ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯, ২৬ মে ২০২২, ২৪ শাওয়াল ১৪৪৩

তথ্যপ্রযুক্তি

এসএমই ই-ডাটাবেজ প্রণয়নের পাইলট কর্মসূচি শুরু

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২২২৮ ঘণ্টা, জানুয়ারি ২০, ২০২২
এসএমই ই-ডাটাবেজ প্রণয়নের পাইলট কর্মসূচি শুরু

ঢাকা: দেশের মেধাবী ক্ষুদ্র ও মাঝারি উদ্যোক্তাদের মধ্যে সেতুবন্ধনের সুযোগ করে দিতে এসএমই ই-ডাটাবেজ প্রণয়নের পাইলট কর্মসূচি শুরু হয়েছে।

ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্প (এসএমই) ফাউন্ডেশন এবং এটুআই-এর যৌথ আয়োজনে বৃহস্পতিবার (২০ জানুয়ারি) রাজধানীর আগারগাঁওয়ে অবস্থিত পর্যটন ভবনের সম্মেলন কক্ষে এসএমই ই-ডাটাবেজ প্রণয়নের পাইলট কর্মসূচির উদ্বোধন করেন শিল্প মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী নূরুল মজিদ মাহমুদ হুমায়ূন।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহ্মেদ পলক এবং শিল্প মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব কাজী সাখাওয়াত হোসেন।

উদ্বোধন অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন এসএমই ফাউন্ডেশনের চেয়ারপার্সন অধ্যাপক ড. মো. মাসুদুর রহমান।

এসএমই ই-ডাটাবেজ প্রণয়নের পাইলট কর্মসূচির উদ্বোধন অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি শিল্প মন্ত্রী নূরুল মজিদ মাহমুদ হুমায়ূন বলেন, এসএমই ফাউন্ডেশনের প্রধান কাজ হলো ক্ষুদ্র ও মাঝারি উদ্যোক্তা সৃষ্টি করা। প্রধানমন্ত্রী যেমনটা বলেন আমরা চাকরি দিব না চাকরি দিতে পারে এমন উদ্যোক্তা তৈরি করবো। সে লক্ষ্যে আমরা সমন্বিতভাবে কাজ করে যাচ্ছি। আজকে এসএমই ই-ডাটাবেজ তৈরির মধ্য দিয়ে যে যাত্রা শুরু হলো তা শুধু ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্প খাতই নয় সেই সঙ্গে ইউনিয়ন পর্যায়ে উদ্যোক্তাদেরও বিশাল কাজে আসবে। সরকারের যে কোনো ধরণের পরিকল্পনা গ্রহণ, সুবিধা বা প্রণোদনা দেওয়ার ক্ষেত্রে এই ডাটাবেজের থেকে এসএমই উদ্যোক্তাদের সঠিক তথ্য পাওয়া যাবে।

এসএমই ই-ডাটাবেজ প্রণয়নের পাইলট কর্মসূচি উদ্বোধনের মধ্যদিয়ে যে কার্যক্রম শুরু হয়েছে তা ভবিষ্যতেও অব্যাহত থাকবে বলেও জানান তিনি।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে আইসিটি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহ্মেদ পলক বলেন, দেশে উদ্যোক্তা তৈরিতে শিল্প মন্ত্রণালয়ের সঙ্গে একের পর এক কাজ করে যাচ্ছে আইসিটি বিভাগের এটু্আই। ২০৪১ সাল নাগাদ উন্নত অর্থনীতির উদ্ভাবনী বাংলাদেশ গড়ার জন্য দেশে উদ্যোক্তা তৈরি করতে হবে। উদ্যোক্তা তৈরিতে যে ধরণের সহযোগিতা দরকার সেগুলো যথাযথভাবে দেওয়ায় দেশের মেধাবী ক্ষুদ্র ও মাঝারি উদ্যোক্তাদের মধ্যে সেতুবন্ধন তৈরিতে সিএসএমই ই-ডাটাবেজ কাজ করবে।

