ঢাকা, রবিবার, ১২ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১, ২৬ মে ২০২৪, ১৭ জিলকদ ১৪৪৫

তথ্যপ্রযুক্তি

মোবাইল নেটওয়ার্কের মান উন্নয়নে টাওয়ার নির্মাণের প্রতিশ্রুতি

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২১৪৩ ঘণ্টা, নভেম্বর ৫, ২০২০
মোবাইল নেটওয়ার্কের মান উন্নয়নে টাওয়ার নির্মাণের প্রতিশ্রুতি ...

ঢাকা: গ্রাহক সেবার মান উন্নয়নে শক্তিশালী মোবাইল নেটওয়ার্ক কাঠামো গঠন এবং প্রত্যন্ত এলাকা পর্যন্ত এর সুফল পৌঁছে দেওয়ার লক্ষ্যে টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রক সংস্থা বিটিআরসি কার্যালয়ে কমিশনের লাইসেন্সপ্রাপ্ত মোবাইল টাওয়ার নির্মাতা প্রতিষ্ঠানসমূহের প্রতিনিধিদের সঙ্গে একটি গুরুত্বপূর্ণ বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়।

বিটিআরসির চেয়ারম্যান মো. জহুরুল হক এবং ইঞ্জিনিয়ারিং অ্যান্ড অপারেশন্স বিভাগের কমিশনার ইঞ্জিনিয়ার মো. মুহিউদ্দিন আহমেদের উপস্থিতিতে অনুষ্ঠিত বৈঠকে ৪টি লাইসেন্সপ্রাপ্ত প্রতিষ্ঠানের প্রতিনিধিরা তাদের অপারেশনাল কার্যক্রমের বিভিন্ন দিক উপস্থাপন করেন।

সামিট কমিউনিকেশন লি. এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মো. আরিফ আল ইসলাম বলেন, তারা বাংলালিংকের সঙ্গে সার্ভিস লেভেল এগ্রিমেন্ট সম্পন্ন সাপেক্ষে ২৫৯টি টাওয়ার নির্মাণে চুক্তিবদ্ধ হয়েছেন। ২০২০ সালের ডিসেম্বরের মধ্যে ১৫০টি এবং ২০২১ এর ফেব্রুয়ারি অব্দি বাকি ১০৯টি টাওয়ার নির্মাণ করবেন।

ইডটকো বাংলাদেশ লি. এর পরিচালক (প্রকৌশল) সাব্বির আহমেদ জানান, তার প্রতিষ্ঠান ইতোমধ্যে টাওয়ার নির্মাণ কার্যক্রম চালু রেখেছে। তবে অপারেশনাল কার্যক্রম পরিচালনায় কিছু প্রতিবন্ধকতা রয়েছে।

কীর্তনখোলা টাওয়ার বাংলাদেশ লি. এর ইনফ্রাস্ট্রাকচার সার্ভিসেসের প্রধান আনিস আহমেদ বলেন, তারা বিভিন্ন অপারেটরের সঙ্গে বাণিজ্যিক আলাপ আলোচনায় প্রায় শেষের দিকে রয়েছেন। আশা করা যাচ্ছে, শিগগির দেশের বিভিন্ন স্থানে টাওয়ার নির্মাণ শুরু করতে পারবেন।

এবি হাইটেক কনসোর্টিয়াম লি. এর প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা হোসেন মঞ্জুরুল হাসান বলেন, তাদের আগামী তিন মাসে ৩০০ টাওয়ার নির্মাণের পরিকল্পনা রয়েছে। তারা মোবাইল অপারেটর রবির সঙ্গে ১০০টি টাওয়ার নির্মাণে চুক্তিবদ্ধ হয়েছেন এবং ইতোমধ্যে ৪৭টি টাওয়ার নির্মাণ করে রবিকে বুঝিয়ে দিয়েছেন। আশা করছেন বাকি ৫৩টির কার্যক্রম এই মাসেই শেষ করবেন।

কমিশনের চেয়ারম্যান লাইসেন্সপ্রাপ্ত মোবাইল টাওয়ার নির্মাতা প্রতিষ্ঠানসমূহকে মোবাইল অপারেটরদের সঙ্গে সমন্বয় ও সহযোগিতার মাধ্যমে কার্যক্রম পরিচালনার বিষয়ে গুরুত্ব দেন।

এসময় টাওয়ার নির্মাণে স্থানীয় সরকার পর্যায়ের প্রতিবন্ধকতাসমূহের বিষয়ে কমিশনের দৃষ্টি আকর্ষণ করা হয়। এ বিষয়ে কমিশন থেকে প্রয়োজনীয় সহযোগিতার আশ্বাস দেওয়া হয়।

কমিশনের উপস্থিত কর্মকর্তারা তাদের এ পদক্ষেপসমূহের প্রশংসা করে নিয়ম মেনে এ কার্যক্রম ত্বরান্বিত করার উপর গুরুত্বারোপ করেন।

বাংলাদেশ সময়: ২১৪৩ ঘণ্টা, নভেম্বর ০৫, ২০২০
এমআইএইচ/এইচএডি

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।