ঢাকা, বুধবার, ৭ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১, ২২ মে ২০২৪, ১৩ জিলকদ ১৪৪৫

লাইফস্টাইল

ধন্যবাদ পিজা হোম ডেলিভারি

লাইফস্টাইল ডেস্ক | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৪৪৬ ঘণ্টা, অক্টোবর ১৩, ২০১৬
ধন্যবাদ পিজা হোম ডেলিভারি

ছোট বেলায় দাদীর কোলে মাথা রেখে রাজকুমার ঘোড়ায় চড়ে সারাদুনিয়া দেখতো। গল্পের সেই রাজকুমার জীবনের প্রয়োজনে এক সময় দাদীর কাছ থেকে দূরে চলে যায়, তবে ভালোবাসা আর উদ্বেগ কিন্তু একটুও কমে না।

 

তারই প্রমাণ মিললো সম্প্রতি যুক্তরাষ্ট্রের ফ্লোরিডা অঙ্গরাজ্যের পূর্বাঞ্চলে হারিকেন ম্যাথিউ আঘাত হানার পর যখন প্রায় হাজার মানুষের মৃত্যু খবর এলো। ফ্লোরিডায় ১০ লাখ গ্রাহক বিদ্যুৎ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েন। ওই এলাকার প্রায় সহস্রাধিক ঘর-বাড়ি বিধ্বস্ত হয়েছে। সেখানে জরুরি অবস্থা জারি করেছে স্থানীয় কর্তৃপক্ষ।

সব ধরনের যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে যাওয়ায় প্রতি মুহূর্ত ৮৭ বছরের বয়স্ক অসুস্থ দাদী ক্লারি ওসেনের জন্য ওহামায় ‍অবস্থিত এরিক খুবই উদ্বিগ্ন হয়ে গেলেন। তিনি  ফ্লোরিডার পুলিশ বাহিনী, ফায়ার সার্ভিসের সঙ্গে যোগাযোগ করে অনুরোধ করেন তার দাদীর অবস্থা সম্পর্কে জানাতে। কিন্তু পুরো দুই দিন অপেক্ষার পরও তারা কোনো কিছুই জানাতে পারেনি এরিককে। নিরুপায় এরিকের মাথায় এবার এক অভিনব বুদ্ধি এলো। তিনি পাম কোস্টের পাপা জনস্ পিজারিয়া নামের পিজা শপে তার দাদীর জন্য একটি পিজা ‍অর্ডার দিলেন।  

পিজা সরবরাহকারী লেন্স টেইলারকে এরিক বলেন, দাদীর বাড়িতে গিয়েই যেন তার সঙ্গে দাদীর কথা বলিয়ে দেন। টেইলার তাই করেন, আর তাও মাত্র ৩০ মিনিটের মধ্যেই।  

টেইলার এবিসি নিউজকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে বলেন, এরিক আর তার দাদী একে অপরের সঙ্গে কথা বলার সময় অবেগাপ্লুত হয়ে যান। এসময় এরিক বলেন, দাদী আমি তোমার জন্য চিন্তা করছি, তোমার নিশ্চয় খুব ক্ষুধা পেয়েছে? পিজা ডেলিভারির সঙ্গে সঙ্গে আপনজনের এই মিলনে অবদান রাখতে পেরে খুশি বলেও জানান টেইলার। তিনি বলেন, এরিক পিজাটি পাঠিয়েছে শুনে তার দাদী এতোটা খুশি হয়েছেন দেখে, এমন লেগেছে যে এর চেয়ে ভালো বখশিশ আর কিছুই হতে পারে না।  

এদিকে এরিক বলেন, টানা ৪৮ ঘণ্টা চেষ্টা করেও দাদীর কোনো খোঁজই পাচ্ছিলাম না। অথচ মাত্র আধা ঘণ্টায় পিজা পাঠানোর মাধ্যমে সরাসরি তার সঙ্গে কথা বলে আস্বস্ত হয়েছি। তিনি ভালো আছেন, সুস্থ আছেন।  

যারা দূরে থাকেন, সেই প্রিয়জনের জন্য পছন্দের খাবার কিন্তু এখন আমাদের দেশের হোম ডেলিভারির মাধ্যমেও পাঠাতে পারি।          

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।