা বিক্ষোভ করেন। এ সময় তারা ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়ক অবরোধ করেন। এ ব্যাপারে কারখানা কর্তৃপক্ষ এবং শ্রমিকদের সঙ্গে কথা বলে পরিস্থিতি স্বাভাবিক করার চেষ্টা করা হয়। কিন্তু কারখানার শ্রমিকদের বুঝায় ব্যর্থ হয় পুলিশ। পরে বাধ্য হয়ে কাঁদানো গ্যাস নিক্ষেপ করে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনা হয়েছে। সড়কটিতে বর্তমানে যান চলাচল স্বাভাবিক রয়েছে।  

বাংলাদেশ সময়: ২০৫৮ অক্টোবর ২৭, ২০২১ 
আরএস/আরআইএস

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa