ঢাকা, রবিবার, ১৯ ফাল্গুন ১৪৩০, ০৩ মার্চ ২০২৪, ২১ শাবান ১৪৪৫

জাতীয়

ফতুল্লায় বেতন না দিয়ে কারখানা লে-অফ, শ্রমিকদের বিক্ষোভ

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৯৩০ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ৭, ২০২৩
ফতুল্লায় বেতন না দিয়ে কারখানা লে-অফ, শ্রমিকদের বিক্ষোভ

নারায়ণগঞ্জ: নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লায় ১৮ মাসের বকেয়া বেতন না দিয়ে প্যারাডাইজ ক্যাবলের সহযোগী প্রতিষ্ঠান এসবিএস বিদ্যুতের তার তৈরীর কারখানা লে-অফ ঘোষণা করায় অর্ধশতাধিক শ্রমিক বিক্ষোভে ফুঁসে উঠেছে।

মঙ্গলবার (৭ ফেব্রুয়ারি) সকালে ফতুল্লার পিঠালিপুর এলাকায় অবস্থিত কারখানার সামনে এ বিক্ষোভ করেন তারা।

পরে দুপুরে নারায়ণগঞ্জ কলকারখানা ও প্রতিষ্ঠান পরিদর্শন অধিদফতরে দাবি-দাওয়া তুলে ধরে অভিযোগ করেন শ্রমিকরা। এদিকে অপ্রীতিকর ঘটনার আশঙ্কায় কারখানার সামনে সাজোয়া যানসহ অতিরিক্ত শিল্প পুলিশ মোতায়েন করা হয়। এতে শ্রমিকদের মধ্যে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে।

এসবিএস ক্যাবলের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মো. মোবারক হোসেন স্বাক্ষরিত লে-অফ ঘোষণাপত্রে উল্লেখ করা হয়, দুই বছর যাবত কারখানার উৎপাদন বন্ধ। বর্তমানে কোনো কারখানাকে ব্যাংক ঋণ প্রদানে সম্মত হচ্ছে না। এজন্য বিদেশ থেকে এলসির মাধ্যমে কাঁচামাল কিনতে পারছে না। এছাড়া বকেয়া বিলের জন্য কারখানার সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে দিয়েছে তিতাস গ্যাস। তাছাড়া একাধিক ব্যাংক থেকে নেওয়া ঋণের টাকার জন্য মালিকপক্ষকে চাপ প্রয়োগ করছে। সার্বিক কারণে কারখানা বন্ধ করা হয়েছে।

শ্রমিকদের নেতৃত্ব দেওয়া বাংলাদেশ ট্রেড ইউনিয়ন কেন্দ্রের নেতা অ্যাডভোকেট মন্টু ঘোষ, ইকবাল হোসেন ও এমএ শাহিন জানান, কারখানা মালিকের লে-অফ আবেদন নারায়ণগঞ্জ কলকারখানা ও প্রতিষ্ঠান পরিদর্শন অধিদফতর গ্রহণ করেনি। আমাদের অভিযোগের ভিত্তিতে আগামী বৃহস্পতিবার মালিক ও শ্রমিক উভয় পক্ষকে ডেকেছেন। নারায়ণগঞ্জ কলকারখানা ও প্রতিষ্ঠান পরিদর্শন অধিদফতরের উপ-মহাপরিদর্শক ডা. রাজিব চন্দ্র দাস সরাসরি সমস্যা শুনে সমাধান দেবেন। এরপর শ্রমিকরা শান্ত হয়ে বাসায় চলে যায়।

তারা আরও জানান, শ্রমিকরা ২৫ বছর যাবত এসবিএস কারখানায় কাজ করে আসছে। এরমধ্যে ৬৫জন শ্রমিক ১৮ মাস যাবত কোনো বেতন ভাতা পাচ্ছে না। তারপরও কারখানায় হাজিরা দিয়ে যাচ্ছে। শ্রমিকদের পাওনা পরিশোধ না করে লে-অফ ঘোষণা কাম্য নয়।

বাংলাদেশ সময়: ১৯২৯ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ০৭, ২০২৩
এমআরপি/এসএ
 

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।