ঢাকা, বুধবার, ২৪ মাঘ ১৪২৯, ০৮ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ১৬ রজব ১৪৪৪

স্বাস্থ্য

ভোলায় প্রথমবারের মতো ল্যাপারোসকপি সার্জারি

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ০১৫২ ঘণ্টা, অক্টোবর ২৪, ২০১৯
ভোলায় প্রথমবারের মতো ল্যাপারোসকপি সার্জারি

ভোলা: ভোলায় সদর হাসপাতালে প্রথমবারের মতো চালু হলো কাটাছেড়া ছাড়া (ল্যাপারোসকপিক) সার্জারি। প্রথম দিনের ৬ রোগীকে অপারেশন করিয়ে এর সার্জারি চালু হয়েছে। বরিশাল বিভাগের জেলা পর্যায়ের হাসপাতালে এটিই প্রথম অপারেশন সার্জারি সেটি ভোলাতে চালু হলো।

বুধবার (২৩ অক্টোবর) আনুষ্ঠানিকভাবে এ সার্জারির উদ্বোধন করেন ভোলার সিভিল সার্জন ডা. রথীন্দ্র নাথ মজুমদার।
  
আধুনিক পদ্ধতিতে প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত চিকিৎসক কুর্মিটোলা হাসপাতালের সার্জারি কনসালট্যান্ট ডা. সামী আল হাসান, সার্জারি কনসালট্যান্ট ডা. সবুজ কুমার পাত্র,  ভোলা সদর হাসপাতালের গাইনি কনসালট্যান্ট সার্জারি ডা. সাইফুর রহমানসহ হাসপাতালের একদল চিকিৎসক অপারেশ কার্যক্রমে অংশ নেন।

চিকিৎসা নেওয়া ৬ জনের মধ্যে তিনজন জেনারেল সার্জারি এবং ৩ জন গাইনি বিষয়ক রোগী ছিলেন।

প্রথম দিনে শামীম নামে এক যুবকের এপেনডিসাইটিস, খাদিজা নামে এক নারীর পিত্তথলির পাথর অপসারণ সফলভাবে সম্পন্ন হয়। এছাড়াও উম্মে হালিমা, সুমাইয়া বেগম ও ইয়াসমিন গাইনি অপারেশন কার্যক্রম সম্পন্ন হয়েছে।

ভোলার সিভিল সার্জন ডা. রথীন্দ্রনাথ মজুমদার জানান, ভোলার একশ শয্যা হাসপাতালের জন্য ল্যাপারোসকপিক সার্জারি মেশিনপত্র দেওয়ার পর প্রথম দিনেই ৬ জনকে অপারেশন করা হয়। পুরোপুরি বিনা পয়সায় এ অপারেশন সেবা পাচ্ছেন রোগীরা। আগে বাইরে থেকে এসব অপারেশন করতে রোগীদের গড়ে অন্তত ৫০/৬০ হাজার টাকা খরচ হতো। এখন থেকে দরিদ্র রোগীরা বিনামূল্যে এ সেবা পাবেন।

এদিকে পুরোপুরি বিনামূল্যে সরকারিভাবে এমন আধুনিক সেবা পাওয়াতে আনন্দ প্রকাশ করছে স্থানীয় জনসাধারণ। তারা মনে করছেন, কোনো রকম ভোগান্তি ছাড়াই খুব সহজে হাতের লাগলে এমন চিকিৎসা সেবা পেয়ে সময় এবং অর্থ খরচের হাত থেকে রক্ষা পবেন।  

বাংলাদেশ সময়: ২১৫০ ঘণ্টা, অক্টোবর ২৩, ২০১৯
এসএইচ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa