ঢাকা, রবিবার, ৮ বৈশাখ ১৪৩১, ২১ এপ্রিল ২০২৪, ১১ শাওয়াল ১৪৪৫

আন্তর্জাতিক

টানা পঞ্চমবার গুজরাট বিজেপির, হিমাচলও ঝুলিতে

‌আন্তর্জাতিক ডেস্ক | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ০৭৫০ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ১৮, ২০১৭
টানা পঞ্চমবার গুজরাট বিজেপির, হিমাচলও ঝুলিতে দিল্লিতে বিজেপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে সমর্থকদের উৎসব

ঢাকা: ভারতের গুজরাট ও হিমাচল প্রদেশের বিধানসভা নির্বাচনে জয়লাভ করেছে কেন্দ্রে ক্ষমতাসীন ভারতীয় জনতা পার্টি (বিজেপি)। 

সোমবার (ডিসেম্বর ১৮) সকালে ভোট গণনার শুরু হওয়ার পর শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত বিজেপি গুজরাটে ১০৬টি আসনে সুস্পষ্ট ব্যবধানে এগিয়ে।

ভারতের বর্তমান প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির জন্মস্থান এই রাজ্যে সরকার গড়তে বিজেপির প্রয়োজন ছিলো ৯২টি আসন।

গত নির্বাচনের থেকে কিছুটা ভালো ফল করা বিরোধী কংগ্রেস এগিয়ে আছে ৭৪টি আসনে।

এর মধ্য দিয়ে টানা পঞ্চমবারের মত বিজেপি সরকার গড়তে যাচ্ছে ভারতের অন্যতম শিল্প সমৃদ্ধ ও উন্নত রাজ্য হিসেবে পরিচিত রাজ্যটিতে।

গত ১৯ বছর ধরেই গুজরাটে ক্ষমতাসীন বিজেপি। সর্বশেষ ২০১২ সালের নির্বাচনে ১১৫টি আসন নিয়ে গুজরাটে ক্ষমতাসীন হয়েছিলেন রাজ্যের তৎকালীন মুখ্যমন্ত্রী এবং বর্তমানে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী।  

অপরদিকে গত নির্বাচনের থেকে কিছুটা উন্নতি করেছে কংগ্রেস। গত নির্বাচনে কংগ্রেস পেয়েছিলো ৬১ আসন। তবে এবার ৭৪টি আসনে জিততে চলেছে তারা।

গুজরাটের পাশাপাশি হিমালয় পাদদেশে অবস্থিত ভারতের উত্তরাঞ্চলীয় হিমাচল প্রদেশের বিধানসভা নির্বাচনেও সুস্পষ্ট ব্যবধানে এগিয়ে রয়েছে রাজ্যের বিরোধী দলের আসনে থাকা বিজেপি।

রাজ্যের বিধানসভার ৬৮টি আসনের মধ্যে বিজেপি সুস্পষ্ট ব্যবধানে এগিয়ে রয়েছে ৪৪টি আসনে। সরকার গড়তে এই রাজ্যে প্রয়োজন ৩৫টি আসন। গত নির্বাচনে হিমাচলে সরকার গঠন করেছিলো কংগ্রেস।  বিজেপি ২৬টি আসন পেয়ে বিরোধী দলের ভূমিকায় অবতীর্ণ হয়েছিলো। সোমবারের ভোট গণনায় কংগ্রেস এগিয়ে আছে মাত্র ২০টি আসনে।

এদিকে দুই রাজ্যেই বিজেপির বিজয়ের খবর ছড়িয়ে পড়ায় এখন ভারতজুড়েই উৎসবের আমেজ বিজেপি শিবিরে। দিল্লির কেন্দ্রীয় কার্যালয় এবং গুজরাটের গান্ধীনগরের দলীয় কার্যালয়ে রীতিমতো উৎসব শুরু হয়ে গেছে বলে জানিয়েছে সংবাদমাধ্যম।  

উল্লেখ্য, গত ৯ নভেম্বর হিমাচল প্রদেশে এবং ৯ ও ১৪ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত হয় গুজরাটের বিধানসভার নির্বাচনের ভোটগ্রহণ।  

বাংলাদেশ সময়: ১৩৩৪ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ১৮, ২০১৭
আরআই

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।