ঢাকা, শুক্রবার, ১০ আশ্বিন ১৪২৭, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৬ সফর ১৪৪২

ইসলাম

ফেনীতে ঈদের প্রধান জামাত সাড়ে ৭টায়

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৮২৯ ঘণ্টা, জুলাই ৩১, ২০২০
ফেনীতে ঈদের প্রধান জামাত সাড়ে ৭টায় ফেনী কেন্দ্রীয় জামে মসজিদে ঈদের প্রধান জামাত ৭টায়

ফেনী: ফেনী কেন্দ্রীয় জামে মসজিদে ঈদুল আজহার প্রধান জামাত সকাল সাড়ে ৭টায় অনুষ্ঠিত হবে।  

ইসলামিক ফাউন্ডেশন ফেনীর উপ-পরিচালক মঞ্জুরুল আলম মজুমদার বিষয়টি জানান।

তিনি জানান, সামাজিক দূরত্ব এবং স্বাস্থ্য নির্দেশিকা বজায় রেখে শহরের ১৬টি মসজিদে এবার ঈদুল আজহার প্রধান জামাত অনুষ্ঠিত হবে।

উপ-পরিচালক জানান, বিশ্বব্যাপী করোনাভাইরাস প্রাদুর্ভাবজনিত প্রেক্ষাপটে ঈদুল ফিতরের মতো ঈদুল আজহার নামাজের জামাতও খোলা জায়গার পরিবর্তে নিকটস্থ মসজিদে আদায়ের জন্য আহ্বান জানিয়েছে ধর্ম মন্ত্রণালয়।

অন্য জামাতগুলোর মধ্যে ফেনী আলীয়া মাদ্রাসা জামে মসজিদ সকাল সাড়ে ৭টায়, জহিরিয়া জামে মসজিদ সকাল ৭টায়, ফেনী কোর্ট মসজিদ সকাল ৭ টায়, লমি হাজারী জামে মসজিদ সকাল ৮টায় ও পুলিশ লাইন জামে মসজিদ সকাল ৮টায় ঈদুল আজহার নামাজ অনুষ্ঠিত হবে।

এছাড়াও সার্কিট হাউজ জামে মসজিদে সকাল ৮টায়, তমিজিয়া জামে মসজিদে সকাল ৭.১৫ মিনিট, পুরাতন রেজিস্ট্রি অফিস জামে মসজিদ সকাল ৮টায়, শান্তি কোম্পানি জামে মসজিদ সকাল সাড়ে ৭টায়, ফেনী রেলস্টেশন জামে মসজিদ সকাল ৭টায়, উকিল পাড়া মুন্সিবাড়ি জামে মসজিদে সকাল সাড়ে ৭টায়, কোর্ট বিল্ডিং মসজিদ ই নুর সকাল ৭টায়, সদর উপজেলা পরিষদ জামে মসজিদে সকাল ৮টায়, বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ড জামে মসজিদ সকাল সাড়ে ৭টায় ও উত্তর চাড়ীপুর মুক্তারবাড়ি জামে মসজিদে সকাল সাড়ে ৭টায় ঈদ জামাত অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা রয়েছে।

উপ-পরিচালক আরও জানান, ঈদের নামাজের জামাতের সময় মসজিদে কার্পেট বিছানো যাবে না। নামাজের আগে সম্পূর্ণ মসজিদ জীবানুনাশক দ্বারা পরিষ্কার করতে হবে। মুসল্লিগণ প্রত্যেকে নিজ নিজ দায়িত্বে জায়নামাজ নিয়ে আসবেন।

প্রত্যেককে নিজ নিজ বাসা থেকে ওজু করে মসজিদে আসতে হবে এবং ওজু করার সময় কমপক্ষে ২০ সেকেন্ড সাবান দিয়ে হাত ধুতে হবে। করোনা ভাইরাস সংক্রমণ রোধ নিশ্চিতকল্পে মসজিদে ওজুর স্থানে সাবান/হ্যান্ড স্যানিটাইজার রাখতে হবে এবং মসজিদের প্রবেশদ্বারে হ্যান্ড স্যানিটাইজার/হাত ধোঁয়ার ব্যবস্থাসহ সাবান-পানি রাখতে হবে। ঈদের নামাজের জামাতে আগত মুসল্লিকে অবশ্যই মাস্ক পরে মসজিদে আসতে হবে। মসজিদে সংরক্ষিত জায়নামাজ ও টুপি ব্যবহার করা যাবে না।

শিশু, বৃদ্ধ, যেকোনো ধরনের অসুস্থ ব্যক্তি এবং অসুস্থদের সেবায় নিয়োজিত ব্যক্তি ঈদের নামাজের জামাতে অংশ নেওয়া যাবে না।

করোনা ভাইরাস সংক্রমণ রোধ কল্পে মসজিদে জামাত শেষে কোলাকুলি এবং পরস্পর হাত মেলানো পরিহার করতে হবে। করোনা ভাইরাস মহামারি থেকে রক্ষা পাওয়ার জন্য পবিত্র ঈদুল আজহার নামাজ শেষে মহান রাব্বুল আলামিনের দরবারে দোয়া করার জন্য খতিব ও ইমামগণকে অনুরোধ করা হয়েছে।

জেলার অন্য উপজেলার কেন্দ্রীয় মসজিদগুলোতেও নিজস্ব সময়ে ঈদুল আজহার জামাত অনুষ্ঠিত হবে। আগামী শনিবার (১ আগস্ট) সারা দেশে একযোগে ঈদুল আজহা উদযাপিত হবে।

বাংলাদেশ সময়: ১৮২৭ ঘণ্টা, জুলাই ৩১, ২০২০
এসএইচডি/এনটি

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa