ঢাকা, সোমবার, ৩ মাঘ ১৪২৮, ১৭ জানুয়ারি ২০২২, ১৩ জমাদিউস সানি ১৪৪৩

লাইফস্টাইল

যোগ যদি শিখতে চান

অপরাজিতা | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০২২ ঘণ্টা, জানুয়ারি ১৫, ২০১১
যোগ যদি শিখতে চান

ব্যস্ত ঢাকার ঠাসবুনোটের ফাঁক গলে কিছু মানুষ যখন প্রয়োজন অনুভব করেন একটু প্রশান্তির, তখনই দিশেহারা হয়ে পড়েন। কোথায় পাবেন এই শান্তি? তবে এই ইট-কংক্রিটের জঙ্গলেও আছে নানা প্রশান্তিদায়ক উপাদান, আপনার কেবল একটু পরিশ্রম করে খুঁজে নেওয়ার পালা।



আপনার প্রশান্তির জন্য একটি জরুরি অনুষঙ্গ হতে পারে যোগব্যায়াম বা ইয়োগা চর্চা। আধুনিক যন্ত্রপাতিকে বুড়ো আঙ্গুল দেখিয়ে যোগব্যায়াম এখনও ধরে রেখেছে তার জনপ্রিয়তা। কিন্তু কীভাবে? এর প্রমাণ পাবেন বলিউড সুন্দরী শিল্পা শেঠীকে দেখলেই। তার ইয়োগাচর্চার গোপন রহস্য শিল্পা গণমাধ্যমকে জানিয়েছেন বহু আগেই। আপনি যদি সেই রহস্যকে জয় করতে চান তবে আপনাকে প্রথমেই যেতে হবে ধানমন্ডির ২ নম্বরে সড়কের ইন্দিরা গান্ধী কালচারাল সেন্টারে।

প্রতিদিন সকাল-সন্ধ্যায় এ সেন্টারের প্রাঙ্গণ মুখর থাকে ইয়োগা ছাত্র-ছাত্রীদের কল-কাকলীতে । একজন সুদ প্রশিকের মাধ্যমে আগ্রহীদের শেখানো হয় যোগব্যায়াম। সূর্যাসন, চন্দ্রাসন, অর্ধ-চন্দ্রাসন, মেডিটেশনসহ বহু ধরনের ইয়োগা রয়েছে। একেকটাকে একেক নামে সংজ্ঞায়িত করা হয়।

এ ব্যাপারে সেন্টারের ইয়োগা প্রশিক প্রসন্ন কুমার জানান, ‘এখানে শুধু শারীরিক কসরতই করা হয় না, সঙ্গে মেডিটেশনও করানো হয়, যা মানুষের মনকে প্রশান্তি দেয়। এছাড়া ইয়োগা চর্চার মধ্য দিয়ে আমরা শারীরিক, মানসিক, দৈহিকসহ বিভিন্ন ধরনের প্রশিক্ষণ দিয়ে থাকি। আমি মনে করি একজন মানুষের সুস্থ-সুন্দরভাবে বেঁচে থাকার জন্য ইয়োগাচর্চার বিকল্প নেই। ’
 
এ প্রসঙ্গে কথা হয় ইন্দিরা গান্ধী কালচারাল সেন্টারের পরিচালক অঙ্কন ব্যানর্জির সাথে। তিনি বলেন, ‘মূলত বাংলাদেশ ও ভারতের সংস্কৃতিতে মিল রয়েছে অনেক। মিল ভাষা ও মানসিকতার। এখনকার শিল্পীরা ভারতে পারফর্ম করছেন, আবার ভারতের শিল্পীরাও বাংলাদেশের মঞ্চ কাঁপাচ্ছেন। আর  দু দেশের মৈত্রী ও সেতুবন্ধনকে আরও জোরদার করতে আমাদের এই কালচারাল সেন্টার। বাংলাদেশের মানুষের জন্য ইয়োগা প্রশিক্ষণও সেন্টারের সেই কার্যক্রমেরই একটি অংশ।

জানতে হবে :

  • ইয়োগাচর্চার জন্য সপ্তাহের তিন দিন আপনাকে হাজির হতে হবে উক্ত সেন্টারে। তবে তার আগে প্রয়োজন নাম রেজিস্ট্রেশন। কালচারাল সেন্টার থেকে ফরম তুলে ৫০০ টাকার বিনিময়ে তা আপনাকে জমা দিতে হবে। তিন মাস পরপর পুনঃনিবন্ধন করতে হয়।
  • ২০১১-এর জানুয়ারিতে শুরু হয়েছে কার্যক্রম। আগামী তিন মাস পর আবারও নতুন ফরম ছাড়া হবে। তবে সিট স্বল্পতার জন্য মোটামুটি ভিড় লেগে যায়।
  • দুটি সেশনে আপনি করতে পারবেন এই কোর্সটি। শনি থেকে বৃহস্পতিবার সকাল ৭টা থেকে সাড়ে ১০টা, বিকেল ৫টা থেকে রাত সাড়ে ৮টা পর্যন্ত। আর কাস শিডিউল হিসেবে নিতে পারবেন যে কোনো শনি, সোম, বুধ অথবা রবি, মঙ্গল, বৃহস্পতিবার।
  • গুলশানের ইন্ডিয়ান হাইকমিশনে (লাইব্রেরি অ্যান্ড অডিটরিয়াম) রবি, মঙ্গল ও বৃহস্পতিবার আর ধানমন্ডির ইন্দিরা গান্ধী কালচারাল সেন্টারে শনি, সোম ও বুধবার ইয়োগা প্রশিণ দেওয়া হয়।

সুস্থ শরীর ও সুস্থ মনের জন্য ইয়োগা একটি সুপ্রাচীন কিন্তু অত্যন্ত কার্যকর মাধ্যম। যদি আপনি সচেতন হয়ে থাকেন, তবে এখন থেকেই যোগাযোগ রাখতে হবে।

যোগাযোগ :
ইন্দিরা গান্ধী কালচারাল সেন্টার
বাড়ি ২৪, সড়ক ২, ধানমন্ডি, ঢাকা

ইন্দিরা গান্ধী কালচারাল সেন্টার
(লাইব্রেরী  অ্যান্ড অডিটরিয়াম)
বাড়ি ৩৫, সড়ক ২৪, গুলশান-১, ঢাকা

বাংলাদেশ সময় ২০০০, জানুয়ারি ১৫, ২০১১

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa