ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২৬ মাঘ ১৪২৯, ০৯ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ১৭ রজব ১৪৪৪

জাতীয়

চেয়ারম্যান পদে স্বামী-স্ত্রীর প্রতিদ্বন্দ্বিতা, ছিটকে গেলেন স্বামী

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২১৪৮ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ৩, ২০২২
চেয়ারম্যান পদে স্বামী-স্ত্রীর প্রতিদ্বন্দ্বিতা, ছিটকে গেলেন স্বামী

হবিগঞ্জ: চেয়ারম্যান পদে স্বামী-স্ত্রী প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নামার মাধ্যমে আলোচনায় আসা স্বামী ঋণখেলাপির অভিযোগে ছিটকে গেছেন নির্বাচন থেকে। তারা শায়েস্তাগঞ্জ উপজেলার নূরপুর ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছিল।

শনিবার (৩ ডিসেম্বর) নির্বাচন কমিশন যাচাই-বাছাই শেষে এ ইউপির বর্তমান চেয়ারম্যান ও আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী মো. মুখলিছ মিয়ার মনোনয়নপত্রটি অবৈধ ঘোষণা করে। ফলে এখন মুখলিছ মিয়ার স্ত্রী স্বতন্ত্র প্রার্থী মাসুমা আক্তারসহ চেয়ারম্যান পদে ৫ প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতায় টিকে রয়েছেন।

নির্বাচনে রিটার্নিং কর্মকর্তা মোহাম্মদ মনিরুজ্জামান বাংলানিউজকে জানান, নূরপুর ইউপি নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে ৬ প্রার্থীসহ মোট বিভিন্ন পদে ৪৮ জন মনোনয়নপত্র দাখিল করেছিলেন। বাংলাদেশ ব্যাংক ও সোনালী ব্যাংক থেকে দুটি ঋণখেলাপির চিঠি আসায় চেয়ারম্যান প্রার্থী মো. মুখলিছ মিয়ার মনোনয়নপত্র বাতিল হয়েছে। এখন ৩টি পদে ৪৭ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতায় রয়েছেন।

মনোনয়নপত্র বাতিল হওয়ার পর মুখলিছ মিয়া তার স্ত্রীকে সমর্থন দিবেন কি না জানতে চাইলে তিনি বলেন, এখনও কোন সিদ্ধান্ত নিইনি। তবে আমার স্ত্রী পুরোদমে প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছেন। এ বিষয়ে পরবর্তী কোনো সিদ্ধান্ত হলে গণমাধ্যমকে জানাবো।

চেয়ারম্যান পদে এখনও প্রতিদ্বন্দ্বিতায় রয়েছেন বিএনপির মো. গোলাম কিবরিয়া চৌধুরী, মো. আব্দুল সোবাহান ছায়েদ, জাতীয় পার্টির এমএম হেলাল, আওয়ামী লীগ প্রার্থী মো. সেবন মিয়া ও স্বতন্ত্র প্রার্থী মাসুমা আক্তার।

এ নির্বাচনে প্রার্থিতা প্রত্যাহারের শেষ সময় ১০ ডিসেম্বর। আর ইলেক্ট্রনিক ভোটিং মেশিনে (ইভিএম) ভোট অনুষ্ঠিত হবে ২৯ ডিসেম্বর।

বাংলাদেশ সময়: ২১৪৮ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ০৩, ২০২২
এসআইএ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa