ঢাকা, শুক্রবার, ৬ কার্তিক ১৪২৮, ২২ অক্টোবর ২০২১, ১৪ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

জাতীয়

বিটিআরআইয়ে আর্মি টি কোর্সে ১০৮ জনের প্রশিক্ষণ

ডিভিশনাল সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৫৫১ ঘণ্টা, সেপ্টেম্বর ২০, ২০২১
বিটিআরআইয়ে আর্মি টি কোর্সে ১০৮ জনের প্রশিক্ষণ

মৌলভীবাজার: বাংলাদেশের মানুষের কাছে চা একটি অত্যাবশ্যকীয় পানীয় হয়ে দাঁড়িয়েছে। বিশ্বব্যাপীও চায়ের চাহিদা অনেক বেশি বেড়ে গেছে।

দেশের এ দ্রুত বর্ধমান জনসংখ্যার সঙ্গে পাল্লা দিয়ে বেড়েছে চা পানের চাহিদা যা চা শিল্পের জন্য একটি বিশাল অভ্যন্তরীণ বাণিজ্য ক্ষেত্রের সৃষ্টি করেছে।

চা সংশ্লিষ্টরা মনে করেন, চায়ের উৎপাদন বাড়ানোর পাশাপাশি চাকে গুণে-মানে উন্নতকরণ এবং বৈচিত্রায়ন সংযোজন করা প্রয়োজন। প্রতিযোগিতাময় বৈশ্বিক বাজার আর আধুনিক প্রজন্মের এ চাহিদা পূরণ করা বাংলাদেশ চা শিল্পের জন্য একটি বড় চ্যালেঞ্জ।

চা আবাদ ও প্রক্রিয়াজাতকরণ একটি অতিসুক্ষ ধারাবাহিক বিজ্ঞানভিত্তিক পদ্ধতি যা সম্পূর্ণ আবহাওয়া ও সময়োপযোগী সিদ্ধান্ত নির্ভর। চাষাবাদের ক্ষেত্রে সঠিক সময়ে প্রয়োজনীয় উপকরণ ও শ্রমের প্রয়োগ না হলে উৎপাদন ব্যাহত হবে আর ফসল তোলা থেকে প্রক্রিয়াজাতকরণের শেষ ধাপটি পর্যন্ত সঠিকভাবে সুসম্পন্ন না হলে তৈরি চায়ের গুণগতমান বিপন্ন হবে। কাজেই চায়ের উৎপাদন বাড়ানো অব্যাহত রেখে তৈরি চায়ের গুণগতমান অক্ষুণ্ন রাখা সবসময়ই একটি বড় চ্যালেঞ্জ বলে চা সংশ্লিষ্টদের ধারণা।

গুরুত্বপূর্ণ সম্ভাবনাময় চা শিল্পকে বাস্তবিক অর্থে সফল করতে হলে উৎপাদন বাড়ানোর পাশাপাশি উন্নত গুণগতমান বজায় রাখা অত্যন্ত জরুরি। বিশ্বে বাংলাদেশের চা একটি আদর্শ গুণগত মানসম্পন্নপণ্য হিসেবে সুপ্রতিষ্ঠিত করা বাংলাদেশ চা গবেষণা ইনস্টিটিটিউটের (বিটিআরআই) অন্যতম লক্ষ্য। চা আবাদীর বৈজ্ঞানিক পন্থা ও চায়ের গুণগতমান নিয়ে বিটিআরআই সূচনালগ্ন থেকেই বিভিন্ন ধরনের গবেষণা করে আসছে। গবেষণার পাশাপাশি বিটিআরআই প্লান্টার্স এবং চায়ের সঙ্গে জড়িত সর্বস্তরের মানুষদের ‘আধুনিক পদ্ধতিতে চা চাষ’, ‘টি টেস্টিং ও কোয়ালিটি কন্ট্রোল’ বিষয়ক প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়ে থাকে।

রোববার (১৯ সেপ্টেম্বর) এরই ধারাবাহিকতায় বাংলাদেশ চা গবেষণা ইনস্টিটিউটে (বিটিআরআই) ১২ দিনব্যাপী (১৯ সেপ্টেম্বর - ৩০ সেপ্টেম্বর) Two Weeks Training Course on Tea Tasting & Quality Control for the Army and Navy Officers of Bangladesh’ শীর্ষক একটি প্রশিক্ষণ কোর্স আয়োজন করেছে। কোর্সটিতে বাংলাদেশ আর্মির ১০ জন অফিসার এবং বাংলাদেশ নেভীর দু’জন অফিসারকে প্রশিক্ষণ দেওয়া হবে। কোর্সটির উদ্বোধনী অনুষ্ঠানটি ১৯ সেপ্টেম্বর বিটিআরআই কনফারেন্স রুমে আয়োজন করা হয়েছে।

বিটিআরআই পরিচালক ড. মোহাম্মদ আলীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ চা বোর্ডের চেয়ারম্যান মেজর জেনারেল মো. আশরাফুল ইসলাম, বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন প্রকল্প উন্নয়ন ইউনিটের (পিডিইউ) পরিচালক ড. এ কে এম রফিকুল হক, কোর্স কো-অর্ডিনেটর ড. মো. ইসমাইল হোসেনসহ বিটিআরআই’র সব চা বিজ্ঞানীরা।

বিটিআরআই সূত্রে জানা গেছে, এবারের এ কোর্সটি ১২তম প্রশিক্ষণ কোর্স এবং ২০০৫ সাল থেকে শুরু হওয়া এ প্রশিক্ষণটিতে এ পর্যন্ত বাংলাদেশ আর্মি ও নেভীর সার্ভিস কোরের মোট ১০৮ জন কমিশন্ড অফিসার অত্যন্ত সফলতার সঙ্গে প্রশিক্ষণ গ্রহণ করেছেন।

বাংলাদেশ সময়: ১৫৫০ ঘণ্টা, সেপ্টেম্বর ২০, ২০২১
বিবিবি/আরআইএস

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa