ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ৫ বৈশাখ ১৪৩১, ১৮ এপ্রিল ২০২৪, ০৮ শাওয়াল ১৪৪৫

আন্তর্জাতিক

ইয়াসির আরাফাতের বাড়ি গুঁড়িয়ে দিয়েছে ইসরায়েল

আন্তর্জাতিক ডেস্ক | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৪৫১ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ২৪, ২০২৪
ইয়াসির আরাফাতের বাড়ি গুঁড়িয়ে দিয়েছে ইসরায়েল

ফিলিস্তিনের সাবেক প্রেসিডেন্ট ও দেশটির মুক্তিসংগ্রামের সংস্থা মুনাজ্জামাত্‌ আল তাহ্‌রি ফিলিস্তিনিয়াহ্‌র (পিএলও) প্রতিষ্ঠাতা প্রধান ইয়াসির আরাফাতের বাড়ি ধ্বংস করে দিয়েছে ইসরায়েলি সেনারা। গাজা উপত্যকায় অবস্থিত বাড়িটি গুঁড়িয়ে দেওয়ার খবর নিশ্চিত করেছে ফিলিস্তিনের সংস্কৃতি মন্ত্রণালয়।

আনাদোলু এজেন্সি জানিয়েছে, বৃহস্পতিবার ফিলিস্তিনের সংস্কৃতিমন্ত্রী আতিফ আবু সাঈফ এক প্রেস বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে ইয়াসির আরাফাতের বাড়ি গুঁড়িয়ে দেওয়ার খবর দেন।

বিবৃতিতে তিনি বলেন, ইসরায়েলের অব্যাহত আগ্রাসন ও ধ্বংসযজ্ঞের অংশ হিসেবে দখলদার সেনারা প্যালেস্টাইন লিবারেশন অরগানাইজেশনের প্রতিষ্ঠাতা প্রধানের বাড়িটি ধ্বংস করে দেয়। ফিলিস্তিনি জনগণের মর্যাদা ও সংগ্রামের প্রতীক মুছে ফেলতেই এই অপকাণ্ড ঘটানো হয়েছে।

গাজা উপত্যকায় অবস্থিত বাড়িটিতে ইয়াসির আরাফাত ১৯৯৫ থেকে ২০০১ সাল পর্যন্ত বসবাস করেছেন। বাড়িতে তার ব্যক্তিগত ও পারিবারিক জিনিসপত্র ছিল।

ফিলিস্তিনি কর্তৃপক্ষের সূচনাকালে গাজায় তার উপস্থিতির সময় বাড়িটি ফিলিস্তিনি জনগণের ইতিহাসে অসংখ্য গুরুত্বপূর্ণ মুহূর্তের সাক্ষী হয়ে আছে। ইসরায়েলি সেনাদের এই ধ্বংসযজ্ঞ বর্বরতার নতুন প্রমাণ বলেও মন্তব্য করেন আবু সাঈফ।

ফিলিস্তিনি মুক্তিসংগ্রামের প্রধান ও অন্যতম নেতা ১৯২৯ সালে মিসরের কায়রোয় জন্ম নেন। ১৯৪৪ সালে কায়রোর ইউনিভার্সিটি অব কিং ফুয়াদ ওয়ানে সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিংয়ে ভর্তি হন। ১৯৪৮ সালে ইসরায়েল ফিলিস্তিনি ভূখণ্ড দখল করলে তিনি অন্য ছাত্রদের সঙ্গে বিশ্ববিদ্যালয় ত্যাগ করেন। পরবর্তীতে তিনি ফিলিস্তিনের পক্ষে যুদ্ধে অংশ নেন। ইয়াসির আজীবন স্বাধীন ফিলিস্তিন রাষ্ট্রের স্বপ্ন দেখতেন।

অর্ধশতাব্দীর বেশি সময় ধরে সংগ্রাম চালিয়েছিলেন তিনি। সহ্য করেছেন নির্বাসিত জীবন। সশস্ত্র সংগ্রাম ও আলোচনার মাধ্যমে ফিলিস্তিনের স্বাধীনতার দাবি করেছেন। জীবনের শেষ দিনগুলোয় তিনি গৃহবন্দি ছিলেন। ২০০৪ সালের ১১ নভেম্বর ইতিহাসের এ মহান নেতার মৃত্যু হয়।

বাংলাদেশ সময়: ১৪৫০ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ২৪, ২০২৪
এমজে

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
welcome-ad