তিনি আরও বলেন, আমি মনে করি- উদ্যোক্তাদের জন্য যে সেন্ট্রাল ডাটাবেজ তৈরি হচ্ছে তা কন্টাক্টলেস, পেপারলেস, ডায়নামিক ও স্মার্ট ডাটাবেজ হবে। এই ডাটাবেজে উদ্যোক্তারা শুধু নিবন্ধনই করবেন না এখান থেকে যাতে তারা সরকারের অন্যান্য সেবা- আর্থিক, বিনিয়োগ ও নীতিগত সহায়তা পেতে পারেন সে সুবিধা থাকবে। যার মাধ্যমে সরকারের এসব সুযোগ-সুবিধা পাওয়ার যোগ্য উদ্যোক্তারা তথ্য-উপাত্ত উপস্থাপনের মাধ্যমে আবেদন করতে পারেন। আর এসএমই উদ্যোক্তাদের জন্য সেই সুযোগটা তৈরি করে দিতে আইসিটি বিভাগের এটুআই সহায়তা দিবে।

শিল্প মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব কাজী সাখাওয়াত হোসেন তার বিশেষ অতিথির বক্তব্যে বলেন, বাংলাদেশের অর্থনীতির প্রাণ হলো ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্প বা এসএমই খাত। দেশের এসএমই উদ্যোক্তাদের জন্য ই-ডাটাবেজ তৈরি অত্যন্ত সময়োপযোগী উদ্যোগ। এ ধরণের কর্মসূচি দেশের এসএমই খাতের উন্নয়নে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে বলে আমি মনে করি।

অনুষ্ঠানের শুভেচ্ছা বক্তব্যে এটুআই-এর প্রকল্প পরিচালক ড. দেওয়ান মুহাম্মদ হুমায়ূন কবীর বলেন, দারিদ্রমুক্ত সুখী সমৃদ্ধ বাংলাদেশ গড়তে এসএমই খাতকে প্রণোদনা দেওয়ার ব্যবস্থা করতে হবে। এতদিন এসএমই খাতের কোনো ডাটাবেজ না থাকার কারণে এ খাতে সঠিক পরিকল্পনা নেওয়া সম্ভব হচ্ছিল না। ক্ষুদ্র ও মাঝারি উদ্যোক্তাদের সরকারের প্রণোদনা সঠিকভাবে পৌঁছে দেওয়ার সুযোগ করে দিতেই এসএমই ই-ডাটাবেজ প্রণয়ন কর্মসূচি বাস্তবায়ন করা হবে।

সভাপতির বক্তব্যে এসএমই ফাউন্ডেশনের চেয়ারপার্সন অধ্যাপক ড. মো. মাসুদুর রহমান বলেন, ডাটাবেজ তৈরির মাধ্যমে শুধুমাত্র সিদ্ধান্ত গ্রহণেই সহজতর হচ্ছে তা নয়। আজকে যে ডাটাবেজ তৈরির উদ্বোধন হচ্ছে এতে সেসব উদ্যোক্তারা সংযুক্ত হবেন তারা সরকারি-বেসরকারি এবং বিভিন্ন পর্যায়ের তাদের সে ধরণের সুযোগ-সুবিধা বা কাঠামোগত সহযোগিতা দরকার হচ্ছে সেগুলো এই ডাটাবেজে সংযুক্ত হওয়ার মাধ্যমে সহজে উপভোগ করতে পারবেন। এজন্য আমি মনে করি ক্ষুদ্র ও মাঝারি উদ্যোক্তাদের জন্য এই ডাটাবেজ তৈরি করা অত্যন্ত জরুরি। সারাদেশের এসএমই উদ্যোক্তাদের একটি ডাটাবেজ এর আওতায় নিয়ে আসার জন্য এটুআই-এর কারিগরি সহযোগিতায় ও ইউনিয়ন ডিজিটাল সেন্টারের মাধ্যমে এসএমই উদ্যোক্তাদের এসএমই ই-ডাটাবেজ-এ সংযুক্ত করা হবে।

অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য দেন এসএমই ফাউন্ডেশনের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ড. মো. মফিজুর রহমান এবং এসএমই ই-ডাটাবেজের ওপর বিশদ উপস্থাপনা প্রদান করেন এটুআই-এর স্ট্র্যাটেজি অ্যান্ড ইনোভেশন স্পেশালিস্ট আসাদ-উজ-জামান। এছাড়াও অন্যান্যদের মধ্যে অনুষ্ঠানে শিল্প মন্ত্রণালয়, এসএমই ফাউন্ডেশন, এটুআই-এর কর্মকর্তাবৃন্দ এবং বিভিন্ন গণমাধ্যমকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

বাংলাদেশ সময়: ১০২৭ ঘণ্টা, জানুয়ারি ২০, ২০২২
এইচএমএস/এনএইচআর

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
welcome-ad
Alexa