ঢাকা, সোমবার, ১ বৈশাখ ১৪৩১, ১৫ এপ্রিল ২০২৪, ০৫ শাওয়াল ১৪৪৫

আন্তর্জাতিক

ট্রাম্পের ঘোষণা বাতিলে প্রস্তাব উঠছে নিরাপত্তা পরিষদে

আন্তর্জাতিক ডেস্ক | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ০৭৩৪ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ১৭, ২০১৭
ট্রাম্পের ঘোষণা বাতিলে প্রস্তাব উঠছে নিরাপত্তা পরিষদে ট্রাম্পের ‘জেরুজালেম সিদ্ধান্ত’ ফুঁসিয়ে তুলেছে বিশ্ববাসীকে

জেরুজালেমকে ইসরায়েলের রাজধানী হিসেবে স্বীকৃতি দিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের ঘোষণা বাতিলে প্রস্তাবনা উত্থাপনের বিবেচনা করছে জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদ। এই প্রস্তাবনায় জেরুজালেম প্রশ্নে নতুন কোনো ঘোষণাকে বৈধতা না দেওয়া এবং ঘোষণা হলেও সেটাকে অবশ্যই বাতিল করে দেওয়ার তাগিদ থাকবে।

মিশরের প্রণীত এই এক পৃষ্ঠার প্রস্তাবনার খসড়া শনিবার (১৬ ডিসেম্বর) নিরাত্তা পরিষদের স্থায়ী পাঁচ সদস্যসহ মোট ১৫ সদস্য দেশের মধ্যে বিতরণ করা হয়। আগামী সপ্তাহের শুরুতেই অর্থাৎ সোম বা মঙ্গলবার (১৮ ও ১৯ ডিসেম্বর) এই প্রস্তাবনা পাসের জন্য ভোটাভুটিতে তোলা হবে।

 

আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যম বলছে, এই প্রস্তাবনায় নতুন ঘোষণা বা সিদ্ধান্ত বাতিলের দাবি যেমন থাকবে, তেমনি থাকবে কোনো দেশ যেন জেরুজালেমে তাদের ইসরায়েল দূতাবাস না খোলে- সেই দাবিও।

প্রস্তাবনায় যুক্তরাষ্ট্র বা দেশটির প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের কথা উল্লেখ না থাকলেও মনে করা হচ্ছে ভোটাভুটিতে ভেটো দেবে ওয়াশিংটন। নিরাপত্তা পরিষদে কোনো প্রস্তাব পাস হতে অন্তত নয় ভোট প্রয়োজন হয়। তবে নিরাপত্তা পরিষদের স্থায়ী পাঁচ সদস্য- যুক্তরাষ্ট্র, রাশিয়া, চীন, যুক্তরাজ্য ও ফ্রান্স- এতে ভেটো দিলে তা আটকে যাবে।

গত সপ্তাহে ট্রাম্প যুক্তরাষ্ট্রের দীর্ঘদিনের নীতি থেকে সরে এসে জেরুজালেমকে ইসরায়েলের রাজধানী হিসেবে স্বীকৃতি দেন। তিনি ঘোষণা দেন, সামনের বছরগুলোতেই তেলআবিব থেকে জেরুজালেমে যুক্তরাষ্ট্রের দূতাবাস সরিয়ে নেওয়া হবে।

মার্কিন প্রেসিডেন্টের এই সিদ্ধান্তকে ইসরায়েল-ফিলিস্তিন শান্তি প্রক্রিয়ার প্রধান বাধা হিসেবে দেখা হচ্ছে। কারণ আন্তর্জাতিক সমঝোতা অনুযায়ী, ফিলিস্তিনিরা পূর্ব জেরুজালেমকে তাদের ভবিষ্যৎ ‘স্বাধীন’ রাষ্ট্রের রাজধানী হিসেবে দেখে আসছে।  

এছাড়া ১৯৯৩ সালের ফিলিস্তিন-ইসরায়েল শান্তিচুক্তি অনুযায়ী, জেরুজালেম নগরীর বিষয়টি আলোচনার মাধ্যমে নিষ্পত্তি হতে হবে।

আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের সমঝোতা-চুক্তিকে উপেক্ষা করে ট্রাম্পের এই সিদ্ধান্ত মুসলিম ও আরব বিশ্বে ক্ষোভের ঝড় তোলে। পশ্চিমা অনেক শক্তিও এতে বিস্মিত হয়। এই প্রেক্ষিতে সম্প্রতি আরব লিগ ও মুসলিম দেশগুলোর জোট ওআইসি জরুরি বৈঠক করে। আরব লিগ এমন একটি প্রস্তাবনার বিষয়ে মতৈক্যে পৌঁছায়। আর ওআইসি ট্রাম্পের সিদ্ধান্তের পাল্টা পূর্ব জেরুজালেমকে ফিলিস্তিনের রাজধানী হিসেবে স্বীকৃতি দেয়।  

বিশ্লেষকরা মনে করছেন, যুক্তরাষ্ট্রের অনুমেয় ভেটোতে প্রস্তাবনাটি শেষ তক পাস হতে না পারলেও একক সিদ্ধান্ত নেওয়ায় ট্রাম্প আরও কোণঠাসা হয়ে পড়বেন।

খসড়া প্রস্তাবনার ব্যাপারে জাতিসংঘে নিযুক্ত যুক্তরাষ্ট্রের মিশনের কোনো মন্তব্য মেলেনি। যদিও ট্রাম্পের ঘোষণার পরপরই দেশটির রাষ্ট্রদূত নিকি হ্যালে বলেছিলেন, প্রেসিডেন্ট যা করেছেন তা সঠিকই।

বাংলাদেশ সময়: ১৩২৫ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ১৭, ২০১৭
এইচএ/

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।