ঢাকা, মঙ্গলবার, ১৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১, ২৮ মে ২০২৪, ১৯ জিলকদ ১৪৪৫

জাতীয়

যুগান্তর সাংবাদিকের ওপর কেমিক্যাল নিক্ষেপ, সাভার ছাড়ার হুমকি  

অতিথি করেসপন্ডেন্ট  | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৪১৯ ঘণ্টা, এপ্রিল ২০, ২০২৪
যুগান্তর সাংবাদিকের ওপর কেমিক্যাল নিক্ষেপ, সাভার ছাড়ার হুমকি  

সাভার: দৈনিক যুগান্তর পত্রিকার ক্রাইম রিপোর্টার ইকবাল হাসান ফরিদের ওপর ঝাঁঝালো কেমিক্যাল নিক্ষেপ করে এলাকা ছাড়ার হুমকি দিয়েছেন দুর্বৃত্তরা।  

শুক্রবার (১৯ এপ্রিল) রাত পৌনে ১২টার দিকে সাভারের কলমা এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

তাকে উদ্ধার করে সাভার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স নেওয়া হয়। উন্নত চিকিৎসার জন্য পরে তাকে এনাম মেডিকেলে ভর্তি করা হয়েছে।

ভুক্তভোগী ইকবাল হাসান ফরিদ সিলেট জেলার বাসিন্দা। তবে সাভারের কলমা এলাকায় থাকেন তিনি।  

হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ইকবাল হাসান ফরিদ  বাংলানিউজকে বলেন, আমি প্রতিদিন সাভারের কলমা এলাকা থেকে অফিস করি। প্রতিদিনের মতো অফিসের কাজ শেষ করে গতকাল (শুক্রবার) বাসায় ফিরছিলাম। তখন আনুমানিক রাত পৌনে ১২টার দিকে বাসার পাশের একটি অন্ধকার গলিতে পৌঁছালে আগে থেকেই ওৎ পেতে থাকা কেউ একজন আমার নাম ধরে ডাক দেয়। আমি দাঁড়িয়ে পেছনে তাকাতেই দেখি মুখোশধারী দুই যুবক। তারা আমাকে স্থানীয় দুই জনপ্রতিনিধির নাম ব্যবহার করে সাভার ছাড়ার নির্দেশ দেন। আগামী ১ মাসের মধ্যে সাভার ছেড়ে না গেলে সপরিবারে হত্যার হুমকি দেন তারা। এর পর মুখোশধারী অপর একজন মরিচের গুঁড়ো সাদৃশ্য কেমিক্যাল আমার চোখে-মুখে ও শরীরে নিক্ষেপ করে আমাকে ধাক্কা দিয়ে ফেলে দেয়। শরীরে জ্বালাপোড়া শুরু হলে স্থানীয়রা উদ্ধার করে আমাকে হাসপাতালে ভর্তি করে।

ভুক্তভোগী আরও বলেন, হুমকিদাতারা যে জনপ্রতিনিধিদের নাম ব্যবহার করেছেন তাদের সঙ্গে আমার পরিচয়, যোগাযোগ কিংবা বিরোধ নেই। কেউ ঘোলাপানিতে মাছ শিকার করতে চাচ্ছে। আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সুষ্ঠু তদন্তে প্রকৃত ঘটনা উদ্‌ঘাটন হবে বলে আমি বিশ্বাস করি।

সাভার মডেল থানার পরিদর্শক (ওসি) মো. শাহজামান বাংলানিউজকে বলেন, আমরা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে হাসপাতালে গিয়ে ভুক্তভোগী সাংবাদিকের সঙ্গে কথা বলেছি। বিষয়টি তদন্ত করে দুর্বৃত্তদের খুঁজে বের করে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

বাংলাদেশ সময়: ১৩৩৮ ঘণ্টা, এপ্রিল ২০, ২০২৪
এসএএইচ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।