ঢাকা, রবিবার, ১২ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১, ২৬ মে ২০২৪, ১৭ জিলকদ ১৪৪৫

আন্তর্জাতিক

নো ওবামা, নো ক্রাই

আন্তর্জাতিক ডেস্ক | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১১০৫ ঘণ্টা, জানুয়ারি ২০, ২০১৭
নো ওবামা, নো ক্রাই বারাক ওবামা

যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট হিসেবে বারাক ওবামা তার শেষ ভাষণে আমেরিকানদের প্রতি আবেগময় আহ্বানে গণতন্ত্রের জন্য আগামী বছরগুলোর চ্যালেঞ্জ নিয়ে সতর্ক করেছিলেন।

গেলো সপ্তাহে নিজ শহর শিকাগোতে হাজারো মানুষের উপস্থিতিতে সে ভাষণে ওবামা প্রেসিডেন্সির একটি মূলমন্ত্রও তুলে ধরেছিলেন। তিনি বলেছিলেন, পরিবর্তন তখনই আসে যখন সাধারণ মানুষ তাতে সম্পৃক্ত হয়, আর সবাই মিলে এক সঙ্গে দাঁড়িয়ে তার দাবি জানায়।

বৃহস্পতিবার ছিলো প্রেসিডেন্ট অফিসে ওবামার শেষ দিন। সেদিনও হাজারো মানুষ জড়ো হয়েছিলো ওয়াশিংটনের পেনসিলভেনিয়া এভিনিউর সাদা রঙের বাড়িটির সামনে। সেদিন যারা এসেছিলো, তাদের অনেকেরই ছিলো এক মনোভাব। যেনো তারা ওবামার শেষ আহ্বানটি হৃদয়ে ধারণ করেছেন। আর তারা ভাবছেন, ডোনাল্ড ট্রাম্পের প্রেসিডেন্সিতে তারা তাদের যেকোনও অধিকার নিশ্চিতের পক্ষে কঠোর পায়ে দাঁড়াতে প্রস্তুত।

‘থ্যাংকস ওবামা’ নামের একটি কর্মসূচির ডাকে সাড়া দিয়ে সেদিন শত শত তরুণ তরূণী সববেত হয়েছিলো, মূলত এমন একটি আহ্বানের জন্য বিদায়ী প্রেসিডেন্টকে ধন্যবাদ জানাতে।

মারিয়া ইলিংওর্থ ছিলেন তাদেরই একজন। এসেছিলেন ভার্জিনিয়া থেকে। তিনি বলেন, ওবামার ভাষণটি আমার মধ্যে একটি চেতনা জাগ্রত করেছে। তা হচ্ছে কিছু একটা করার। প্রতিদিনই একটা কিছু ভালো কাজ করা। চিত্রশিল্পী এই নারী তার দুই তরুণী কন্যাকেও নিয়ে এসেছিলেন। ইলিংওর্থ বলেন আমি দেরি করতে চাইনি। এরই মধ্যে আমি পারিবারিক সহিংসতার বিরুদ্ধে কাজ শুরু করেছি। বিপদগ্রস্ত বয়ষ্কদের সহায়তা করছেন। তার ধারনা এই মানুষগুলোর পক্ষে ট্রাম্প প্রেসিডেন্সিতে টিকে থাকা কঠিন হবে।

‘থ্যাংকস ওবামা’ নামের কর্মসূচিটি নিউইয়র্কের ২৯ বছর বয়ষ্কা এটর্নি বেজিদ ডেভিসের মস্তিষ্কপ্রসূত। তিনি আসলে প্রেসিডেন্ট ওবামাকে কৃতজ্ঞতা জানাতে চেয়েছিলেন। একটি ফেসবুক গ্রুপ খুলে এই ধন্যবাদের প্রক্রিয়া শুরু করেন তিনি। সেই ডাকেই সাড়া দিয়ে শত শত মানুষ গত বৃহস্পতিবার ওবামাকে ধন্যবাদ জানাতে হোয়াইট হাউজ ঘিরে সমবেত হন। তারা সবাই থ্যাঙ্কস ওবামা টি-শার্ট পরেছিলেন। এছাড়াও ছিলো ওবামা ক্যাম্পেইন পিন, হ্যাট ও স্টিকার। যারা হাজির হতে পারেননি তারা সোশ্যাল মিডিয়ায় হ্যাশট্যাগ #থ্যাংকসওবামা ব্যবহার করে তাদের প্রশংসার কথা জানিয়েছেন।
থ্যাংকস ওবামা
এক পর্যায়ে ওবামার জন্মভূমির সম্মানে একটি হাওয়াইয়ান ড্যান্স উপস্থাপন করা হয়। বব মার্লের গান ‘নো ওম্যান, নো ক্রাই’ এর কলি পাল্টে নো ওবামা নো ক্রাই গাওয়া হয়।

ঠিক সাতটা ডেভিসের নেতৃত্বে হাজার হাজার নারীপুরুষ একসঙ্গে দাঁড়িয়ে ওবামাকে সম্মান জানান। যা লাইভ স্ট্রিমিংয়ে ফেসবুক ইনস্টাগ্রাম ও পেরিসস্কোপে দেখানো হয়।

কেনিয়া থেকে যুক্তরাষ্ট্রে অভিবাসী রোজ আমোলো বলছিলেন, তিনি মনে করেন না ওবামার মতো আরেকজন প্রেসিডেন্ট আমেরিকা পাবে। আর ঘোষণা দেন, প্রেসিডেন্ট ওবামার বার্তা তিনি মনে ধারণ করে কাজ করে যাবেন।

আরো জানালেন, মোটেই বসে নেই তিনি, এরই মধ্যে প্রজনন স্বাস্থ্য বিষয়ক একটি অ্যাডভোকেসি গ্রুপের সঙ্গে কাজ শুরু করেছেন।
ওবামাকে বিজ্ঞানমনষ্ক একজন হিসেবেই মনে করেন স্যাম। তিনিও এসেছিলেন ধন্যবাদ জানাতে। ওবামার বক্তব্যে উদ্বুদ্ধ হয়ে তিনি ভবিষ্যতে বিজ্ঞান নিয়ে কথা বলবেন। আর নিশ্চিত করবেন যৌক্তিক কোনও উদ্যোগই ব্যর্থ হবার নয়।

বাংলাদেশ সময় ১৫৫৩ ঘণ্টা, জানুয়ারি ২০১৭
এমএমকে

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।