ঢাকা, বুধবার, ৭ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১, ২২ মে ২০২৪, ১৩ জিলকদ ১৪৪৫

তথ্যপ্রযুক্তি

রাজস্ব আয় ও গ্রাহক বেড়েছে রবি’র

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৭০৮ ঘণ্টা, নভেম্বর ২৯, ২০১৫
রাজস্ব আয় ও গ্রাহক বেড়েছে রবি’র

ঢাকা: মোবাইল অপারেটর রবি আজিয়াটা লিমিটেডের রাজস্ব আয় ও গ্রাহক বেড়েছে। নেটওয়ার্ক সম্প্রসারণ এবং গুণগত মানের সেবা দেওয়ার জন্য বিনিয়োগও বাড়িয়েছে অপারেটরটি।


 
রোববার (২৯ নভেম্বর) গুলশানে রবি’র করপোরেট অফিসে সংবাদ সম্মেলনে চলতি বছরের তৃতীয় প্রান্তিকের (জুলাই-সেপ্টেম্বর) ব্যবসায়িক প্রতিবদনে এ তথ্য জানায় রবি।
 
সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, চলতি বছরের প্রথম ৯ মাসে রবি’র ৩১ লাখ নতুন গ্রাহক যোগ হয়েছে। এতে রবি’র মোট গ্রাহক সংখ্যা হয়েছে ২ কোটি ৮৪ লাখ। যা দেশে মোট মোবাইল ফোন ব্যবহারকারীর ২১.৬ শতাংশ।
 
এ ৯ মাসে গত বছরের একই সময়ের তুলনায় রাজস্ব প্রবৃদ্ধি বেড়েছে ৬.৭ শতাংশ। যা উল্লেখযোগ্য অগ্রগতি হিসেবে দেখছে রবি।
 
এরমধ্যে ডাটা থেকে রাজস্ব ১০০ শতাংশের বেশি বেড়েছে, গ্রাহকের জন্য উদ্ভাবনী অফার এবং ৩.৫জি নেটওয়ার্ক ক্রমাগত বিনিয়োগের ফলে ডাটার ব্যবহার এবং এ খাত থেকে রাজস্ব আয় বেড়েছে।

রবি’র ম্যানেজিং ডিরেক্টর ও সিইও সুপুন বীরাসিংহে বলেন, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম সাময়িক বন্ধ থাকায় ৩০ শতাংশ ডাটা ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। এতে ২/৩ শতাংশ মুনাফা কমলেও রাষ্ট্রীয় গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্তে তাদের কোনো আপত্তি নেই।  
 
সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, নেটওয়ার্ক বিস্তারে ক্রমাগত বিনিয়োগ এবং পণ্য ও সেবা নিয়ে কঠোর প্রতিযোগিতার কারণে প্রথম ৯ মাসে রবি’র পরিচালন মুনাফা হয়েছে ৩৬.৭ শতাংশ।
 
২.৫জি/৩.৫জি নেটওয়ার্ক বিস্তারে বিনিয়োগের কারণে কর পরবর্তী মুনাফা হয়েছে ৭.৮ শতাংশ। যা গত বছরের একই সময়ের তুলনায় কিছুটা কম।

সংবাদ সম্মেলনে আরও জানানো হয়, গ্রাহকের প্রয়োজনীয় প্যাকেজ রেট- এক্ষেত্রে ৯, ২৯ ও ৭৯ টাকার রিচার্জ অফারও ভালো ফল দিয়েছে।

অন্যদিকে তৃতীয় প্রান্তিকে ঈদ-উল ফিতর ও ঈদ-উল আযহা উদযাপনও রাজস্ব বৃদ্ধিতে সহায়ক হয়েছে।
 
তৃতীয় প্রান্তিকে ডাটা ব্যবহার ৬৪ দশমিক ৬ শতাংশ বৃদ্ধি পেয়েছে এবং এ খাত থেকে রাজস্ব বৃদ্ধি পেয়েছে ১৪.৯ শতাংশ।

চলতি বছরে তৃতীয় প্রান্তিকে রবি’র পরিচলন মুনাফা ১ দশমিক ৭ শতাংশ বৃদ্ধি পেয়ে ৪৮০ কোটিতে দাঁড়িয়েছে। অন্যদিকে কর পরবর্তী মুনাফা বেড়েছে ২০ দশমিক ৪ শতাংশ বা ১১০ কোটি টাকা।

২০১৪ সালের তৃতীয় প্রান্তিকে রবি’র রাজস্ব ছিল ১ হাজার ২১০ কোটি টাকা। ২০১৫ সালের তৃতীয় প্রান্তিকে তা ১০.৪ শতাংশ বৃদ্ধি পেয়ে ১ হাজার ৩৪০ কোটিতে দাঁড়িয়েছে। বাজারে তীব্র প্রতিযোগিতা ও ওভার-দ্য-টপ (ওটিটি) সেবার মাধ্যমে ভয়েসের ক্ষেত্রে বিকল্প সেবার ব্যবহার বৃদ্ধির ফলে রবিসহ টেলিযোগাযোগ শিল্পে এ সেবা থেকে রাজস্বের পরিমাণ কমেছে।

রবি ৩.৫জি নেটওয়ার্ক বিস্তার ও ২.৫জি’র ভয়েস ও ডাটা সেবার মান আরও উন্নত করতে ব্যাপক বিনিয়োগ করে যাচ্ছে বলে সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়। কার্যক্রম শুরুর পর থেকে রবি’র মোট মূলধনী ব্যয় হয়েছে ১৬ হাজার ১০ কোটি টাকা। যার মধ্যে ২০১৫ সালের তৃতীয় প্রান্তিকে মূলধনী ব্যয়ের পরিমাণ ৪৩০ কোটি টাকা।

দেশের ৬৪টি জেলায় ৮ হাজার ৫৫৫টি সাইটের মাধ্যমে নেটওয়ার্ক কভারেজ নিশ্চিত করেছে রবি। যার মধ্যে ২ হাজার ৯৫০টির বেশি ৩.৫জি সাইট।  

সুপুন বীরাসিংহে বলেন, দেশজুড়ে আমাদের ৩.৫জি নেটওয়ার্ক ছড়িয়ে দেওয়ায় এ বছরের শুরু থেকেই লক্ষ্যণীয়ভাবে ডাটা সেবা গ্রহণের অগ্রগতি দেখা যাচ্ছে। গ্রাহকদের জন্য সর্বোচ্চ মানসম্মত ২.৫জি ও ৩.৫জি মোবাইল সেবা প্রদান করতে আমরা নেটওয়ার্ক খাতে বিনিয়োগ আগের চেয়ে বাড়িয়েছি।

চিফ করপোরেট অ্যান্ড পিপল অফিসার মতিউল ইসলাম নওশাদ ছাড়াও কর্মকর্তারা সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন।

বাংলাদেশ সময়: ১৭০৮ ঘণ্টা, নভেম্বর ২৯, ২০১৫/আপডেট: ২০৪৮ ঘণ্টা
এমআইএইচ/জেডএস

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।