ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১, ৩০ মে ২০২৪, ২১ জিলকদ ১৪৪৫

জাতীয়

কুলাউড়ায় বালু উত্তোলনে ক্ষতিগ্রস্ত নদী সংলগ্ন এলাকা

ডিভিশনাল সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৬২৫ ঘণ্টা, এপ্রিল ২১, ২০২৪
কুলাউড়ায় বালু উত্তোলনে ক্ষতিগ্রস্ত নদী সংলগ্ন এলাকা

মৌলভীবাজার: মৌলভীবাজারের কুলাউড়া উপজেলার একটি অংশে ক্রমাগত বালু উত্তোলনে নদী সংলগ্ন এলাকা ক্ষয়ক্ষতির মুখে পড়েছে। ওই উপজেলার শরীফপুর ইউনিয়নের চাতলাঘাটে মনু ব্রিজের সম্মুখ থেকে বালু উত্তোলনে ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে উঠছে মনু নদীর ব্রিজ।

আইন অমান্য করে বালু উত্তোলনের পর অভারলোড নিয়ে বেপরোয়া গতিতে ১০ চাকার বালুভর্তি ড্রাম্পার ট্রাক উন্মুক্তভাবে পরিবহন করছে। ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে রাস্তাঘাট, নদীর বাঁধ। কৃষিক্ষেত বিনষ্টেরও অভিযোগ উঠেছে।

একইভাবে কমলগঞ্জের ধলাইপাড়ের ধলাই নদী থেকেও বালু উত্তোলন হচ্ছে। এতে জনস্বাস্থ্যের হুমকি ও শহরে তীব্র যানজট সৃষ্টি হচ্ছে। ব্রিজের পাশ থেকে বালু উত্তোলন করায় ভ্রাম্যমাণ আদালত সম্প্রতি দেড় লাখ টাকা জরিমানা করেছেন।

জানা গেছে, মনু নদীর চাতলাঘাট থেকে বালু উত্তোলন করে কমলগঞ্জ উপজেলার শমশেরনগর-চাতলাপুর সড়ক ব্যবহার করে দিন-রাত অভারলোড নিয়ে বালু পরিবহন করছে ১০ চাকার ড্রাম্পার ট্রাক। চাতলাঘাট বালুমহাল ইজারা নিলেও বালু উত্তোলনের কথা চাতলাপুর মনু ব্রিজের এক কিলোমিটার নিচ থেকে।  

দীর্ঘদিন ধরে বেপরোয়া ও যত্রতত্রভাবে বালু উত্তোলন হচ্ছে ব্রিজের কয়েকশ’ গজ দূর থেকেই। এতে মনু নদীর চাতলা ব্রিজ মারাত্মক ঝুঁকির মুখে পড়েছে। তাছাড়া বিশাল এলাকা নিয়ে বালু উত্তোলন ও ১০ চাকার ড্রাম্পার ট্রাকে বালু পরিবহনে নদীর বাঁধ ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে। সড়ক ও জনপথের রাস্তার বিভিন্ন স্থানে ফাটল ও দেবে যাচ্ছে।

অভারলোড ট্রাকগুলো উন্মুক্তভাবে বালু পরিবহনের ফলে একদিকে জনস্বাস্থ্যের ক্ষতি হচ্ছে, অন্যদিকে শমশেরনগর বাজার চৌমুহনায় প্রতিনিয়ত তীব্র যানজটের সৃষ্টি হচ্ছে। স্থানীয় কৃষকদের আবাদি জমিতে বালু গড়িয়ে পড়ছে এবং কৃষিক্ষেতে বাধার সৃষ্টি করছে।  

এতে আপত্তি জানিয়েও কোনো কাজ হচ্ছে না বলে কৃষকরা অভিযোগ তুলেছেন। অভারলোড ট্রাকের কারণে সড়কের ক্ষয়ক্ষতি বিষয়ে সড়ক ও জনপথ বিভাগ লিখিতভাবে জানালেও তা কাজে আসছে না। ব্রিজের পাশ থেকে বালু উত্তোলনের কারণে ভ্রাম্যমাণ আদালত চাতলাঘাটে দেড় লাখ টাকা জরিমানা করেছেন।  
স্থানীয় হেলাল মিয়া বলেন, বালু উত্তোলনের কারণে আমি ক্ষেত করতে পারি না। আমার কলার গাছ, আকাশি গাছ নষ্ট করে ফেলছে। ব্রিজের নিচ থেকে ১ কিলোমিটার দূরে থেকে বালু তোলার কথা। এখন তারা ব্রিজের কাছাকাছি আইছে। বালু ধুয়ে ধুয়ে আমার জমিনে পড়ে। ফলে কোনো ক্ষেত কৃষি করতে পারি না।

শমশেরনগর বণিক কল্যাণ সমিতির সভাপতি আব্দুল হান্নান জানান, বালু বহনকারী ড্রাম্পার ট্রাক অভারলোড নিয়ে পরিবহনের সময় ধুলো বালি উড়ে রাস্তার দুপাশের দোকানপাট ও চোখে মুখে এসে পড়ে। এছাড়া নিয়মিত তীব্র যানজট সৃষ্টি হয়।

সড়ক ও জনপথ বিভাগ, মৌলভীবাজারের নির্বাহী প্রকৌশলী মো. কায়সার হামিদ বলেন, বালুবাহী অভারলোড ট্রাকের কারণে রাস্তার ক্ষতি হওয়ায় আমরা ইতোপূর্বে তাদের লিখিতভাবে জানিয়েছি।

কুলাউড়া উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) মো. মেহেদি হাসান বলেন, ব্রিজের কাছাকাছি আসার কারণে সম্প্রতি ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করে তাদের দেড় লাখ টাকা জরিমানা করা হয়েছে। তারপরও বিষয়টি তদন্ত করে দেখা হবে।

কমলগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) জয়নাল আবেদীন বলেন, ট্রাকে বালুভর্তি করে নেওয়ার কথা নয়। তবে বিষয়টি তদন্তপূর্বক ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

বাংলাদেশ সময়: ১৬২৪ ঘণ্টা, এপ্রিল ২১, ২০২৪
বিবিবি/আরবি

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।