ঢাকা, সোমবার, ৮ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯, ২৩ মে ২০২২, ২১ শাওয়াল ১৪৪৩

লাইফস্টাইল

আগুন লাগলে কী করবেন

লাইফস্টাইল ডেস্ক | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৬০১ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ২৮, ২০২১
আগুন লাগলে কী করবেন

সম্প্রতি ঝালকাঠির সুগন্ধা নদীতে ঢাকা থেকে বরগুনাগামী এমভি অভিযান-১০ নামের লঞ্চে আগুন লাগার ঘটনা ঘটে গেল এমনই কিছু অঘটন। এক্ষেত্রে আগুন যতটা না বিপদ ডেকে আনে, তার চেয়ে অনেকগুণ বেশি বিপর্যয়ের কারণ হতে পারে হুড়োহুড়ি বা তাড়াহুড়ো।

আগুন যেকোনো সময়, যেকোনো জায়গায় লাগতে পারে। তবে, সামান্য কিছু তথ্য জানা থাকলে বা একটু সতর্ক হলেই বাঁচানো যেতে পারে মূল্যবান জীবন ও সম্পদ। তাহলে জেনে নিন আগুন লাগার সঙ্গে সঙ্গে আপনার করণীয়।

* শুরুতেই আগুন নেভানোর চেষ্টা করুন।

* বিচলিত হয়ে উপস্থিত বুদ্ধি হারাবেন না। আগুন বলে চিৎকার করবেন এবং ফায়ার ফাইটিং চর্চার মাধ্যমে ওপরে উল্লেখিত অগ্নি নির্বাপক বস্তু ব্যবহার করবেন।

* আজই ফায়ার সার্ভিস অফিসের ফোন বা জরুরি সেবার নম্বর সংগ্রহ করে রাখুন। আর হঠাৎ কোথাও যদি আগুন লেগেই যায় তাহলে স্থানীয় ফায়ার স্টেশনের নম্বরে খবর দেবেন।

* বৈদ্যুতিক আগুনের ক্ষেত্রে দ্রুত মেইন সুইচ বন্ধ করুন।

* তেল–জাতীয় পদার্থ ও পানি বৈদ্যুতিক আগুন নেভাতে ব্যবহার করবেন না।

* বৈদ্যুতিক আগুনে ভেজা মোটা কাপড় বা কম্বল চাপা দেবেন।

* পরনের কাপড়ে আগুন লাগলে মাটিতে গড়াগড়ি করবেন বা ভেজা কম্বল গায়ে দেবেন।

* বহনযোগ্য অগ্নিনির্বাপণ যন্ত্র ব্যবহার করুন।

*বৈদ্যুতিক লাইনে/যন্ত্রপাতিতে আগুন ধরলে পানি ব্যবহার করবেন না। বহনযোগ্য কার্বন ডাই-অক্সাইড বা ড্রাই কেমিক্যাল পাউডার এক্সটিংগুইশার ব্যবহার করুন। না পেলে শুকনো বালু ব্যবহার করুন।

*তেল–জাতীয় পদার্থ থেকে লাগা আগুনে পানি ব্যবহার বিপজ্জনক। বহনযোগ্য ফোম–টাইপ ফায়ার এক্সটিংগুইশার বা শুকনো বালু অথবা ভেজা মোটা কাপড়/চটের বস্তা দিয়ে চাপা দিন।

*বাসায় বা অফিসে আগুন লাগলে মূল্যবান জিনিস সরানোর চেষ্টা করবেন না। আপনার ও পরিবারের সদস্যদের জীবন বাঁচানোই এ সময় জরুরি। এক সেকেন্ড সময়ও মূল্যবান।

* পরিস্থিতি যতটা শান্ত রাখা যায়, বিপদ থেকে মুক্তির সম্ভাবনা তত বেশি বাড়ে।

*গায়ে আগুন লেগে গেলে দৌড়াবেন না। গড়িয়ে গড়িয়ে যেদিকে যেতে চান সেদিকে যান। কাপড় দিয়ে নাক ঢাকুন, হাতের কাছে পানি থাকলে কাপড় ভিজিয়ে নিন।

*সিঁড়িতে ধোঁয়া দেখতে পেলে ওপরে উঠবেন না, ছাদে যাওয়ার চেষ্টা করবেন না।

*ধোঁয়া বাতাসের চেয়ে হালকা, তাই তা দ্রুত ওপরের দিকে ওঠে। ধোঁয়া শ্বাসের সঙ্গে ভেতরে ঢুকলেই বিপদ!

*সিঁড়ি দিয়ে নামা বিপজ্জনক হলে বারান্দা বা জানালার কাছে চলে যান, এতে হাতে বেশি সময় পাওয়া যায়।

*ধোঁয়ায় আচ্ছন্ন পথ পরিহার করুন। যেতে বাধ্য হলে উপুড় হয়ে বা হামাগুড়ি দিয়ে বের হওয়ার চেষ্টা করবেন। ধোঁয়া ওপরে ওঠে বলে নিচের বাতাসে অক্সিজেন বেশি থাকে।

*ধোঁয়ায় কিছু দেখা না গেলে ও একাধিক সদস্য থাকলে একজনের পেছনে আরেকজন হামাগুড়ি দেবেন, একে–অন্যের কাপড় বা পা ধরে এগোবেন।
*বিপদে কিছুক্ষণ পরপর একে–অপরকে সাহস করলে বা দিলে বিপদ থেকে মুক্তি পাওয়ার সম্ভাবনা বেড়ে যায়।

* ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স সম্পর্কিত সেবা পেতে কল করুন: +০২-২২৩৩৫৫৫৫৫, ০১৭৩০-৩৩৬৬৯৯, ০১৭১৩-০৩৮১৮১-২ নম্বরে।

বাংলাদেশ সময়: ১৫৫৬ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ২৮, ২০২১
এএটি

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa