ঢাকা, রবিবার, ২৮ আষাঢ় ১৪২৭, ১২ জুলাই ২০২০, ২০ জিলকদ ১৪৪১

স্বাস্থ্য

২ কোটি ২০ লাখ শিশুকে পোলিও টিকা খাওয়ানো হবে শনিবার

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৩-১৯-১২ ১১:৪৯:৫৩ এএম
২ কোটি ২০ লাখ শিশুকে পোলিও টিকা খাওয়ানো হবে শনিবার

ঢাকা: সরকার ২১তম জাতীয় টিকা দিবস পালন করবে শনিবার। দেশে পোলিও মুক্ত অবস্থা বজায় রাখতে এদিন সারা দেশে এক লাখ ৩০ হাজার টিকাদান কেন্দ্রের মাধ্যমে দুই কোটি ২০ লাখ শিশুকে পোলিও টিকা খাওয়ানো হবে।



বৃহস্পতিবার সচিবালয়ের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে স্বাস্থ্যসচিব এমএম নিয়াজউদ্দিন এ তথ্য জানান।

তিনি বলেন, জাতীয় টিকা দিবসে শূন্য থেকে পাঁচ বছরের নিচে সব শিশুকে দুই ফোঁটা করে পোলিও টিকা খাওয়ানো হবে। এ বয়সের শিশু আগে পোলিও টিকা খেয়ে থাকলেও তাদের ফের দুই ফোঁটা পোলিও টিকা খাওয়ানো হবে। যেসব শিশু ওইদিন জন্ম নেবে টিকা খাওয়ানো হবে তাদেরও।

স্বাস্থ্যসচিব জানান, সকাল ৮টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত টিকাদান কেন্দ্র খোলা থাকবে। নিয়মিত টিকাদান কেন্দ্র ছাড়াও ভ্রমণরত ও ভাসমান শিশুদের রেলস্টেশন, বাসস্ট্যান্ড, লঞ্চ টার্মিনালসহ বিভিন্ন জনসমাগম স্থলে স্থাপিত অস্থায়ী কেন্দ্র থেকে টিকা খাওয়ানো হবে।

জাতীয় টিকা দিবস সফল করতে সবার সহযোগিতা কামনা করে নিয়াজউদ্দিন বলেন, একটি শিশুও যেন এ কর্মসূচি থেকে বাদ না পড়ে।

স্বাস্থ্যসচিব বলেন, পোলিও একটি মারাত্মক ভাইরাজজনিত রোগ। একমাত্র টিকাদানের মাধ্যমে এই রোগ নির্মূল করা যায়।

বাংলাদেশে পোলিও পর পর তিন বছর শূন্যভাগ থাকলেও পার্শ্ববর্তী দেশগুলোর জন্য পোলিও নির্মূল সনদ পাচ্ছে না। ভারতেও পর পর তিন বার শূন্যভাগ রয়েছে। তবে আগামী ফেব্রুয়ারির মধ্যে বাংলাদেশ পোলিও নির্ম‍ূল সনদ পাবে বলে আশা করেন স্বাস্থ্যসচিব।

সবশেষ ২০০৬ সালের ২২ নভেম্বর দেশে একজন পোলিও রোগী শনাক্ত করা হয়েছিল।

পোলিও মুক্ত করতে জাতীয় টিকা দিবসের পরবর্তী চারদিন চাইল্ড টু চাইল্ড সার্চ কার্যক্রম চলবে। এতে বাড়িতে বাড়িতে গিয়ে খোঁজ নেওয়া হবে যাতে কোনো শিশু বাদ না যায়।

স্বাস্থ্য বিভাগের ৬০ হাজার কর্মীর সঙ্গে ছয় লাখ স্বেচ্ছাসেবী পোলিও টিকা খাওয়ানোর জন্য কাজ করবে বলে জানান মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তারা।

হরতাল-অবরোধ থাকলে কর্মসূচিতে কোনো বাধা সৃষ্টি হবে কিনা- জানতে চাইলে স্বাস্থ্যসচিব পরবর্তী প্রজন্মের কথা বিবেচনা করে বিরোধী দলসহ সবাইকে এ ধরনের কর্মসূচি থেকে বিরত থাকার আহ্বান জানান।

সংবাদ সম্মেলনে স্বাস্থ্য অধিদফতরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. খন্দকার সিফায়েত উল্লাহ, পরিবার পরিকল্পনা অধিদফতরের মহাপরিচালক এ কে এম আমির হোসেনসহ কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

নির্বাচনকালীন সরকারের স্বাস্থ্যমন্ত্রী রওশন এরশাদের মন্ত্রণালয়ে অনুপস্থিতির বিষয়ে জানতে চাইলে স্বাস্থ্য সচিব বলেন, উনি ব্যক্তিগত কারণে অনুপস্থিত। আপনারা জানেন সবাই...।

বাংলাদেশ সময়: ১১৩৬ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ১৯, ২০১৩
সম্পাদনা: আসিফ আজিজ, নিউজরুম এডিটর

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa