ঢাকা, শুক্রবার, ১৯ ফাল্গুন ১৪২৭, ০৫ মার্চ ২০২১, ২০ রজব ১৪৪২

স্বাস্থ্য

‘সরকারি নিয়মেই বেসরকারিভাবে টিকা আমদানি করতে হবে’

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২২৩৫ ঘণ্টা, জানুয়ারি ১৫, ২০২১
‘সরকারি নিয়মেই বেসরকারিভাবে টিকা আমদানি করতে হবে’

ঢাকা: সরকারের নিয়ম-কানুন মেনেই বেসরকারিখাতকে করোনার ভাইরাসের টিকা আমদানি করতে হবে বলে জানিয়েছেন স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক (ডিজি) অধ্যাপক ডা. আবুল বাসার মোহাম্মদ খুরশীদ আলম।

শুক্রবার (১৫ জানুয়ারি) সন্ধ্যা ৬টায় ডক্টরস ফর হেলথ অ্যান্ড এনভায়রনমেন্টের উদ্যোগে ‘কোভিড-১৯ ভ্যাক্সিন: প্রেক্ষিত বাংলাদেশ’ বিষয়ে ওয়েবিনারে তিনি এ কথা বলা বলেন।

ডা. আবুল বাসার মোহাম্মদ খুরশীদ আলম বলেন, বেসরকারিখাতকে যদি করোনার ভাইরাসের টিকা আমদানি ও টিকাদান করতে দেওয়া হয়, তাহলে তা সরকারের যে সব নিয়ম-কানুন আছে, সেগুলো মেনেই করতে হবে। বেসরকারিখাতকে ডিজি ড্রাগ অ্যাডমিনিস্ট্রেশন থেকে অনুমোদন নিতে হবে। যেভাবে প্রথম পর্যায়ের টিকা আনা হচ্ছে, পরবর্তীতে তাদেরও সেইভাবেই আনতে হবে। এবিষয়ে বৃহস্পতিবার (১৪ জানুয়ারি) একটা খসড়া নীতিমালা তৈরি হয়েছে। আগামী দু’একদিনের মধ্যে এ নীতিমালা চূড়ান্ত হবে।

তিনি বলেন, বেসরকারিখাতের টিকা অবশ্যই কিনে নিতে হবে। বর্তমানে যেমন বেসরকারিভাবে আরটিপিসিআর টেস্ট করা হচ্ছে, সরকারিভাবে এ টেস্টের মূল্য অনেক কম। প্রাইভেট ক্ষেত্রে এ টেস্টের মূল্য সরকার তিন হাজার নির্ধারণ করে দিয়েছে। প্রাইভেট সেক্টরের সঙ্গে কথা বলেই টিকার মূল্য নির্ধারণ করা হবে। ডিজি ড্রাগ অ্যাডমিনিস্ট্রেশনকে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে, যাদের করোনা ভাইরাসের টিকা আমদানি করার সক্ষমতা রয়েছে, সেইসব ফার্মাসিটিউক্যাল কোম্পানির সঙ্গে আগামী রোববার (১৭ জানুয়ারি) আলোচানা করে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।

সবাই কি করোনা ভাইরাসের অ্যাপ ব্যবহার করতে পারবেন, না মধ্যসত্ত্বভোগী তৈরি হবে এমন প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেন, বৃহস্পতিবার রাতে আইসিটি প্রতিমন্ত্রীর সঙ্গে আমাদের আলোচনা হয়েছে, কীভাবে এ অ্যাপ ব্যবহারে মধ্যসত্ত্বভোগীদের এড়ানো যায়, এ বিষয়টা তারাও চিন্তাভাবনা করছেন।

টিকার ক্ষেত্রে দুর্নীতি অতিক্রম করা সম্ভব হবে কিনা জানতে চাইলে তিনি বলেন, আমি দায়িত্ব নেওয়ার দিনই বলেছি, দুর্নীতিতো আমরাই করছি, এরফলে আমার অনেক সমালোচনাও হয়েছিল। দুর্নীতি দূর করতে হলে, আগে আমাদের নিজেদের ঠিক করতে হবে। আমরা ঠিক না হলে দুর্নীতিতো থাকবেই। আমরা চাই না দুর্নীতি হোক। দুর্নীতি দূর করতে যে ব্যবস্থা নেওয়া দরকার, আমরা সেই ব্যবস্থা নেওয়ার চেষ্টা করছি। তারপরেও যদি দুর্নীতি হয়, তখন ব্যবস্থা নেওয়া হবে। স্বীকার করছি আমাদের ব্যবস্থাপনার দুর্বলতা রয়েছে অনেক স্থানে, আমরা চেষ্টা করছি, একসময় হয়তো এসব দুর্বলতা কাটিয়ে উঠতে পারবো।

প্রায় সোয়া দুই ঘণ্টাব্যাপী অনুষ্ঠিত ওয়েবিনারে সভাপতিত্ব করেন ডক্টরস ফর হেলথ অ্যান্ড এনভায়রনমেন্টের সভাপতি অধ্যাপক ডা.  এম আবু সাঈদ। স্বাগত বক্তব্য দেন সংগঠনের শিক্ষা ও গবেষণা উপ-কমিটির চেয়ারম্যান অধ্যাপক ডা.  এএইচএম শামসুল আলম।

অনুষ্ঠানে মূলপ্রবন্ধ উপস্থাপন করবেন, ডক্টরস ফর হেলথ অ্যান্ড এনভায়রনমেন্ট কার্যনির্বাহী সদস্য, অধ্যাপক ডা. সারোয়ার ইবনে সালাম রোমেল।

ওয়েবিনারে প্যানেলিস্ট হিসেবে আলোচনায় অংশ নেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য অধ্যাপক ডা. রুহুল আমিন মিয়া, ইউনিসেফের টিকা ও স্বাস্থ্য  ব্যবস্থার নাইজেরিয়া প্রধান ডা. আনিছ সিদ্দিকী, বাংলাদেশ  মেডিকেল অ্যাসোসিয়েশন (বিএমএ) সাবেক সভাপতি অধ্যাপক ডা. রশিদ-ই-মাহবুব, বিশিষ্ট সাংবাদিক ও কলামিস্ট আবু সাঈদ খান, সিপিবি সম্পাদক রুহীন হোসেন প্রিন্স প্রমুখ।

ওয়েবিনারে ধন্যবাদ জ্ঞাপন বক্তব্য দেন সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক, অধ্যাপক ডা. কাজী রকিবুল ইসলাম, সঞ্চালনা করেন সংগঠনের শিক্ষা ও গবেষণা উপ-কমিটির সদস্য সচিব ডা. গোলাম আজম।

বাংলাদেশ সময়: ২২২২ ঘণ্টা, জানুয়ারি ১৫, ২০২১
আরকেআর/ওএইচ/

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa