ঢাকা, মঙ্গলবার, ১৭ মাঘ ১৪২৯, ৩১ জানুয়ারি ২০২৩, ০৮ রজব ১৪৪৪

ইসলাম

হজে অনিয়ম: শুনানিতে ডাকা হয়েছে ২৯ এজেন্সিকে

| বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৬২১ ঘণ্টা, নভেম্বর ২৭, ২০১৭
হজে অনিয়ম: শুনানিতে ডাকা হয়েছে ২৯ এজেন্সিকে পবিত্র কাবা শরীফ। ছবি: ফাইল ফটো

বিগত হজ মৌসুমে হজ ব্যবস্থাপনায় নানা অনিয়মের দায়ে অভিযুক্ত বেশ কয়েকটি হজ এজেন্সিকে শুনানির জন্য ডেকেছে ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয়। 

ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের উপ-সচিব (হজ) মো. শরাফত জামান ও সহকারী সচিব (হজ-২) এস.এম মনিরুজ্জামান স্বাক্ষরিত পৃথক দু’টি নোটিশে এসব এজেন্সিকে শুনানির জন্য ডাকা হয়েছে।  

উপ-সচিব (হজ) মো. শরাফত জামান স্বাক্ষরিত নোটিশে বলা হয়েছে, ২০১৭ সনে বেশ কিছু হজ এজেন্সিসমূহের বিরুদ্ধে উত্থাপিত বিভিন্ন অভিযোগ যাচাই-বাছাইপূর্বক সুপারিশ প্রদানের নিমিত্তে কমিটি-১ এর নিকট ন্যস্ত অভিযোগসমূহের বিষয়ে মঙ্গলবার (২৮ নভেম্বর) ইসলামিক ফাউন্ডেশনের সভাকক্ষ বায়তুল মোকাররম, ঢাকায় এতদসংক্রান্ত গঠিত কমিটি-১ কর্তৃক শুনানি গ্রহণ করা হবে।

অভিযুক্তদের নির্ধারিত সময়ে প্রয়োজনীয় প্রস্ততিসহ উপস্থিত থাকার জন্য নির্দেশক্রমে অনুরোধ করা হলো। অভিযুক্ত এজোন্সগুলো হলো-

চট্টগ্রামের এয়ার বাংলা ইন্টারন্যাশনাল লিমিটেড, মেসার্স আল সাফা এয়ার ট্রাভেলস,  আল আমানাত ট্রাভেলস, ঢাকার আকবার ট্রাভেলস ইন্টারন্যাশনাল, গালফ ট্রাভেলস এন্ড ট্যুরস, হারামাইন ট্রাভেলস, তানভির ট্রাভেলস, এয়ার ল্যান্ড ইন্টারন্যাশনাল লিমিটেড, দ্য সিটি ট্রাভেলস, ফিউচার এসোসিয়েটস, হিমালয়া এক্সপ্রেস, সিলেটের সিমন ওভারসিজ এক্সপ্রেস ও রাজশাহীর আকবর ট্রাভেলস।  

অন্যদিকে একই বিষয়ে অন্য আরেকটি কমিটি কর্তৃক আরও বেশ কয়েকটি হজ এজেন্সিকে শুনানির জন্য ডাকা হয়েছে। সহকারী সচিব (হজ-২) এস. এম মনিরুজ্জামান স্বাক্ষরিত নোটিশে বলা হয়েছে, ২০১৭ সনে হজ এজেন্সিসমূহের বিরুদ্ধে উথাপিত বিভিন্ন অভিযোগ যাচাই- বাছাইপূর্বক  সুপারিশ প্রদানের নিমিত্ত কমিটি-২ এর নিকট ন্যস্ত অভিযোগসমূহের ১৬টি এজেন্সির অভিযোগের বিষয়ে বৃহস্পতিবার (৩০ নভেম্বর) ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে (কক্ষ নং ১৫১৫, ভবন নং-০৬, বাংলাদেশ সচিবালয়, ঢাকা) শুনানি গ্রহণ করা হবে।  

শুনানিতে অভিযুক্ত এজেন্সির মালিকদের নির্ধারিত সময়ে প্রয়োজনীয় প্রস্তুতিসহ উপস্থিত থাকার জন্য নির্দেশক্রমে অনুরোধ করা হলো।

অভিযুক্ত এজেন্সিগুলো হলো-
ঢাকার সানজিদ ট্রাভেলস ইন্টারন্যাশনাল, ফেয়ার লাইন ট্রাভেলস, খাজা এয়ার ট্রাভেলস, হাজারী হজ ট্যুরস অ্যান্ড ট্রাভেলস, কার্নিভাল ট্যুরস অ্যান্ড ট্রাভেলস, বুশরা ট্রাভেলস অ্যান্ড ট্যুরস, আল রাইয়ান এয়ার ইন্টারন্যাশনাল, গ্রিন ইন্টারন্যাশনাল ট্রাভেলস, হেজাজ ট্যুরস অ্যান্ড ট্রাভেলস, জিয়ারত-ই-কাবা ট্যুরস অ্যান্ড ট্রাভেলস, মাসুম এয়ার ট্রাভেলস, এমসিও (Mco) ট্রাভেলস অ্যান্ড ট্যুরস, নামিরা ট্রাভেলস অ্যান্ড ট্যুরস, নওশাদ ট্রাভেলস অ্যান্ড ট্যুরস, রয়েল তাইবা এভিয়েশন ও ফেনীর কাজী ট্রাভেলস অ্যান্ড ট্যুরস।

বেশ কয়েক বছর ধরে হজ ব্যবস্থাপনায় বেসরকারি বিভিন্ন এজেন্সি নানা অনিয়ম করে শাস্তি পেয়েছে। এরই ধারাবাহিকতায় এবারও শাস্তির মুখে এসব এজেন্সি। অভিযোগ গুরুতর হলে লাইসেন্স বাতিলসহ বিভিন্ন অঙকের জরিমানা দিতে হকে এজেন্সিগুলোকে।  

ইসলাম বিভাগে লেখা পাঠাতে মেইল করুন: [email protected]

বাংলাদেশ সময়: ২২১৯ ঘণ্টা, নভেম্বর ২৭, ২০১৭
এমএইউ/

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa