ঢাকা, মঙ্গলবার, ১৮ আশ্বিন ১৪২৯, ০৪ অক্টোবর ২০২২, ০৭ রবিউল আউয়াল ১৪৪৪

ফুটবল

মেসির প্রশংসায় পঞ্চমুখ রামোস

স্পোর্টস ডেস্ক | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০৩৯ ঘণ্টা, আগস্ট ৩, ২০২২
মেসির প্রশংসায় পঞ্চমুখ রামোস

একসময়ের 'চরম শত্রু', এখন 'পরম' বন্ধু; লিওনেল মেসি ও সার্জিও রামোসের সম্পর্ক মোটেই এমন নয়। তবে বরফ যে গলেছে তাতে কোনো সন্দেহ নেই।

দুজনে এখন একই ক্লাবের হয়ে খেলেন। একসঙ্গে অনুশীলন করেন, ড্রেসিংরুম ভাগাভাগি করেন। ফলে পুরনো তিক্ততা কমে আসা স্বাভাবিক। সেই তিক্ততা কতটা কমেছে, তা এবার বোঝা গেল স্প্যানিশ সেন্টার-ব্যাকের কথায়।

ক্রীড়া সংবাদমাধ্যম 'ইএসপিএন'-কে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে রামোস বলেন, 'মেসিকে সতীর্থ হিসেবে পাওয়া আমার জন্য বিশেষ ব্যাপার। তার প্রশংসা করার দরকার নেই আমার, সে মাঠে যেভাবে খেলে তাতেই সব পরিস্কার। সবাই জানে সে কে। আমি আশা করি সে এভাবেই চালিয়ে যাবে। '

একসময় স্প্যানিশ লা লিগায় একে অন্যের প্রতিদ্বন্দ্বী ছিলেন রামোস ও মেসি। রামোস রিয়াল মাদ্রিদে খেলতেন এবং সাতবারের ব্যালন ডি'অরজয়ী মেসি ছিলেন বার্সেলোনার প্রাণভোমরা। দুই স্প্যানিশ জায়ান্টের লড়াই, যাকে বলে 'এল ক্লাসিকো'য় মেসি-রামোসের লড়াই ছিল সমর্থকদের জন্য অন্যতম প্রধান আকর্ষণ। দুজনে বেশ কয়েকবার মাঠেই ঝগড়ায় লিপ্ত হয়েছেন। তবে দিন বদলে গেছে। এখন দুজনেই এখন পিএসজির হয়ে একসঙ্গে খেলেন।  

ফরাসি লিগ ওয়ানের জায়ান্টরা প্রাক-মৌসুম প্রস্তুতির জন্য জাপান সফরে গিয়েছিল। সেই সফরের এক ম্যাচে মেসি ও রামোসকে একসঙ্গে গোল উদযাপন করতেও দেখা গেছে। তাদের দুজনকে একই ক্লাবে খেলতে দেখে সমর্থকদের মধ্যে মিশ্র প্রতিক্রিয়া দেখা গেছে। কারণ মেসি ও রামোস যৌথভাবে সবচেয়ে বেশি 'এল ক্লাসিকো' খেলার রেকর্ডধারী। ফুটবলের সবচেয়ে উত্তাপ ছড়ানো এই লড়াইয়ে ৪৫ বার মুখোমুখি হয়েছেন তারা।

'এল ক্লাসিকো'-তে সবচেয়ে বেশি গোল (২৬) করার রেকর্ড মেসির। যৌথভাবে দ্বিতীয় স্থানে থাকা রিয়ালের দুই কিংবদন্তি আলফ্রেদো দি স্তেফানো ও ক্রিস্টিয়ানো রোনালদোর চেয়ে ৮ গোলে এগিয়ে তিনি।  

গত গ্রীষ্মে ফ্রি ট্রান্সফারে পিএসজিতে যোগ দেন মেসি ও রামোস। সেবার ইউরোজয়ী ইতালিয়ান গোলরক্ষক জিয়ানলুইজি দুরারুমা ও মরক্কান মিডফিল্ডার আশরাফ হাকিমিকেও দলে ভেড়ায় প্যারিসিয়ানরা। ক্লাবটির ইতিহাসে সেটাই ছিল সবচেয়ে বড় দলবদলের ঘটনা। এরপর গত মৌসুমে ফরাসি লিগ ওয়ানের শিরোপাও জেতে দলটি। তবে উয়েফা চ্যাম্পিয়নস লিগ ও ফরাসি কাপের শিরোপা জিততে পারেনি তারা। যেজন্য কোচ মাওরিসিও পচেত্তিনোকে সরিয়ে ক্রিস্তফ গালতিয়েরকে মেসি-নেইমারদের দায়িত্ব দিয়েছে পিএসজি।  

নতুন কোচের অধীনে পিএসজির প্রাক-মৌসুম প্রস্তুতিটা ভালোই হয়েছে। গর রোববার তারা নঁতেকে ৪-০ গোলে হারিয়ে ফরাসি সুপার কাপের শিরোপা জিতেছে। ম্যাচটিতে জোড়া গোল করেছেন নেইমার জুনিয়র। একটি করে গোল করেছেন মেসি ও রামোস। শেষ দুজনের জন্যই গত মৌসুমটা প্রত্যাশামতো কাটেনি। স্প্যানিশ ডিফেন্ডার ইনজুরির সঙ্গে লড়াই করতে ব্যর্থ ছিলেন মৌসুমের অধিকাংশ সময়। সব প্রতিযোগিতা মিলিয়ে গত মৌসুমে মাত্র ১৩ ম্যাচে মাঠে নামেন তিনি। তবে এ সময়ে দুইটি গোলও করেছেন তিনি।

মেসির জন্য গত মৌসুমটা ছিল ভুলে যাওয়ার মতোই। সব প্রতিযোগিতা মিলিয়ে মাত্র ১১ গোল করেছেন তিনি। এর মধ্যে লিগ ওয়ানে করেছেন মাত্র ছয় গোল। তবে সব প্রতিযোগিতা মিলিয়ে ১৫টি অ্যাসিস্টে নাম লিখিয়েছেন তিনি। এবারের মৌসুমটা মেসি ও রামোস দুজনের জন্য অনেক বেশি গুরুত্বপূর্ণ।  

বাংলাদেশ সময়: ২০৩৯ ঘণ্টা, আগস্ট ০৩, ২০২২
এমএইচএম

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa