ঢাকা, শুক্রবার, ১১ আষাঢ় ১৪২৮, ২৫ জুন ২০২১, ১৪ জিলকদ ১৪৪২

আইন ও আদালত

‘সুপ্রিম কোর্ট বার সভাপতি পদের মর্যাদা যেন ক্ষুণ্ন না হয়’

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৯৫৪ ঘণ্টা, মে ৬, ২০২১
‘সুপ্রিম কোর্ট বার সভাপতি পদের মর্যাদা যেন ক্ষুণ্ন না হয়’ খন্দকার মাহবুব হোসেন

ঢাকা: সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির সভাপতি পদের মর্যাদা যেন ক্ষুণ্ন না হয় সে বিষয়ে সবাইকে দায়িত্বশীল হওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন জ্যেষ্ঠ আইনজীবী খন্দকার মাহবুব হোসেন।

বৃহস্পতিবার (০৬ মে) এক ফেসবুক লাইভে এসে তিনি এ আহ্বান জানান।

এর আগে মঙ্গলবার (৪ মে) সভাপতির শূন্য পদ পূরণের লক্ষ্যে সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির বিশেষ সাধারণ সভায় দুই পক্ষের মধ্যে বাকবিতন্ডার ঘটনা ঘটে। এর মধ্যে একপক্ষ সদ্য সাবেক সভাপতি এ এম আমিন উদ্দিনকে সভাপতি হিসেবে ঘোষণা দিয়েছে।

যিনি বর্তমানে অ্যাটর্নি জেনারেলের দায়িত্ব পালন করছেন। তবে, সমিতির সম্পাদক বিশেষ সভা কোনো সিদ্ধান্ত ছাড়া মুলতবি ঘোষণা করেছেন।  

পরদিন এ নিয়ে দুই পক্ষ পাল্টাপাল্টি সংবাদ সম্মেলনও করে।

এ অবস্থায় সাবেক সভাপতি খন্দকার মাহবুব হোসেন বলেন, সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির সভাপতির পদটি অত্যন্ত সম্মানজনক ও গুরুত্বপূর্ণ পদ। শেরে বাংলা একে ফজলুল হকসহ অনেক খ্যাতিমান ব্যক্তি এই পদে অধিষ্ঠিত ছিলেন। তাই বর্তমান সভাপতির মৃত্যুর কারণে যে একটি পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে, সেই পরিস্থিতির কারণে আমাদের দায়িত্বশীল হতে হবে। যাতে এই পদের মর্যাদা কোনো রকম ক্ষুণ্ন না হয়।

২০২১-২০২২ সেশনের এ নির্বাচনে ১৪টি পদের মধ্যে সভাপতি পদসহ ৮টি পদে জয়ী হয় সরকার সমর্থক সম্মিলিত আইনজীবী সমন্বয় পরিষদ (সাদা)। অপরদিকে, সম্পাদক পদসহ বাকি ৬টি পদে জয়ী হয়েছে বিএনপি সমর্থক জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ঐক্য প্যানেল (নীল)।

সভাপতি পদে সাদা প্যানেলের প্রার্থী আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য ও সাবেক আইনমন্ত্রী আবদুল মতিন খসরু নির্বাচিত হন। সম্পাদক পদে নীল প্যানেলের ব্যারিস্টার রুহুল কুদ্দুস কাজল টানা দ্বিতীয়বারের মতো নির্বাচিত হয়েছেন।

নির্বাচনের পর গত ১৫ মার্চ আবদুল মতিন খসরু করোনা টেস্ট করান। টেস্টে পজিটিভ আসার পর ১৬ মার্চ তিনি সিএমএইচে ভর্তি হন। এর মধ্যে ১২ এপ্রিল সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির বার্ষিক সাধারণ সভা-২০২১ অনুষ্ঠিত হয়।

সভার শেষ পর্যায়ে বিদায়ী কমিটি নতুন কমিটিকে ফুল দিয়ে শুভেচ্ছ জানান। তবে, করোনা আক্রান্ত হওয়ার পর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন থাকায় নব নির্বাচিত সভাপতি আবদুল মতিন খসরু সভায় অংশ নিতে পারেননি।

এর দুইদিন পর ১৪ এপ্রিল আবদুল মতিন খসরু ইন্তেকাল করেন। ফলে সভাপতি পদটি শূন্য হয়ে যায়। পরে ২৭ এপ্রিল বিশেষ সাধারণ সভা আহ্বানের একটি বিজ্ঞপ্তি জারি করেন সমিতির সম্পাদক মো. রুহুল কুদ্দুস (কাজল)।

সে অনুসারে মঙ্গলবার বিশেষ সভা শুরু হয়েছিলো। সেখানে দুই পক্ষ হট্টগোল করে।

বাংলাদেশ সময়: ১৯৫৪ ঘণ্টা, মে ০৬, ২০২১
ইএস/এইচএডি/

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa