ঢাকা, সোমবার, ২২ অগ্রহায়ণ ১৪২৮, ০৬ ডিসেম্বর ২০২১, ০১ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৩

জাতীয়

বাল্যবিয়ের শিক্ষার্থীদের ক্লাসে ফেরাতে চেষ্টা করছি

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২১১১ ঘণ্টা, অক্টোবর ২১, ২০২১
বাল্যবিয়ের শিক্ষার্থীদের ক্লাসে ফেরাতে চেষ্টা করছি

গাজীপুর: শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি বলেছেন, করোনার কারণে কিছু প্রত্যন্ত অঞ্চলে স্বাভাবিক সময়ের চেয়ে বাল্যবিয়ে বেশি হয়েছে। আমরা চেষ্টা করছি সেই বাল্যবিয়ে হয়ে যাওয়া শিক্ষার্থীদের আবার ক্লাসে ফিরিয়ে আনতে।

তারা অনেকেই স্থানান্তরিত হয়ে গেছে। স্থানান্তরিত হলেও তারা যেখানেই আছে সেখানকার শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে যাতে ক্লাসে অংশগ্রহণ করেন তার জন্য আমরা চেষ্টা করছি।  

বৃহস্পতিবার (২১ অক্টোবর) বিকেলে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যের কনফারেন্সরুমে অধিভুক্ত কলেজসমূহে ২০২০-২০২১ শিক্ষাবর্ষে স্নাতক (সম্মান) ১ম বর্ষে ভর্তিকৃত শিক্ষার্থীদের ওরিয়েন্টশন প্রোগ্রাম (ভার্চ্যুয়ালি) উদ্বোধন শেষে সাংবাদিকদের বিভিন্ন প্রশ্নের জবাবে তিনি এসব কথা বলেন।  

ওরিয়েন্টশনে আরও উপস্থিত ছিলেন মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক, যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী মো. জাহিদ আহসান রাসেল, জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য ড. অধ্যাপক মো. মশিউর রহমান ও রেজিস্ট্রার মোল্লা মাহফুজ আল-হোসেন প্রমুখ।  

শিক্ষামন্ত্রী বলেন, শিক্ষার্থীরা যেন নিজেদের উদ্যোক্তা হিসেবে তৈরি করতে পারে এবং পাশাপাশি দেশ-বিদেশে কর্মসংস্থানের সুযোগ গ্রহণ করতে পারে সেই লক্ষ্যে বিভিন্ন পদক্ষেপ গ্রহণ করা হচ্ছে।  

তিনি বলেন, করোনাকালে কিছু শিক্ষার্থী হয়তো ঝরে গেছে। করোনায় কতটা ঝরে গেছে এবং কি কারণে ঝরে গেছে সেটা আমাদের নিরুপণ করতে হবে। সেটা নিয়ে আমরা এখন কাজ করছি। আরও কিছুদিন গেলে আমরা বুঝতে পারবো। সত্যিকার অর্থে কতজন ঝরে পড়েছে। ঋতু পরিবর্তনজনিত অসুস্থতার কারণে হয়তো ক্লাসে উপস্থিতির হার কম। আর কিছুদিন গেলে আমরা বুঝতে পারবো সত্যিকার কোন কারণে কতজন ক্লাসে আসছে না কিংবা কতজন শিক্ষার্থী ঝরে গেছে।  

শিক্ষামন্ত্রী আরও বলেন, এই মুহুর্তে আমরা শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ক্লাসের সংখ্যা বাড়াতে পারছি না। নতুন বছর শুরু হলে এবং সংক্রমণ আরও কমে গেলে আমরা আশা করছি ক্লাসের সংখ্যা বাড়াতে পারবো। এখন যে অবস্থা রয়েছে তাতে সন্তানদের স্কুলে পাঠানোর ক্ষেত্রে অভিভাবকরা যে পুরোপুরি স্বস্তিতে আছে, তা নয়। সে কারণে স্কুল-কলেজে শিক্ষার্থীদের উপস্থিতির হার কোথাও কোথাও কম আছে। আস্তে আস্তে যখন সব ক্লাস শুরু হবে তখন আবার তাদের উপস্থিতি বাড়বে, এটা নিশ্চিত।  

এছাড়া একইদিন বিকেলে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের ২৯তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে বিশ্ববিদ্যালয় চত্বরে কবুতর ও বেলুন উড়িয়ে, সিনেট হলরুমে কেক কাটা এবং আলোচনা অনুষ্ঠানে অংশ নেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি, মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক, উপাচার্য অধ্যাপক মো. মশিউর রহমান। এ সময় বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক-কর্মকর্তা-কর্মচারীরাও এতে অংশ নেন।  

বাংলাদেশ সময়: ২১১১ অক্টোবর ২১, ২০২১
আরএস/আরআইএস

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa