ঢাকা, শুক্রবার, ৩ বৈশাখ ১৪২৮, ১৬ এপ্রিল ২০২১, ০৩ রমজান ১৪৪২

আইন ও আদালত

প্রগতিশীল ছাত্র জোটের ছয় শিক্ষার্থীর জামিন

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৪০৬ ঘণ্টা, মার্চ ৭, ২০২১
প্রগতিশীল ছাত্র জোটের ছয় শিক্ষার্থীর জামিন

ঢাকা: প্রগতিশীল ছাত্র সংগঠনের মশাল মিছিল থেকে গ্রেফতার সাত শিক্ষার্থীর ছয়জনকে জামিন দিয়েছেন আদালত।

রোববার (৭ মার্চ) ঢাকার মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট রাজেশ চৌধুরী জামিনের এ আদেশ দেন।

জামিন পাওয়া শিক্ষার্থীরা হলেন- তামজীদ হায়দার, নজিব আমিন চৌধুরী জয়, আকিব আহম্মেদ, আরাফাত সাদ, নাজিফা জান্নাত ও জয়তী চক্রবর্তী। তবে এএসএম তানজিমুর রহমান নামে অপর শিক্ষার্থীর পক্ষে এদিন জামিনের কোনো আবেদন করা হয়নি।

আদালতে জামিন আবেদনের পক্ষে আইনজীবী ইমতিয়াজ আহমেদ, সোহেল আহমেদ ও নুরুদ্দিন শুনানি করেন।

গত ২৬ ফেব্রুয়ারি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এলাকায় মশাল মিছিলের সময় পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষের ঘটনায় এ সাতজনকে আটক করে পুলিশ। পরে তাদের বিরুদ্ধে পুলিশের ওপর হামলা, সরকারি কাজে বাধাদান ও হত্যাচেষ্টার অভিযোগে একটি মামলা দায়ের করে পুলিশ।

পরদিন তাদের আদালতে হাজির করে সাতদিনের রিমান্ড আবেদন করেন মামলার তদন্ত কর্মকর্তা শাহবাগ থানার এস আই শহীদুল ইসলাম। আসামিপক্ষে রিমান্ড বাতিল করে জামিন আবেদন করে তাদের আইনজীবীরা। ওইদিন আদালত রিমান্ড আবেদন নাকচ করে একদিনের জন্য জেলগেটে জিজ্ঞাসাবাদের আদেশ দেন। একইসঙ্গে জামিন আবেদন শুনানির জন্য ৩ মার্চ দিন রাখেন। তবে গত ৩ মার্চ তাদের জামিন আবেদন নাকচ হয়।

এর আগে লেখক মোশতাক আহমেদের কারাগারে মৃত্যুর ঘটনার প্রতিবাদে ও ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন বাতিলের দাবিতে প্রগতিশীল ছাত্র সংগঠনগুলো ২৬ ফেব্রুয়ারি সন্ধ্যায় একটি মশাল মিছিল বের করে। মিছিল পরবর্তী সময়ে পুলিশের লাঠিচার্জ ও তৎপরবর্তী ঘটনায় পুলিশ সদস্যকে হত্যাচেষ্টার অভিযোগে শাহবাগ থানায় এ মামলা দায়ের করা হয়। মামলায় এ সাতজন ও অজ্ঞাতনামা ১০০/১৫০ জনকে আসামি করে মামলা হয়েছে।

তাদের বিরুদ্ধে দণ্ডবিধির ১৪৩/১৪৭/১৪৯/১৮৬/৩৩২/৩৩৩/৩০৭/৩৫৩/৪২৭/১০৯ ধারায় এ মামলা দায়ের করেন শাহবাগ থানার এসআই মিন্টু মিয়া।

বাংলাদেশ সময়: ১৩৫৫ ঘণ্টা, মার্চ ০৭, ২০২১
কেআই/ওএইচ/

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
welcome-ad
Alexa