ঢাকা, মঙ্গলবার, ১৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১, ২৮ মে ২০২৪, ১৯ জিলকদ ১৪৪৫

তথ্যপ্রযুক্তি

অ্যামেচার রেডিও পরীক্ষায় উত্তীর্ণদের উচ্চতর লাইসেন্স

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২২৪৯ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ৮, ২০১৮
অ্যামেচার রেডিও পরীক্ষায় উত্তীর্ণদের উচ্চতর লাইসেন্স বিটিআরসিতে ‘অ্যামেচার রেডিও সার্ভিস পরীক্ষা-২০১৮’ পরীক্ষা অনুষ্ঠিত

ঢাকা: লাইসেন্স নিতে আগ্রহী ২৮৬ জন প্রার্থী ‘অ্যামেচার রেডিও সার্ভিস পরীক্ষা-২০১৮’তে অংশ নিয়েছে। রমনায় বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশনে (বিটিআরসি) শনিবার সাড়ে ১১টা থেকে ঘণ্টাব্যাপী এ পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

বিটিআরসির স্পেকট্রাম বিভাগ বিগত বছরের মতো এবারও দেশের আগ্রহী শিক্ষার্থী, কর্মজীবী, ডক্টরেট ডিগ্রিধারী প্রশিক্ষক ও বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক, সাংবাদিক এবং সংশ্লিষ্ট প্রযুক্তি ব্যবহারকারীকে লাইসেন্স দেওয়ার উদ্দেশে এ পরীক্ষা নেওয়া হয়।
 
কমিশনের চেয়ারম্যান মো. জহুরুল হক এবং স্পেকট্রাম বিভাগের মহাপরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মো. নাসিম পারভেজ পরীক্ষা কক্ষ পরিদর্শন করেন।


 
বিটিআরসি চেয়ারম্যান বলেন, অ্যামেচার রেডিও বা হ্যাম রেডিও অপারেটররা দুর্যোগকালে বিভিন্ন স্বেচ্ছাসেবী কাজে অংশ নেয়। এটি একটি শখ। দেশের অ্যামেচার রেডিও অপারেটর বাড়ানোর জন্য বিটিআরসি নিয়মিত পরীক্ষার আয়োজন করে আসছে।
 
নাসিম পারভেজ বলেন, দেশে অ্যামেচার রেডিও জনপ্রিয় করতে আগামীতে অ্যামেচার রেডিও পরীক্ষায় উত্তীর্ণদের প্রাথমিক লাইসেন্স এবং উচ্চতর লাইসেন্স দিতে পারে। এজন্য ইন্টারন্যাশনাল টেলিকমিউনিকেশন ইউনিয়নের সঙ্গে আলাপ-আলোচনা করা হবে।
 
তিনি আরো বলেন, লাইসেন্স যে পায় সেটা তার জন্য সম্মানজনক। এক হাজার টাকা বার্ষিক লাইসেন্স ফি কমানোর জন্য কমিশন বৈঠকে আলোচনা করা হবে।
 
গতবছরও অ্যামেচার রেডিও সার্ভিস পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়েছে। এবারের পরীক্ষায় অংশগ্রহণের সর্বনিম্ন শিক্ষাগত যোগ্যতা এসএসসি এবং বয়স ১৮। অ্যামেচার রেডিও সার্ভিস পরীক্ষাতে উত্তীর্ণ পরীক্ষার্থীগণকে বিটিআরসি হতে ‘অ্যামেচার রেডিও সার্ভিস সার্টিফিকেট’ দেওয়া হবে। পরবর্তীতে উত্তীর্ণ পরীক্ষার্থীদের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে তাদের অনুকূলে ‘কল সাইন’ এবং ‘অ্যামেচার রেডিও লাইসেন্স’ দেওয়া হবে।
 
অ্যামেচার রেডিও (হ্যাম রেডিও হিসেবেও পরিচিত) সাধারণত নির্দিষ্ট বেতার তরঙ্গে নিজস্ব বিনোদন, অবাণিজ্যিকভাবে তথ্য আদান-প্রদান, গবেষণা, ব্যক্তিগত প্রশিক্ষণ এবং জরুরি অবস্থায় ব্যবহৃত একটি টেলিযোগাযোগ সার্ভিস।
 
‘অ্যামেচার’ শব্দটি সাধারণত আর্থিক সংশ্লিষ্টতাবিহীন সম্পূর্ণ ব্যক্তিগতভাবে প্রযুক্তি সংক্রান্ত বিষয়ে আগ্রহী ব্যবহারকারীকে বাণিজ্যিক ব্রডকাস্টিং, জননিরাপত্তা প্রদানকারী সংস্থা অথবা পেশাদার টু-ওয়ে সার্ভিস হতে পৃথক করার জন্য ব্যবহার করা হয়।
 
দৈব দুর্বিপাক, জরুরি অবস্থায় অ্যামেচার রেডিও সার্ভিস টেলিযোগাযোগ ব্যবস্থার একটি গুরুত্বপূর্ণ অংশ হিসেবে ভূমিকা রাখে।
 
১৯৯১ সালের ১২ সেপ্টেম্বর সাবেক বাংলাদেশ তরঙ্গ ও বেতার বোর্ডের ১৮তম সভায় দেশে প্রথম অ্যামেচার রেডিও সার্ভিস প্রবর্তনের জন্য লাইসেন্স দেওয়ার সিদ্ধান্ত হয়। ১৯৯৫ সালের ১৪ ডিসেম্বর দেশে প্রথমবারের মত অ্যামেচার রেডিও পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়। বাংলাদেশ তরঙ্গ ও বেতার বোর্ড হতে ফল প্রকাশ হয় পরের বছরের ২০ জানুয়ারি। এরপর বাংলাদেশ তরঙ্গ ও বেতার বোর্ডের অধীনে একাধিকবার অ্যামেচার রেডিও পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়।
 
পরবর্তীতে বিটিআরসি হতে ২০০৩, ২০০৮, ২০১৩ এবং ২০১৭ সালে অ্যামেচার রেডিও পরীক্ষা গ্রহণ করা হয়। ২০১৭ সালের পরীক্ষায় ২৫৪ জনের মধ্যে ১৭৭ জন উত্তীর্ণ হন। উত্তীর্ণদের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে বিটিআরসি হতে ৭০ শতাংশ ‘অ্যামেচার রেডিও লাইসেন্স’ ইস্যু করা হয়েছে এবং এরমধ্যে ৩০ শতাংশ অ্যামেচার রেডিও আমদানির অনুমতি পত্র দেওয়া হয়েছে।
 
বর্তমানে ৪০০ এরও অধিক ব্যক্তি অ্যামেচার রেডিও লাইসেন্স গ্রহণ করে ব্যক্তিগত উদ্যোগে এ রেডিও পরিচালনা করছে।
 
বাংলাদেশ সময়: ১৭৩৫ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ০৮, ২০১৮
এমআইএইচ/এসএইচ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।