ঢাকা, সোমবার, ২৩ মাঘ ১৪২৯, ০৬ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ১৪ রজব ১৪৪৪

আন্তর্জাতিক

অলি-প্রচন্দ’র ১০৭, দেউবার ঝুলিতে মাত্র ২১ আসন

| বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১১২৬ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ১১, ২০১৭
অলি-প্রচন্দ’র ১০৭, দেউবার ঝুলিতে মাত্র ২১ আসন  নেপালের নির্বাচনে কার কতো আসন।

ঢাকা: নেপাল নির্বাচনের ভোট গণনা প্রায় শেষের পথে। ফেডারেল পার্লামেন্টের সরাসরি নির্বাচন হওয়া ১৬৫ আসনের মধ্যে এখন আর মাত্র ১৩টি আসনের ভোট গণনা চলছে। আর প্রভিনশিয়াল অ্যাসেম্বলির ৩৩০ আসনের মধ্যে গণনা চলছে অবশিষ্ট মাত্র ২৩ আসনে।

ফেডারেল পার্লামেন্টে গণনা শেষ হওয়া ১৫২ আসনের মধ্যে কমিউনিস্ট পার্টি অব নেপাল-ইউনাইটেড মার্কসিস্ট লেনিনিস্ট (সিপিএন-ইউএমএল) ও মাওবাদী কেন্দ্র’র গড়া বাম জোট জিতে নিয়েছে ১০৭টি আসন। এর মধ্যে ইউএমএল ৭৫টিতে এবং মাওবাদী কেন্দ্র ৩২টি আসনে জয় পেয়ছে।

আর ভরাডুবি নিশ্চিত হওয়া ক্ষমতাসীন নেপালী কংগ্রেস ‍আসন পেয়েছে মাত্র ২১টি। অন্যান্য দল জিতেছে ২৪টি আসনে।

দাদেলধুরা-১ আসনে হাড্ডাহাড্ডি লড়াইয়ের পর বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শের বাহাদুর দেউবা ৭ হাজারেরও কম ভোট নির্বাচিত হলেও তার দলের অনেক হেভিওয়েট ক্যান্ডিডেটই বাম জোটের অখ্যাত প্রার্থীদের কাছে ধরাশায়ী হয়েছেন।

তবে বাম জোটের শীর্ষ নেতা ইউএমএল প্রধান কেপি শর্মা অলি ও মাওবাদী কেন্দ্র প্রধান পুষ্প কমল দাহাল যার যার আসনে জয় পেয়েছেন।  

অবশিষ্ট ১৩ আসনের মধ্যে ইউএমএল ৬টিতে, মাওবাদী কেন্দ্র ৩টিতে ও অন্যান্য দল ৪টি এগিয়ে রয়েছে। তবে নেপালি কংগ্রেস এখন আর ফেডারেল পার্লামেন্টের কোনো আসনেই এগিয়ে নেই।

প্রভিনশিয়াল অ্যাসেম্বলির ফল ঘোষিত ৩০৫ আসনের মধ্যে ২২২টিই ঝুলিতে পুরেছে বাম জোট। কংগ্রেস জিতেছে মাত্র ৩৯টি আসনে। ৪৪টি আসনে অন্য দলের প্রার্থীরা জয়ী হয়েছে। আর গণনা চলতে থাকা আসনগুলোর মধ্যে বামজোট ১৮টিতে এগিয়ে থাকলেও নেপালি কংগ্রেস মাত্র ৪টি আসনে এগিয়ে আছে।

গত ২৬ নভেম্বর প্রথম দফার ভোট হয় নেপালে। দ্বিতীয় দফার ভোট হয় ৭ ডিসেম্বর। বর্তমানে সব আসনের ভোট গণনা চলছে। ভোট শেষ হওয়ার পর সব কেন্দ্র থেকে ব্যালট বাক্স নিয়ে এসে কেন্দ্রীয়ভাবে নেপাল নির্বাচনের ভোট গণনা করা হয়।

বাংলাদেশ সময়: ১৭২০ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ১১, ২০১৭
জেডএম/

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa