ঢাকা, সোমবার, ১৪ আষাঢ় ১৪২৯, ২৭ জুন ২০২২, ২৭ জিলকদ ১৪৪৩

লাইফস্টাইল

চুল পেকে যাচ্ছে? জানুন কালো রাখার নিয়ম  

লাইফস্টাইল ডেস্ক | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১১৫৮ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ১, ২০১৭
চুল পেকে যাচ্ছে? জানুন কালো রাখার নিয়ম   জানুন চুল কালো রাখার নিয়ম- ছবি: সংগৃহীত 

কেউ কেউ ২০ বছর বয়সেই চুল পেকে যাওয়ার প্রবণতায় ভোগেন। বেশিরভাগ স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরাই মনে করেন পরিবেশের দূষণ, খাদ্যাভ্যাস, অত্যাধিক মানসিক চাপ ও অনিয়ন্ত্রিত জীবনযাপনের ফলে অল্প বয়সেই চুল পেকে যেতে পারে। চুল কালো রাখতে বাজারে প্রসাধনীর অন্ত নেই। কিন্তু কিছু প্রাকৃতিক উপাদান গ্রহণের মাধ্যমেই আপনার চুল হয়ে উঠতে পারে ঝলমলে কালো ও স্বাস্থ্যোজ্জ্বল।

শাক-সবজি: শাক-সবজিতে প্রচুর পরিমাণ ফোলিক এসিড থাকে। ফোলিক এসিড হলো ভিটামিন-বি কমপ্লেক্স ভিটামিন।

যা চুলকে কালো রাখতে সাহায্য করে ও চুলের স্বাস্থ্য নিশ্চিত করে।

বাদাম: বাদাম চুলের জন্য খুবই উপকারী। সুন্দর চুল ধরে রাখতে বাদাম খাওয়ার পাশাপাশি বাদামের তেল চুলে লাগালে চুল স্বাস্থ্যজ্জ্বল হয়ে উঠে।

আমলা: এই প্রাকৃতিক খাদ্য উপাদানটি পাউডার ও তেল দুভাবেই ব্যবহার করা যায়। আমলা তেল চুলের কালো রঙ ধরে রাখতে সাহায্য করে এবং পাউডার চুলকে খুশকি মুক্ত রাখতে ব্যবহার করা যায়।  

হেনা: চুলের সুরক্ষায় হেনার ব্যবহার অনেক পুরনো। চুল ধূসর হয়ে যাওয়া ঠেকাতে সরিষা তেলের সঙ্গে হেনা পাতার মিশ্রণ অনেক উপকারি।

ছোলা: ছোলা বি১২ ও ফোলিক এসিডে ভরপুর। তাই সকালে খালি পেটে ছোলা খাওয়া স্বাস্থ্য ঠিক রাখার পাশাপাশি চুল কালো করার জন্যে যথেষ্ট উপাদেয়।

চিংড়ি: চুল কালো রাখার জন্য শরীরে পর্যাপ্ত পরিমাণে জিঙ্ক থাকা প্রয়োজন। চিংড়ি সহজেই জিঙ্কের ঘাটতি পূরণ করতে পারে।

স্যামন মাছ: চুলে পুষ্টি যোগাতে ওমেগা থ্রি সরাসরি অংশগ্রহণ করে। স্যামন মাছে প্রচুর পরিমাণে ওমেগা থ্রি পাওয়া যায়।  

মুরগির মাংস:  মুরগির মাংস ভিটামিন বি১২ ও ফোলিক এসিড সমৃদ্ধ। দুটি উপাদানই চুলের কালো রঙ ও স্বাস্থ্য ধরে রাখতে সাহায্য করে।

বাংলাদেশ সময়: ১৭৫২ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ০১, ২০১৭
এমএসএ/বিএস 

 
 

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa