ঢাকা, শুক্রবার, ৭ আষাঢ় ১৪৩১, ২১ জুন ২০২৪, ১৩ জিলহজ ১৪৪৫

আইন ও আদালত

পতাকা বিকৃতির ঘটনায় মামলা, পিবিআইকে তদন্তের নির্দেশ 

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৮৪৭ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ২৯, ২০২০
পতাকা বিকৃতির ঘটনায় মামলা, পিবিআইকে তদন্তের নির্দেশ  ...

রংপুর: মহান বিজয় দিবসের অনুষ্ঠানে বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ে (বেরোবি) পতাকা বিকৃতি ও অবমাননার ঘটনায় ১৩ জনের বিরুদ্ধে আরও একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে।  

মঙ্গলবার (২৯ ডিসেম্বর) তাজহাট মেট্টোপলিটন আমলি ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের বিচারক ফজলে এলাহী বিষয়টি আমলে নিয়ে তদন্তের জন্য পিবিআইকে নির্দেশ দিয়েছেন।

এর আগে গতকাল সোমবার (২৮ ডিসেম্বর) আদালতে ১০ জন শিক্ষক ও ৩ কর্মকর্তার নাম উল্লেখ করে নালিশী দরখাস্ত করেন রংপুর মহানগর ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক শেখ আসিফ।  

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন আদালতের সহকারী পাবলিক প্রসিকিউটর আবু সাইদ সুমন।  

মামলা ও আদালত সূত্রে জানা যায়, গতকাল সোমবার (২৮ ডিসেম্বর) রংপুর মহানগর ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক শেখ আসিফ বাদী হয়ে বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ে বিজয় দিবস উদযাপন উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে পতাকা বিকৃতি ও অবমাননার বিরুদ্ধে আদালতে নালিশী দরখাস্ত করেন। সেখানে তিনি ১০ শিক্ষক ও ৩ কর্মকর্তার বিরুদ্ধে পতাকা বিকৃতির অভিযোগ আনেন।  
মঙ্গলবার (২৯ ডিসেম্বর) দুপুরে তাজহাট মেট্টোপলিটন আমলি ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের বিচারক ফজলে এলাহী বিষয়টি আমলে নিয়ে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনকে (পিবিআই) তদন্তের নির্দেশ দিয়েছেন।  

মামলার আসামিরা হলেন, গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের সহকারী অধ্যাপক তাবিউর রহমান প্রধান, ডেপুটি রেজিস্ট্রার (একাডেমিক) আমিনুর রহমান, ইতিহাস বিভাগের প্রভাষক সোহাগ আলী, গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের প্রভাষক রহমতুল্লাহ, বাংলা বিভাগের বিভাগীয় প্রধান পরিমল চন্দ্র বর্মণ, ভূগোল ও পরিবেশ বিজ্ঞান বিভাগের প্রভাষক শামীম হোসেন, গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের শিক্ষক কাউয়ুম, সমাজবিজ্ঞান বিভাগের প্রভাষক রাম প্রসাদ বর্মন, সহকারী প্রক্টর মাহামুদুল হাসান, মার্কেটিং বিভাগের সহকারী অধ্যাপক মাসুদ উল হাসান, বিজয় দিবস উদযাপন কমিটির আহ্বায়ক ও গণিত বিভাগের সহকারী অধ্যাপক হাফিজুর রহমান সেলিম, পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক দপ্তরের উপ পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক সামছুল হক এবং পরিকল্পনা ও উন্নয়ন দপ্তরের সহকারী রেজিস্ট্রার এম এম ইকবাল।

অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, গত ১৬ ডিসেম্বর মহান বিজয় দিবস উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে বেশ কয়েকজন শিক্ষক জাতীয় পতাকার বিকৃতি ও অবমাননা করেছেন। তারা সবুজের মধ্যে লাল বৃত্তের পরিবর্তে চতুর্কোনা আকৃতি দিয়েছেন যা সংবিধান ও আইনের সুস্পষ্ট লঙ্ঘন। এছাড়াও তার ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ফলাও করে প্রচার করেছেন। পরে এ নিয়ে সমালোচনা হলে তারা দোষ স্বীকার করে পোস্ট দিয়েছেন।  

এ বিষয়ে মামলার বাদী রংপুর মহানগর ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক শেখ আসিফ বাংলানিউজকে বলেন, বিজয় দিবসে জাতীয় পতাকা বিকৃতি আমার চেতনাকে আঘাত করেছে। দেশব্যাপী এ নিয়ে সমালোচনা হচ্ছে। দেশবিরোধী চক্র এভাবে আমাদের পতাকাকে অবমাননা করবে তা কোনভাবেই মেনে নিতে পারছিনা। আমি থানায় মামলা করতে গিয়েছিলাম। সেখানে আমাকে আদালতের অনুমতির কথা বলেছিলো তাই আদালতে মামলা দায়ের করেছি। বিচারক মামলাটি আমলে নিয়ে পিবিআইকে তদন্তের নির্দেশ দিয়েছেন।  

বিষয়টি নিশ্চিত করে রংপুর আদালতের সহকারী পাবলিক প্রসিকিউটর আবু সাইদ সুমন বাংলানিউজকে বলেন, মহানগর ছাত্রলীগের সেক্রেটারি শেখ আসিফ গতকাল আদালতে নালিশী দরখাস্ত করলে তাজহাট মেট্টোপলিটন আমলি আদালতের বিচারক ফজলে এলাহী বিষয়টি আমলে নিয়ে পিবিআইকে তদন্তের নির্দেশ দিয়েছেন।  

এর আগে এ ঘটনায় ৯ শিক্ষকসহ উপাচার্যের বিরুদ্ধে বিশ্ববিদ্যালয়ের দুইজন শিক্ষক ও একজন সাবেক ছাত্রলীগ নেতা তাজহাট থানায় দু’টি এজাহার করেছেন। গত রোববার (২০ ডিসেম্বর) রংপুরের চিফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের বিচারক শওকত আলী এ দু’টি অভিযোগ তদন্ত করে ১৫ দিনের মধ্যে প্রতিবেদন দাখিলের নির্দেশ দিয়েছেন।

বাংলাদেশ সময়: ১৮৪৪ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ২৯, ২০২০
আরএ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।