ঢাকা, সোমবার, ১ বৈশাখ ১৪৩১, ১৫ এপ্রিল ২০২৪, ০৫ শাওয়াল ১৪৪৫

আন্তর্জাতিক

পাকিস্তানের সাবেক পররাষ্ট্রমন্ত্রী খাজা আসিফ গ্রেফতার

আন্তর্জাতিক ডেস্ক | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৪৪০ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ৩০, ২০২০
পাকিস্তানের সাবেক পররাষ্ট্রমন্ত্রী খাজা আসিফ গ্রেফতার খাজা আসিফ

পাকিস্তানের সাবেক পররাষ্ট্রমন্ত্রী খাজা আসিফকে গ্রেফতার করেছে দেশটির দুর্নীতি দমন শাখার পুলিশ। পাকিস্তানের সাবেক প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরীফের আমলে দেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ছিলেন তিনি।

১৯৯১ সালে প্রথমবার খাজা আসিফ মন্ত্রিত্ব পান। বর্তমানে তিনি ইমরান খান সরকারের অন্যতম বিরোধী মুখ।

নওয়াজ শরীফের অবর্তমানে দলের গুরুত্বপূর্ণ নেতা তিনি। বিরোধীদের বক্তব্য, রাজনৈতিক কারণেই খাজা আসিফকে গ্রেফতার করা হয়েছে। আসিফকে গ্রেফতার করা নিয়ে টুইট করেছেন খোদ নওয়াজ শরীফ।

তার অভিযোগ, ইমরান খানের সরকার বিরোধীদের বিরুদ্ধে দমনমূলক আচরণ করছে। আসিফের নিঃশর্ত মুক্তি চেয়েছেন নওয়াজ শরীফ। যদিও তার বিরুদ্ধেও শাস্তির খাঁড়া ঝুলছে।

মঙ্গলবার (২৯ ডিসেম্বর) দলীয় কার্যালয়ে একটি বৈঠকে যোগ দিয়েছিলেন আসিফ। সেখান থেকে বের হওয়ার সঙ্গে সঙ্গেই তাকে গ্রেফতার করেন ন্যাশনাল অ্যাকাউন্টেবিলিটি ব্যুরোর (এনএবি) অফিসাররা। অভিযোগ, আসিফের আয়ের সঙ্গে তার সম্পত্তির সামঞ্জস্য নেই। কোথা থেকে এত সম্পত্তি তিনি করেছেন, তার হিসাব দিতে পারেননি বলেই তাকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

এনএবি’র প্রেস বিবৃতিতে বলা হয়েছে, খাজা আসিফকে এর আগেও তলব করা হয়েছিল। কিন্তু তিনি যাননি। সম্পত্তির হিসাবও দিতে পারেননি।

এনএবি’র বক্তব্য, ১৯৯১ সালে খাজা আসিফের মোট সম্পত্তি ছিল পাঁচ দশমিক এক মিলিয়ন পাকিস্তানি রুপি। ২০১৮ সালে তা বেড়ে হয়েছে ২২১ মিলিয়ন পাকিস্তানি রুপি। এত অর্থ কোথা থেকে এল তার কাছে? আসিফ এর আগে দাবি করেছিলেন, আরব আমিরাতের একটি সংস্থায় কাজ করতেন তিনি। সেখান থেকে এই পরিমাণ সম্পত্তি হয়েছে তার।

কিন্তু এনএবির বক্তব্য, যে সময় আসিফ আরব আমিরাতে কাজ করতেন বলে দাবি করছেন, সে সময় তিনি দেশেই ছিলেন। ওই কোম্পানির কাগজ তিনি জাল করেছেন বলে অভিযোগ।

বিরোধীরা অবশ্য এই পুরো বিষয়টিকেই চক্রান্ত বলে মনে করছেন। আসিফকে গ্রেফতার করায় ইমরান খানের ওপর বিরোধীদের চাপ আরো বাড়বে বলেই মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা।

বাংলাদেশ সময়: ১৪৩৮ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ৩০, ২০২০
এমজেএফ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।