ঢাকা, শনিবার, ৭ বৈশাখ ১৪৩১, ২০ এপ্রিল ২০২৪, ১০ শাওয়াল ১৪৪৫

আন্তর্জাতিক

মোদিকে ‘শালীন’ ভাষা ব্যবহারের পরামর্শ দিলেন মনমোহন

আন্তর্জাতিক ডেস্ক | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ০৬০৮ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ৩, ২০১৭
মোদিকে ‘শালীন’ ভাষা ব্যবহারের পরামর্শ দিলেন মনমোহন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি ও সাবেক প্রধানমন্ত্রী মনমোহন সিং; ফাইল ফটো

ঢাকা: গুজরাটের আসন্ন ভোটকে সামনে রেখে শাসক দল বিজেপি এবং প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির নির্বাচনী প্রচারের ভাষা ও ভঙ্গিমা নিয়ে প্রশ্ন তুললেন ভারতের সাবেক প্রধানমন্ত্রী মনমোহন সিং।

একই সঙ্গে আর্থিক সংস্কারে মোদির গৃহীত ‘নোটবাতিল’ কর্মসূচি ও জিএসটি (গুডস অ্যান্ড সার্ভিস) কর্মসূচি ব্যর্থ হয়েছে বলেও উল্লেখ করেন তিনি।

গুজরাটের নির্বাচনী প্রচারণায় গিয়ে বাণিজ্যিক নগরী সুরাটের এক জনসভায় বক্তৃতা দেয়ার সময় মনমোহন সিং এ সব কথা বলেন।

মোদিকে তার নির্বাচনী প্রচারণায় আরও মার্জিত ভাষা ব্যবহারের আহ্বান জানিয়ে মনমোহন সিং বলেন, জনসভায় জমায়েত হওয়া মানুষকে মুগ্ধ করতে এবং তাদের কাছে ভোট চাওয়ার জন্য মোদির উচিত আরও ‘শালীন’ ভাষা ও উপায় ব্যবহার করা।

একই সঙ্গে কংগ্রেসকে আক্রমণের সময় শাসক দলের নেতা কর্মীদের নিম্নশ্রেণীর ভাষা ব্যবহারের ঘটনাতেও ক্ষোভ প্রকাশ করেন মনমোহন সিং।

তিনি বলেন, প্রতিপক্ষকে আক্রমণের সময় মোদি এবং বিজেপি নেতাদের অমার্জিত কথাবার্তায় দেশের গণতান্ত্রিক ভাবমূর্তি নষ্ট হচ্ছে।

এ সময় রাজনীতিবিদদের অবশ্যই কথাবার্তায় শালীনতা বজায় রাখা উচিত বলেও উল্লেখ করেন মনমোহন সিং।

মনমোহন সিং স্থানীয় ব্যবসায়ীদের উদ্দেশ্যে বলেন, মোদি নির্বাচনে জয়লাভের আগে যেসব প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন তা ব্যর্থ হয়েছে।

তিনি বলেন, সুরাটে ব্যবসা চলে ব্যবসায়ীদের মধ্যে পারস্পরিক বিশ্বাসের মাধ্যমে, কিন্তু যদি আপনাদের মধ্যে বিশ্বাস না থাকে তবে সুরাটের ব্যবসা ধসে পড়বে। আপনারা প্রধানমন্ত্রী মোদির ‘আচ্ছে দিন’ প্রচারণায় বিশ্বাস স্থাপন করেছিলেন। অথচ সেই স্বপ্ন ভেঙ্গে গেছে।

মোদির বাণিজ্যিক নীতিতে দেশীয় শিল্প ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে এবং চীন বাণিজ্যিকভাবে লাভবান হয়েছে বলেও অভিযোগ করেন মনমোহন সিং।

উল্লেখ্য, নরেন্দ্র মোদির আগে ভারতের প্রধানমন্ত্রী ছিলেন মনমোহন সিং। একই সঙ্গে ভারতের অর্থনৈতিক সংস্কারের জনক হিসেবেও অভিহিত করা হয় তাকে।

বাংলাদেশ সময়: ১২০৫ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ০৩, ২০১৭
আরআই

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।