ঢাকা, মঙ্গলবার, ১০ কার্তিক ১৪২৮, ২৬ অক্টোবর ২০২১, ১৮ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

আইন ও আদালত

সিনহা হত্যা: পরবর্তী সাক্ষ্যগ্রহণ ২৮, ২৯ সেপ্টেম্বর

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২১২০ ঘণ্টা, সেপ্টেম্বর ২২, ২০২১
সিনহা হত্যা: পরবর্তী সাক্ষ্যগ্রহণ ২৮, ২৯ সেপ্টেম্বর

কক্সবাজার: সেনাবাহিনীর অবসরপ্রাপ্ত মেজর সিনহা মোহাম্মদ রাশেদ খান হত্যা মামলার তৃতীয় দফা সাক্ষ্যগ্রহণ শেষ হয়েছে। এরই মধ্য দিয়ে বহুল আলোচিত এ মামলার এ পর্যন্ত  ১৪ জন সাক্ষীর সাক্ষ্যগ্রহণ ও জেরা শেষ হয়েছে।

 

পাশাপাশি চতুর্থ দফায় সাক্ষ্য গ্রহণের জন্য ২৮ ও ২৯ সেপ্টেম্বর নির্ধারণ করেছে আদালত।

বুধবার (২২ সেপ্টেম্বর) সকাল সাড়ে ১০টা থেকে বিকেল সাড়ে ৫টা পর্যন্ত কক্সবাজার জেলা ও দায়রা জজ মোহাম্মদ ইসমাইলের আদালতে এ কার্যক্রম চলে। ৩য় দফার তৃতীয় দিনে মামলার অন্যতম সাক্ষী সেনা কর্মকর্তা সার্জেন্ট আয়ুব আলী, কক্সবাজার জেলা সদর হাসপাতালের আবাসিক মেডিক্যাল অফিসার (আরএমও) ডা. শাহীন আবদুর রহমান ও টেকনাফ উপজেলার মোক্তার আহমদের সাক্ষ্যগ্রহণ ও জবানবন্দি রেকর্ড করা হয়।

রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী ও কক্সবাজার জেলা ও দায়রা জজ আদালতের পাবলিক প্রসিকিউটর (পিপি) ফরিদুল আলম জানান, বুধবার দিনব্যাপী ৩ জন সাক্ষীর সাক্ষ্যগ্রহণ নেওয়া হয়েছে। এরাসহ এ পর্যন্ত ১৪ জন সাক্ষী আদালতে সাক্ষ্য দিয়েছেন। পরে আদালত চলতি মাসের ২৮ ও ২৯ তারিখ পরবর্তী স্বাক্ষ্যগ্রহণের দিন ধার্য করেন।

তিনি আরও জানান, রাষ্ট্রপক্ষ দ্রুত এ মামলার বিচার কাজ শেষ করতে তৎপর থাকলেও আসামিপক্ষের আইনজীবীরা বিচার বিলম্বিত করার অপচেষ্টা করে যাচ্ছে। তারা আদালতে বিভিন্ন অজুহাতে বার বার দরখাস্ত দিয়ে যাচ্ছে। আজ বুধবার আরও একটি দরখাস্ত দেন। কিন্তু, দেশের একটি বড় সংস্থার গোপন নথি চাওয়ায় আদালত দরখাস্তটি নাকচ করে দেন।

এর আগে গত ২৩ থেকে ২৫ আগস্ট টানা তিনদিন প্রথম দফায় ১ নম্বর সাক্ষী ও বাদী শারমিন শাহরিয়া ফেরদৌস ও ২ নম্বর সাক্ষী সাহেদুল ইসলাম সিফাতের সাক্ষ্যগ্রহণ শেষ হয়। একইভাবে গত ৫-৮ সেপ্টেম্বর ও ২০-২২ সেপ্টেম্বর  তিন দফার মোট ১৪ জন সাক্ষীর সাক্ষ্যগ্রহণ ও জেরা সম্পন্ন করা হয়।

উল্লেখ্য গত বছর ৩১ জুলাই রাতে কক্সবাজার-টেকনাফ মেরিন ড্রাইভ সড়কের টেকনাফের বাহারছড়া ইউনিয়নের শামলাপুর চেকপোস্টে পুলিশের গুলিতে নিহত হন মেজর সিনহা।

এ ঘটনায় গত বছর ৫ আগস্ট সিনহার বোন শারমিন শাহরিয়া ফেরদৌস বাদী হয়ে টেকনাফ থানার সাবেক ওসি প্রদীপ কুমার দাশ ও বাহারছড়া তদন্ত সাবেক ইনচার্জ পরিদর্শক লিয়াকত আলীসহ ৯ পুলিশ সদস্যের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেন। এ মামলায় ১৫ জনকে অভিযুক্ত করে আদ্লতে অভিযোগপত্র জমা দেয় র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ান (র‌্যাব)।

বাংলাদেশ সময়: ২১১৫ ঘণ্টা, সেপ্টেম্বর ২২, ২০২১
এসবি/এএটি

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa